মোহনবাগানে এখন ছাঁটাইয়ের হাওয়া। আর্থিক সমস্যা রয়েছে বাগানে। সমর্থকরা প্রায় প্রতিদিনই অসন্তোষ প্রকাশ করছেন। মরসুমের শুরুতে অনেক স্বপ্ন দেখেছিলেন সমর্থকরা। কিন্তু আই লিগের শেষ ল্যাপে এসে দেখা যাচ্ছে, মোহনবাগান ক্রমশ পিছিয়ে গিয়েছে। লিগ তালিকায় এখন তারা ছয় নম্বরে। বাকি আছে আর মাত্র একটি ম্যাচ। সেটাও লিগ তালিকার একেবারে শেষের দিকে থাকা শিলং লাজংয়ের বিরুদ্ধে।  

সূত্রের খবর, সুপার কাপের আগেই বাগান ছেড়ে দিতে পারে দুই তারকা ফুটবলারকে। গত কয়েকদিন ধরেই কলকাতা ময়দানে খবর যে, বেশ কয়েকজন ফুটবলারকে ছেড়ে দেবে শতাব্দীপ্রাচীন ক্লাব। এই তালিকায় সবার উপরে রয়েছেন উগান্ডার স্ট্রাইকার হেনরি কিসেক্কা ও মিশরীয় মিডফিল্ডার ওমর এল হুসেইনি। দেওয়াললিখনও হয়তো তাঁরা পড়ে ফেলেছেন ইতিমধ্যেই। অনুশীলনেও আসেননি সোমবার।  

আরও পড়ুন: এনরিকে জাদুতে পঞ্চকুল্লায় বাজিমাত ইস্টবেঙ্গলের, স্বপ্ন এখনও বেঁচে

গত মরসুমে গোকুলামের হয়ে খেলে এ দেশে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিলেন হেনরি। বক্স স্ট্রাইকার হিসেবে তাঁকে সম্ভ্রম করত বিপক্ষের বাঘা বাঘা সব ডিফেন্ডার। গোকুলামে উগান্ডান স্ট্রাইকারের গোল করার ক্ষমতা দেখেই মোহনবাগান-কর্তারা  ঝুঁকেছিলেন হেনরির দিকে। চলতি মরসুমে কলকাতা লিগ ও আই লিগ মিলে হেনরি ১১টা গোল করেছিলেন। যতগুলো গোল করেছিলেন, তার থেকেও বেশি অ্যাসিস্ট করেছিলেন। বাগানে অবশ্য বেশির ভাগ ম্যাচেই তিনি নিজের পছন্দের পজিশন পাননি। তাঁকে একটু পিছন থেকে ব্যবহার করা হতো। অবশ্য কোন ফুটবলারকে কোন পজিশনে ব্যবহার করা হবে, তা পুরোটাই নির্ভর করে কোচের উপরে।

হেনরিকে যেমন বক্স স্ট্রাইকার হিসেবে বেশি ব্যবহার করা হয়নি, তেমনই নিজের জায়গা পাচ্ছিলেন না মিশরীয় ফুটবলার। উইংয়ে খেলানো হচ্ছিল তাঁকে। চেন্নাই সিটি এফসি ম্যাচে সনি নর্দের গোলে এগিয়ে যাওয়ার পরে তুলে নেওয়া হয় ওমরকে। মোহনবাগানও তার পরে গোল হজম করে বসে। ওয়ান-টু খেলায় পারদর্শী ওমরা। পারফরম্যান্স প্রত্যাশিত না হওয়ায় এই দুই তারকাই হয়তো বাতিল হতে চলেছেন বাগানে। ইন্ডিয়ান অ্যারোজের বিরুদ্ধে হার আগুনে ঘৃতাহুতি দেয়। মঙ্গলবার একজন সেন্ট্রাল ডিফেন্ডার ও একজন মিডফিল্ডার বাগানের অনুশীলনে যোগ দেবেন বলে জানা গিয়েছে। বাগানের সহ সচিব সৃঞ্জয় বসু বলছেন, ‘‘ওমর আর হেনরির ব্যাপারে এখনও চূড়ান্ত কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। কয়েকদিনের মধ্যেই সবার সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’’ 

সূত্রের খবর, ক্যামেরুনের স্ট্রাইকার দিপান্দা ডিকা ও ইউটা কিনোয়াকিও না কি বাতিলের তালিকায় রয়েছেন। লাজং ম্যাচের পরেই তাঁদের ছেড়ে দেওয়া হতে পারে বলে শোনা যাচ্ছে।