শনিবার লর্ডস টেস্টে জোফ্রা আর্চারের ধেয়ে আসা বাউন্সার আছড়ে পড়ে স্টিভ স্মিথের ঘাড়ে। সঙ্গে সঙ্গে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন তিনি। স্মিথকে মাটিতে শুয়ে পড়তে দেখেও এগিয়ে আসেননি আর্চার। সান্ত্বনাও দেননি তিনি।

ইংল্যান্ডের ফাস্ট বোলারের এমন আচরণ দেখে রীতিমতো অবাক পাকিস্তানের প্রাক্তন তারকা শোয়েব আখতার। ‘রাওয়ালপিণ্ডি এক্সপ্রেস’ নিজের অফিসিয়াল টুইটারে লেখেন, ‘‘বাউন্সার ক্রিকেটেরই অংশ। কিন্তু, কোনও বোলারের ডেলিভারিতে যখনই আহত হন কোনও ব্যাটসম্যান, তখন সৌজন্যবশতই ব্যাটসম্যানের পাশে গিয়ে দাঁড়ানো উচিত বোলারের। স্মিথ আহত হওয়ার পরে আর্চার ব্যাটসম্যানের কাছে না গিয়ে দূরে সরে যায়। ওর এমন আচরণ আমার কাছে মোটেও ক্রিকেটীয় মনে হয়নি। আমি এরকম পরিস্থিতিতে সব সময়ে ব্যাটসম্যানের কাছে আগে দৌড়ে গিয়েছি।’’

আর্চারের বাউন্সারের আঘাতে অ্যাশেজের দ্বিতীয় টেস্টের পঞ্চম দিনে ছিটকে যান স্মিথ। তাঁর পরিবর্তে রবিবার তাঁর চোট পরীক্ষা করা হয়। সেই রিপোর্টে দেখা যায় কনকাশন হয়েছে স্মিথের। এই রিপোর্ট পাওয়ার পরেই আইসিসি-র কাছে অস্ট্রেলিয়া আবেদন করে, স্মিথের পরিবর্ত হিসেবে পঞ্চম দিনে অন্তর্ভুক্ত করা হোক মারনাস ল্যাবুশেনকে। আইসিসি-ও সম্মতি দেয়।

আরও পড়ুন: অ্যাশেজে ইতিহাস, ছিটকে গেলেন স্মিথ, ব্যাট করতে পারবেন পরিবর্ত মারনাসও

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কন্ট্রোল সম্মতি দেওয়ায় টেস্ট ক্রিকেটে প্রথম পরিবর্ত ক্রিকেটার হয়ে গেলেন ল্যাবুশেন। তিনি ব্যাটিং, বোলিং, ফিল্ডিং- সবই করতে পারবেন। কিন্তু, তৃতীয় টেস্টে স্মিথ খেলতে পারবেন কি না, তা নিয়ে তৈরি হয়েছে ধোঁয়াশা। ব্যাটসম্যানকে থামানোর জন্য বাউন্সার দেওয়া ক্রিকেটেরই অংশ। কিন্তু, আর্চার বিন্দুমাত্র সৌজন্য না দেখানোয় চটেছেন শোয়েব। সোশ্যাল মিডিয়ায় সমালোচনা করেছেন ইংল্যান্ডের তারকা পেসারকে।