রিকি পন্টিং এবং  সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়—দিল্লি ক্যাপিটালসের দুই শিক্ষকের থেকে তিনি পেয়েছেন দৃঢ় মানসিকতা তৈরির পাঠ। শুক্রবার এক অনুষ্ঠানে তা জানালেন পৃথ্বী শ।

মুম্বইয়ে এক অনুষ্ঠানে দিল্লি দলের ওপেনার জানিয়েছেন, আইপিএল চলাকালীন বিশ্বক্রিকেটের দুই কিংবদন্তি তাঁকে টেকনিক নিয়ে বাড়তি কোনও পরামর্শ দেননি। বরং তার পরিবর্তে আন্তর্জাতিক মঞ্চে লড়াই করার জন্য মানসিক দৃঢ়তা কী ভাবে বাড়াতে হয়, তার পরামর্শ দিয়েছেন। পৃথ্বী বলেছেন, ‘‘আমি দিল্লি দলের ড্রেসিংরুমে এমন দুই কিংবদন্তির সাহচর্য পেয়েছি যাঁরা সর্বোচ্চ স্তরে কমপক্ষে ১৫-২০ বছর খেলেছেন। আমাকে ওঁরা দু’জনেই মানসিক শক্তি বাড়ানোর পরামর্শ দিয়েছেন। যেটা আমার খুব কাজে লেগেছে।’’

পৃথ্বী আরও বলেছেন, ‘‘আমাকে দুজনেই এটা বারবার করে বলেছেন যে, ম্যাচ যত বেশি খেলবে টেকনিক তত উন্নত হবে। কিন্তু একটা সময়ের পরে প্রয়োজন মানসিক শক্তির বিকাশ যা আমাকে সমস্ত দিক থেকে অনেক বেশি পরিণত করে দেবে।’’ সেখানেই না থেমে পৃথ্বী আরও বলেছেন, ‘‘আমার মতো নবাগত ক্রিকেটারের কাছে আইপিএল একটা বিরাট মঞ্চ ছিল। শুরুর দিকে আমি একটু চাপেই ছিলাম। কিন্তু দুই শিক্ষক আমাকে কী ভাবে মাথা ঠান্ডা রেখে খেলতে হয়, সেটা শিখিয়ে দিয়েছেন।’’

এই মুহূর্তে পৃথ্বী মুম্বই টি-টোয়েন্টি লিগে খেলছেন নর্থ মুম্বই প্যান্থার্স দলের হয়ে। সেখানে তিনি প্রয়োগ করছেন আইপিএল-এর অভিজ্ঞতা। পৃথ্বী বলেছেন, ‘‘টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ভাল ফিল্ডিং করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সত্যি বলতে, অনূর্ধ্ব-১৪ এবং অনূর্ধ্ব-১৬ স্তরে খেলার সময়ে আমি খুব ভাল ফিল্ডার ছিলাম না। পরে অনুভব করছি, ফিল্ডিংয়ে উন্নতি না করতে পারলে ভারতীয় দলে জায়গা পাওয়া সম্ভব নয়। সেখান থেকেই আমার মানসিকতা আমূল পাল্টে গিয়েছিল।’’ জানিয়েছেন, দিল্লি দলে শিখর ধওয়নের সঙ্গে খেলার সুযোগ পেয়ে নতুন শট নেওয়ার কায়দাও রপ্ত করেছেন।