নতুন ঠিকানায় জবি জাস্টিন। জুন থেকে ইস্টবেঙ্গল তাঁর কাছে অতীত।

বুধবার এটিকের তরফে মেল পাঠিয়ে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, জবির সঙ্গে তাদের প্রি কন্ট্র্যাক্ট সই হয়ে গিয়েছে। এটিকের সঙ্গে তিন বছরের চুক্তি কার্যকর হবে জুন মাস থেকে। তিনি যে ইস্টবেঙ্গল ছেড়ে এটিকের দিকেই ঝুঁকে রয়েছেন, তা অনেক আগে থেকেই জানতেন ফুটবলভক্তরা। এদিন মেল পাঠিয়ে জবির এটিকেতে যোগ দেওয়ার খবরের মান্যতা দিল শহরের আইএসএল ফ্র্যাঞ্চাইজি। 

এ বারের আই লিগ দেখেছে জবির দৌরাত্ম্য। বিদেশি স্ট্রাইকারদের দাপটের যুগে জবি একাই বহু ম্যাচ জিতিয়েছেন ইস্টবেঙ্গলকে। এনরিকে চোট পেয়ে দেশে ফিরে যাওয়ার পরে জবি একা টেনে নিয়ে গিয়েছেন লাল-হলুদকে। দুরন্ত ফর্মের জন্য জবি লাল-হলুদ জনতার নয়নের মণি হয়ে উঠেছিলেন। ইস্টবেঙ্গল জার্সিতে আই লিগে করেছেন ৯টি গোল। কলকাতা লিগে চার-চারটি গোলের মালিক জবি। গোলের গন্ধ মাখা পাস বাড়িয়েছেন বহু। সতীর্থ হাইমে কোলাডোকে দিয়ে গোল করিয়েছেন ডার্বি ম্যাচে। 

আরও পড়ুন: আলেসান্দ্রো চান নতুন চার বিদেশি

আরও পড়ুন: ক্লাবকে টোকেন দিলেন জবি

এটিকেতে সতীর্থ হিসেবে জবি পাবেন ল্যাঞ্জারোতে, এডু গার্সিয়া, জন জনসন, অর্ণব মণ্ডলদের। হয়তো বদলে যাচ্ছেন এটিকে কোচও। স্টিভ কপেলের জায়গায় আসতে পারেন স্প্যানিশ কোনও কোচ। খবরের ভিতরের খবর, জামশেদপুরের কোচ সেসার ফেরান্দো আর থাকতে চাইছেন না জামশেদপুরে। তাঁকে কোচ করার ব্যাপারে আগ্রহ প্রকাশ করেছে চেন্নাইয়িন ও এটিকে। নতুন মরসুমে এটিকেতে জবির ‘দ্রোণাচার্য’ কি হবেন ফেরান্দো? তার জবাব দেবে সময়। নতুন ক্লাবেও পুরনো ২২ নম্বর জার্সিই পিঠে উঠবে জবির। এটিকে কর্তাদের কাছে একই নম্বরের জার্সি চেয়েছেন তিনি। কর্তারাও তাঁকে ২২ নম্বর জার্সি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। জবির সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘‘এখনও আমি ইস্টবেঙ্গলেরই ফুটবলার। জুন থেকে আমি এটিকের। পরে আমি সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের প্রতিক্রিয়া জানাবো।’’

সামনে আর টুর্নামেন্ট নেই। ইস্টবেঙ্গলের অনুশীলন চলছে। আজ বুধবার ছুটি দেওয়া হয়েছিল ফুটবলারদের। বৃহস্পতিবার ফের অনুশীলন ডাকা হয়েছে। লক্ষ্মীবার অনুশীলনে যাবেন জবি। কিন্তু তিনি কেন ছাড়লেন পুরনো ক্লাব? জবি সরাসরি কোনও জবাব দেননি। ময়দানের খবর, ইস্টবেঙ্গলে থেকে যেতে চেয়েছিলেন জবি। কিন্তু, তাঁর ভবিতব্য যে আগে থেকেই লেখা হয়ে গিয়েছিল। আই লিগে নিজের সেরাটা উজাড় করে দিয়েও বদলে ফেলতে হচ্ছে ক্লাব। নতুন মরসুমে নতুন ক্লাব। জবির চ্যালেঞ্জটাও বদলে যাচ্ছে।