Advertisement
২৯ জানুয়ারি ২০২৩
এএফসি এশিয়ান কাপে শেষ ষোলোয় ওঠার লড়াই ভারতের

বাহরিনের জন্য তৈরি আছে রক্ষণ, বলছেন কনস্ট্যান্টাইন

সোমবারের এই ম্যাচ ভারত অধিনায়ক সুনীল ছেত্রীর কাছে গুরুত্বপূর্ণ আরও একটি কারণে। জাতীয় দলের জার্সি গায়ে এর আগে সর্বোচ্চ ১০৭ ম্যাচ খেলেছেন প্রাক্তন অধিনায়ক ভাইচুং ভুটিয়া। সোমবার বাহরিন ম্যাচে খেললে সুনীল দেশের প্রতিনিধিত্ব করায় ধরে ফেলবেন ভাইচুংকে। 

লক্ষ্য: আজ কঠিন পরীক্ষায় ভরসা সেই সুনীল ছেত্রী (বাঁ দিকে)। ফাইল চিত্র

লক্ষ্য: আজ কঠিন পরীক্ষায় ভরসা সেই সুনীল ছেত্রী (বাঁ দিকে)। ফাইল চিত্র

নিজস্ব প্রতিবেদন
শেষ আপডেট: ১৪ জানুয়ারি ২০১৯ ০২:৫৯
Share: Save:

প্রতীক্ষায় ভারতীয় ফুটবলমহল। এএফসি এশিয়ান কাপে ভারতীয় ফুটবল দল মহারণে নামছে বাহরিনের বিরুদ্ধে। শারজা স্টেডিয়ামে যে ম্যাচ জিতলেই এশিয়ান কাপের নক-আউট পর্বে পৌঁছে ইতিহাস তৈরি করবেন সুনীল ছেত্রীরা।

Advertisement

শুধু তাই নয়। আজ, সোমবারের এই ম্যাচ ভারত অধিনায়ক সুনীল ছেত্রীর কাছে গুরুত্বপূর্ণ আরও একটি কারণে। জাতীয় দলের জার্সি গায়ে এর আগে সর্বোচ্চ ১০৭ ম্যাচ খেলেছেন প্রাক্তন অধিনায়ক ভাইচুং ভুটিয়া। সোমবার বাহরিন ম্যাচে খেললে সুনীল দেশের প্রতিনিধিত্ব করায় ধরে ফেলবেন ভাইচুংকে।

আট বছর আগে দোহায় এই বাহরিনের বিরুদ্ধেই এশিয়ান কাপে ২-৫ চূর্ণ হয়েছিল ভারত। যদিও ভারতীয় কোচ স্টিভন কনস্ট্যান্টাইন সে সব পরিসংখ্যান নিয়ে ভাবতে নারাজ। তিনি বলছেন, ‘‘আগেও বলেছি, এখনও বলছি, এই গ্রুপ থেকে নক-আউটে যেতেই পারে ভারত। আর সেটাই আমাদের একমাত্র লক্ষ্য। আমি জানি না, এটা মরণ-বাঁচন ম্যাচ কি না। কারণ আমার মতে, সেটা বলা একটু বেশি নাটকীয় হয়ে যাবে। অতীত রেকর্ড নিয়ে ভাবছি না। কারণ, তার পরে দু’দলের মধ্যেই অনেক পরিবর্তন হয়েছে।’’

ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে এই মুহূর্তে ভারতের র‌্যাঙ্কিং ৯৭। সেখানে বাহরিন (১১৩) ষোলো ধাপ পিছনে। ‘এ’ গ্রুপে যা পরিস্থিতি, তাতে যে কোনও দলই যেতে পারে শেষ ষোলোয়। দু’ম্যাচের পরে সংযুক্ত আরব আমিরশাহির পয়েন্ট ৪। ভারত ও তাইল্যান্ডের ঝুলিতে রয়েছে ৩ পয়েন্ট। আর বাহরিন দাঁড়িয়ে ১ পয়েন্টে। গোলপার্থক্যে যদিও ভারত (১) এগিয়ে তাইল্যান্ডের (-২) থেকে। তা ছাড়া মুখোমুখি সাক্ষাতে তাইল্যান্ডকে হারানোয় সুবিধাজনক জায়গায় রয়েছে ভারত।

