Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২০ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

Steve Smith: ‘প্রতারক প্রতারকই থাকে’, স্টিভ স্মিথ সহ-অধিনায়ক হওয়ায় ক্ষুব্ধ প্রাক্তন অধিনায়ক

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা ২৭ নভেম্বর ২০২১ ১৮:৪৬
স্মিথকে নিয়ে ক্ষুব্ধ চ্যাপেল

স্মিথকে নিয়ে ক্ষুব্ধ চ্যাপেল
ফাইল ছবি

বল বিকৃতি কাণ্ডে অভিযুক্ত স্টিভ স্মিথকে ফের দলের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে এনেছে অস্ট্রেলীয় বোর্ড। তাঁকে টেস্ট দলের সহ-অধিনায়ক করা হয়েছে। তবে বোর্ডের এই সিদ্ধান্তে একেবারেই খুশি হতে পারছেন না ইয়ান চ্যাপেল। সে দেশের প্রাক্তন অধিনায়কের মতে, একজন প্রতারক কখনও বদলান না। তিনি প্রতারকই থাকেন।

অস্ট্রেলিয়ার এক রেডিয়ো চ্যানেলে চ্যাপেল বলেছেন, “আমি যদি অধিনায়ক হিসেবে দলের সঙ্গে প্রতারণা করতাম, তাহলে ওরা আমার থেকে তৎক্ষণাৎ নেতৃত্ব কেড়ে নিত। আমি যাতে কোনও দিন অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটার হিসেবে খেলতে না পারি, সেটাও ওরা নিশ্চিত করে ফেলত।”

Advertisement

২০১৮ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজে বল বিকৃত করতে গিয়ে ধরা পড়েন স্মিথ, ডেভিড ওয়ার্নার এবং ক্যামেরন ব্যানক্রফ্ট। প্রথম দু’জনকে এক বছর এবং ব্যানক্রফ্টকে ন’মাস নির্বাসিত করে অস্ট্রেলীয় বোর্ড। স্মিথ এবং ওয়ার্নার এরপর ক্রিকেটের মূলস্রোতে ফিরেছেন। কিন্তু আগের সম্মান ফিরে পাননি।

চ্যাপেল আরও বলেছেন, “অস্ট্রেলিয়া হয়তো আরও ভাল সিদ্ধান্ত নিতে পারত। তবে ওদের থেকে এই মুহূর্তে ভাল সিদ্ধান্ত আশা করাটা অন্যায়। আমার প্রশ্ন, স্টিভ স্মিথকে কেন ডেভিড ওয়ার্নারের থেকে আলাদা করে দেখা হল? স্মিথের অপরাধ আরও গুরুতর। দলে প্রতারণার ঘটনা ঘটেছে এটা জানার পরেও ‘আমি কিছু জানি না’ জাতীয় মন্তব্য করা একেবারেই ঠিক নয়। একজন অধিনায়কের উচিত সবটা জানা, খোঁজা এবং তার প্রতিকার খুঁজে বের করা। প্রতারণা মানে প্রতারণাই। সেটা ছোটই হোক বা বড়।”

আরও পড়ুন

Advertisement