বিরাট কোহালিদের পরবর্তী ট্রেনার বা স্ট্রেংথ কন্ডিশনিং কোচ বেছে নেওয়ার বিচারকদের তালিকায় রয়েছেন বাংলার এক বিশেষজ্ঞ। তিনি রণদীপ মৈত্র। হালফিলে ক্রিকেটে বেশির ভাগ দলে ট্রেনার লুপ্তপ্রায় হয়ে পড়েছে। তার জায়গায় এসে গিয়েছে স্ট্রেংথ অ্যান্ড কন্ডিশনিং কোচ। কোহালিদের সঙ্গে যেমন শঙ্কর বাসু যুক্ত ছিলেন। তিনি আর থাকবেন না বলে নতুন কাউকে নেওয়া হবে। সেই নতুন লোক বেছে নেওয়ার জন্য যে সব নির্বাচকেরা থাকছেন, রণদীপ তাঁদের অন্যতম। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড থেকে এই ভূমিকা পালনের আমন্ত্রণ পেয়েছেন তিনি। 

হেড কোচ হিসেবে রবি শাস্ত্রীকে পুনর্নিয়োগের পরে এখন সহকারীদের বাছাই পর্ব চলছে। এ দিনও ব্যাটিং‌, বোলিং, ফিল্ডিং কোচদের ইন্টারভিউ চলল। আজ, বুধবার থেকে চালু হবে ফিজিয়ো এবং স্ট্রেংথ অ্যান্ড কন্ডিশনিং কোচ নির্বাচনের প্রক্রিয়া। এই প্রক্রিয়াতেই বিচারকদের প্যানেলে রয়েছেন রণদীপ। নিজে শারীরিক অসুস্থতার সঙ্গে লড়াই করে যিনি শারীরিক সক্ষমতার মাস্টার হয়ে উঠেছেন। সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের উদ্যোগে সেই আমলে ভারতীয় দলের সহকারী ট্রেনার হিসেবেও যুক্ত ছিলেন তিনি। সৌরভই তাঁকে নিয়ে গিয়েছিলেন জাতীয় শিবিরে। এখন তিনিই নির্বাচকের ভূমিকায়। এর আগে ভারতীয় ‘এ’ দলের ট্রেনার বাছাইয়ের সময়েও তাঁকে নির্বাচকের ভূমিকায় ডেকেছিল বোর্ড।    
এক দশকেরও আগে যখন ভারতীয় ক্রিকেটে কেউ ‘স্ট্রেংথ অ্যান্ড কন্ডিশনিং’ নিয়ে মাথা ঘামায়নি, সেই সময় তিনি এই বিষয় নিয়ে চর্চা শুরু করেছিলেন। রণদীপ বলছেন, ‘‘এখন ট্রেনার নয়, স্ট্রেংথ অ্যান্ড কন্ডিশনিং কোচ বেশি জরুরি। ক্রিকেট এখন পাওয়ার গেম হয়ে গিয়েছে। ফিটনেস তো লাগবেই, পাশাপাশি শক্তির ভূমিকা অনেক বেড়ে গিয়েছে।’’ ইন্টারভিউ নিতে বসার আগে এই নির্বাচন নিয়ে বেশি কথা বলতে চান না বাংলার ফিটনেস বিশেষজ্ঞ। কিন্তু মঙ্গলবার মুম্বই উড়ে যাওয়ার একটা প্রতিশ্রুতি দিয়ে গেলেন। ‘‘যে সব চেয়ে যোগ্য, তাঁকেই বাছতে চাইব।’’
মঙ্গলবার আবার বিরাটদের ব্যাটিং, বোলিং, ফিল্ডিং কোচ বাছাইয়ের ইন্টারভিউ নেওয়ার দ্বিতীয় পর্ব চলল। প্রার্থীদের ইন্টারভিউ নেয় এমএসকে প্রসাদের নেতৃত্বে জাতীয় নির্বাচক কমিটি। এ দিন জন্টি রোডসও ইন্টারভিউ দেন। তবে তাঁর ইন্টারভিউ নিয়ে যতটা আশা করা গিয়েছিল, সে রকম উচ্ছ্বাস দেখা যায়নি। ওয়েস্ট ইন্ডিজ থেকে ভিডিয়ো কনফারেন্সের মাধ্যমে প্যানেলের সামনে নিজেদের বক্তব্য রাখেন বর্তমান ব্যাটিং কোচ সঞ্জয় বাঙ্গার, বোলিং কোচ বি অরুণ এবং ফিল্ডিং কোচ আর শ্রীধর। জানা গিয়েছে, ইংল্যান্ডের দুই প্রাক্তন ব্যাটসম্যান, জোনাথন ট্রট এবং মার্ক রামপ্রকাশও ইন্টারভিউ দেন। রামপ্রকাশকে নিয়ে আগ্রহ দেখাতে শুরু করেছেন কেউ কেউ।