Advertisement

এই পরিস্থিতিতে স্টিভনের পর্যবেক্ষণ, ধীরে ধীরে ভারতে ক্রিকেটকে ছাপিয়ে ফুটবলের জনপ্রিয়তা বাড়ছে। সে কথা মনে করিয়ে দিয়ে ভারতীয় কোচ আরও বলছেন, ‘‘বাহরিনের রক্ষণ বেশ সংগঠিত। তাই ম্যাচটা সহজ হবে না। তবে আমরা এই প্রতিযোগিতায় দেখিয়ে দিয়েছি ভাল দলের বিরুদ্ধে ভারতীয়রা গোল করতে পারে। আমি নিশ্চিত, সোমবারও ছেলেরা বিপক্ষ রক্ষণ ভেঙে গোল করবে। জানি, বাহরিন জয়ের জন্য মরিয়া হবে। তার জন্য তৈরি রয়েছে আমাদের রক্ষণ। জিতলে নক-আউট পর্বে বিপক্ষে কোন দলের সামনে পড়তে হবে, সেটা নিয়েও চিন্তিত নই।’’

এশিয়ান কাপের ইতিহাসে ১৯৬৪ সালে রানার্স হয়েছিল ভারত। কিন্তু সে বার রাউন্ড-রবিন লিগে খেলা হয়েছিল চার দলের মধ্যে। কোনও নক-আউট পর্ব ছিল না। সেক্ষেত্রে সোমবার ভারতীয় ফুটবলের এক ঐতিহাসিক দিন হতে পারে যদি গ্রুপের বাধা টপকে প্রথম বার শেষ ষোলোয় জায়গা করে নিতে পারে স্টিভন কনস্ট্যান্টাইনের দল। ভারতীয় কোচ বলছেন, ‘‘ম্যাচটা সহজ হবে না। গত চার বছর ধরে এই প্রতিযোগিতার জন্য কঠোর পরিশ্রম করেছি আমরা। আশা করি, তা বৃথা যাবে না। গ্রুপের অন্য ম্যাচ নিয়ে না ভেবে বাহরিনের বিরুদ্ধে জেতাই আমাদের পাখির চোখ।’’ রসিকতার সঙ্গে যোগ করেন, ‘‘তাইল্যান্ডের বিরুদ্ধে ভাগ্য বাহরিনের সঙ্গে ছিল না। আশা করছি, সোমবারও সেটা ওদের সঙ্গে হবে।’’

বাহরিনের বিরুদ্ধে এখনও পর্যন্ত সাত বার মুখোমুখি হয়েছে ভারত। যার মধ্যে এক বার জিতেছে ভারত। তাও আবার ৩৯ বছর আগে। যে ম্যাচে জোড়া গোল করে ভারতকে ২-০ জিতিয়েছিলেন সাব্বির আলি।

এই বাহরিন দলের কোচ চেক প্রজাতন্ত্রের মিরোস্লাভ সউকুপ। রবিবার সাংবাদিক সম্মেলনে মরিয়া মনোভাব নিয়ে বলেই গেলেন, ‘‘পরের রাউন্ডে যেতে গেলে আমাদের সামনে ভারতের বিরুদ্ধে জেতা ছাড়া কোনও রাস্তা খোলা নেই। ভারতীয়দের মাঠে শক্তি ও দুর্বলতার ব্যাপারে সব তথ্যই রয়েছে আমাদের কাছে। ভারতের অনেক খেলাই দেখেছি।’’ সঙ্গে মিরোস্লাভ যোগ করেন, ‘‘সংযুক্ত আরব আমিরশাহির বিরুদ্ধে দারুণ ফুটবল খেলেছে ভারত। তাইল্যান্ডের বিরুদ্ধেও ওদের ম্যাচটা দেখেছি। দুই ম্যাচেই এক রণনীতি নিয়েই খেলেছে ওরা। আশা করছি, সোমবার সেই রণনীতি বদলাবে ভারত। তাই আমাদের বাড়তি সতর্ক হতে হবে।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.