সুপার কাপ নিয়ে ফেডারেশনের সঙ্গে লড়াই অব্যাহত দেশের প্রধান আই লিগ ক্লাবগুলির। 

ভুবনেশ্বরের দল পৌঁছে গেলেও শেষ পর্যন্ত কাপের ম্যাচ না খেলেই চণ্ডীগড় যাওয়ার ফিরতি বিমান ধরছে গতবারের আই লিগ চ্যাম্পিয়ন মিনার্ভা পঞ্জাব। যাদের বিরুদ্ধে এ বারের আই লিগে চেন্নাইয়ের সঙ্গে সঠিক মনোভাব নিয়ে না খেলার অভিযোগ তুলেছেন সেই ম্যাচের কমিশনার। তাঁর সেই চিঠি নিয়ে চাপে পড়ে তদন্ত শুরু করেছে ফেডারেশন। 

আজ, বৃহস্পতিবার উদ্বোধনী দিনে মিনার্ভার খেলা ছিল আইএসএলের দল এফ সি পুণে সিটি-র সঙ্গে। আল আমনারা সকালে মাঠে অনুশীলন করলেও তাদের কেউই ম্যানেজারদের সভায় যাননি। মিনার্ভার মতো ম্যাচ খেলতে ভুবনেশ্বর চলে এসেছে আই লিগের দুটি ক্লাব আইজল এবং গোকুলমও। তাদের ম্যাচ রয়েছে ১৬ মার্চ। জানা গিয়েছে দুটি দলই ম্যাচ না খেলে ফিরে যেতে পারে। বিমানের টিকিটের খোঁজ করছে তারা।    

এ দিকে, সুপার কাপ বয়কট করা বিদ্রোহী দলের সংখ্যা এ দিন আরও একটি বাড়ল। চার্চিল ব্রাদার্স অন্য ক্লাবগুলির পথেই পা বাড়ানোয় সাত থেকে সংখ্যাটা দাঁড়াল আট। চার্চিল ব্রাদার্সের প্রধান চার্চিল আলেমাও গোয়া থেকে ফোনে বললেন, ‘‘অন্য সাতটি দলের সঙ্গে আমরা একমত। আমরা আই লিগের ক্লাবগুলি যে চিঠি দিয়েছিলাম, তার জবাব না পেলে সুপার কাপ খেলব না। সঠিক জবাব পেলে তবেই খেলব।’’ যদিও ফেডারেশন থেকে বুধবার রাতে ক্লাবগুলির সঙ্গে যোগাযোগ করে বলা হয়েছে, তাদের দাবি মতো প্রফুল্ল পটেল তাদের সঙ্গে দেখা করবেন এবং তাদের তোলা বিষয়গুলি নিয়ে আলোচনাও করবেন।

 দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯  

এই অবস্থায় ২২ দলের সুপার কাপ শেষ পর্যন্ত ক’টি দলকে নিয়ে হবে তা নিয়ে প্রশ্ন চিহ্ন তৈরি হল। কারণ প্রতিযোগিতার যোগ্যতা নির্ণায়ক পর্বের তিনটি ম্যাচই বাতিল হওয়ার পথে। পরিস্থিতি এখনও যা তাতে কলকাতার দুই প্রধানের খেলার সম্ভাবনা কম। মোহনবাগান ইতিমধ্যেই তাদের অনুশীলন পিছিয়ে দিয়েছে। আজ শুক্রবার থেকে খালিদ জামিলের দল নিয়ে নামার কথা ছিল। তা পিছিয়ে করে দেওয়া হয়েছে সোমবার। সুপার কাপ খেলা নিয়ে স্পনসরদের সঙ্গে ইস্টবেঙ্গল ক্লাব কর্তাদের মতপার্থক্য ধরা পড়েছে। বৃহস্পতিবারও সেই অবস্থানের কোনও নড়চড় হয়নি। আলেসান্দ্রো মেনেন্দেসের দলের অনুশীলন শুরু হওয়ার কথা ২৩ মার্চ থেকে। 

যে আটটি ক্লাব কাপ বয়কট করেছে তারা না খেললে মোট ১৪ দলকে নিয়ে হবে প্রতিযোগিতা। এ দিন ফেডারেশনের পক্ষ একটি বিবৃতি দেওয়া হয়েছে। তাতে লেখা রয়েছে, ‘‘ম্যানেজারদের বৈঠকে মিনার্ভার না যাওয়াটা খুবই দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা। ফেডারেশনের কাছে এটা অপমানজনকও। আমরা হতাশ।’’ বিবৃতিতে আরও জানানো হয়েছে, এ দিন ম্যানেজারদের সভায় দুটি ম্যাচের তিনটি দল ইন্ডিয়ান অ্যারোজ, পুণে সিটি এফ সি এবং কেরল ব্লাস্টার্স যোগ দিলেও মিনার্ভা যোগ দেয়নি। তাদের খেলা রয়েছে বিকেল পাঁচাটায় কলিঙ্গ স্টেডিয়ামে। শোনা যাচ্ছে তারা মাঠে দল না নামালে সুপার কাপের নিয়মানুযায়ী দশ লক্ষ টাকা আর্থিক জরিমানার পাশাপাশি পরের সুপার কাপে খেলতে দেওয়া হবে না।