• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

আবিদের লড়াইয়েও চাপে পাকিস্তান

Fawad Alam
চর্চায়: ফাওয়াদ আলমের এই ব্যাটিং স্টান্স নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। ছবি টুইটার থেকে নেওয়া।

টেস্ট ক্রিকেটের মাহাত্ম্য আরও বাড়িয়ে দেয় মেঘলা আবহাওয়া ও পেসারদের সুইং। সেই সুইং শিল্পকে দমিয়ে দুরন্ত হাফসেঞ্চুরি পাক ওপেনার আবিদ আলির। ৩২ বছর বয়সি ওপেনার ৬০ রান করে নড়বড়ে ব্যাটিং লাইন-আপের ঢাল হয়ে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেন। কিন্তু তিনি ফিরতেই বিপর্যয় নেমে আসে পাক শিবিরে। চা-বিরতির পরে পাঁচ উইকেট হারিয়ে পাকিস্তানের রান ১২৬। ২৫ রানে ব্যাট করছেন বাবর আজ়ম। সঙ্গ দিচ্ছেন মহম্মদ রিজ়ওয়ান (৪)। 

বৃহস্পতিবার সাউদাম্পটনে দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম দিনের সকালে পরিষ্কার ছিল আকাশ। লাঞ্চের পর থেকেই কালো মেঘের আচ্ছাদনে ঢেকে যায় স্টেডিয়াম। ম্যাচে বিঘ্ন ঘটায় সেই বৃষ্টি। মেঘলা আবহাওয়ায় বল আরও সুইং করতে শুরু করে। প্রথম টেস্টে এক উইকেট পাওয়া জেমস অ্যান্ডারসনকে শুরু থেকেই ভয়ঙ্কর দেখায়। প্রথম টেস্টে ১৫৬ রান করে যাওয়া শান মাসুদকে শুরুতেই ফিরিয়ে দেন। পাক অধিনায়ক আজ়হার আলি পরাস্ত তাঁর আউটসুইংয়ে। ২০ রান করে দ্বিতীয় স্লিপে দাঁড়িয়ে থাকা রোরি বার্নসের হাতে ক্যাচ তুলে দেন তিনি। 

তবুও উইকেট কামড়ে পড়ে ছিলেন আবিদ। অধিনায়ক জো রুট এ ম্যাচে জোফ্রা আর্চারের পরিবর্তে সুযোগ দেন স্যাম কারেনকে। কারণ, নীচের দিকে কার্যকরী হতে পারে তাঁর ব্যাটিং। সেই বাঁ-হাতি মিডিয়াম পেসারের সুইং সামলাতে ব্যর্থ আবিদ। পাক ওপেনারকে একের পর এক ইনসুইং দিয়ে (বাঁ-হাতির ক্ষেত্রে আউটসুইং) তাঁকে তৈরি করেন আউটসুইংয়ে পরাস্ত করার জন্য। সেই ফাঁদেই পা দেন আবিদ। এ দিকে ফাওয়াদ আলমের ব্যাটিং স্টান্স নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় উঠেছে। কেউ বলছেন, ‘‘শিবনারাইন চন্দ্রপলকে নকল করতে যেও না।’’ কেউ লিখছেন, ‘‘স্বাভাবিক ব্যাটিং করা কি ভুলে গেল ফাওয়াদ?’’ শূন্য রানে তাঁকে ফিরিয়ে দেন ক্রিস ওকস।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন