ক্যারিবিয়ান দ্বীপপুঞ্জে আইসিসির বহু চর্চিত টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ শুরু করছে ভারত। এক বছর পর, ২০১৯ সালের জুলাইয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে সেই সিরিজ খেলবেন বিরাট কোহালিরা। ১৫ জুলাই শুরু হচ্ছে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ। চলবে ২০২১ সালের ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত।

উদ্বোধনী টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে অংশ নেবে র‌্যাঙ্কিংয়ের প্রথম ৯ দল। দু’বছরের মধ্যে প্রত্যেক দল খেলবে ৬টি করে সিরিজ। এর মধ্যে ৩টি ঘরের মাঠে আর ৩টি বাইরে। ভারত যেমন শুরু করছে অ্যাওয়ে সিরিজ দিয়ে। তার পর সেরা দুই দল মুখোমুখি হবে ফাইনালে। ২০২১ সালের জুনে হবে ফাইনাল।

অর্থ্যাত্, ভারত-পাকিস্তানের মুখোমুখি হওয়ার নিশ্চয়তা নেই টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপেও। কারণ, প্রত্যেক দলের বিরুদ্ধে সিরিজ খেলা বাধ্যতামূলক নয়। ৮টি সিরিজ খেলতে হবে না, ৬ সিরিজেই শেষ হবে চ্যাম্পিয়নশিপ। অবশ্য, এমনিতেই ভারত-পাকিস্তানের রাজনৈতিক সম্পর্ক যে জায়গায় রয়েছে, তাতে দু’দলের মধ্যে খেলা হওয়ার সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে না।

আরও পড়ুন: হকিকে দেশের জাতীয় খেলা করা হোক মোদীকে আর্জি পট্টনায়কের

২০২০ সালের জুনে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে  ভারত শুরু করছে ওয়ানডে লিগ। ওই লিগ সে বছরের ১ মে থেকে শুরু হয়ে চলবে ২০২২ সালের ৩১ মার্চ পর্যন্ত। এতে অংশ নেবে ১৩টি দল। দু’বছরে প্রত্যেক দল খেলবে ৮টি করে সিরিজ। এখানেও থাকছে ৪টি করে হোম ও অ্যাওয়ে সিরিজ।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের মুখ্য কার্যনির্বাহী ডেভিড রিচার্ডসন আগামী ৫ বছরের এফটিপি ঘোষণা করেছেন বুধবার। তাঁর মতে, “টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ও ওয়ানডে লিগের সুবাদে আগামী পাঁচ বছরে দ্বিপাক্ষিক সিরিজের গুরুত্ব বাড়ল। ওয়ানডে লিগ আবার ২০২৩ বিশ্বকাপের যোগ্যতা অর্জনের সঙ্গে সম্পর্কিত।”

আরও পড়ুন: রাশিয়ার মাঠে কেন আলাদা জল খেতে হচ্ছে মার্কেজকে