Advertisement
২২ জুলাই ২০২৪
T20 World Cup 2024

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে পাকিস্তান ক্রিকেটে আবার বদল? চলছে বিদেশি কোচের খোঁজ

কিছু দিন আগে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের চেয়ারম্যান হয়েছেন মহসিন নকভি। ২০ ওভারের বিশ্বকাপের আগে তিনি জাতীয় দলের জন্য বিদেশি কোচ নিয়োগ করতে চান। দায়িত্ব দিয়েছেন প্রধান নির্বাচককে।

picture of PCB office

পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের সদর দফতর। —ফাইল চিত্র।

আনন্দবাজার অনলাইন ডেস্ক
কলকাতা শেষ আপডেট: ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ১৬:১১
Share: Save:

গত এশিয়া কাপ এবং এক দিনের বিশ্বকাপে ব্যর্থতার পর সব বিদেশি কোচকে ছাঁটাই করেছিল পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে আবার বিদেশি কোচদেরই দলের দায়িত্ব দিতে চাইছেন পিসিবি কর্তারা। সংস্থার নতুন চেয়ারম্যান মহসিন নকভি দলের সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স দেখে এমনই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

পিসিবির এক কর্তা বলেছেন, ‘‘পিসিবির নতুন চেয়ারম্যান উদ্যোগী হয়েছেন। বিদেশের সফল কোচদের মধ্যে কাদের পাওয়া যেতে পারে খবর নিতে শুরু করেছেন তিনি। দলের অন্য সাপোর্ট স্টাফেরাও বিদেশি হতে পারে।’’ কিছু দিন আগেই নকভিকে তিন বছরের জন্য পিসিবির চেয়ারম্যান করা হয়েছে। দায়িত্ব নেওয়ার পর অভিজ্ঞ প্রশাসক বেশ কিছু পরিবর্তনের কথা ভাবছেন। পাকিস্তানের ওই ক্রিকেট কর্তা আরও বলেছেন, ‘‘প্রধান নির্বাচক ওয়াহাব রিয়াজ়কে দায়িত্ব দিয়েছেন নকভি। বিদেশি কোচদের মধ্যে যাঁদের পাওয়া যেতে পারে এবং যাঁরা পাকিস্তান দলের জন্য উপযুক্ত হতে পারেন, তাঁদের সঙ্গে রিয়াজ়কে কথা বলার দায়িত্ব দিয়েছেন নকভি। দীর্ঘমেয়াদি দায়িত্ব দেওয়ার কথা ভাবা হচ্ছে এ বার।’’ উল্লেখ্য, বিশ্বকাপের পর মিকি আর্থার, গ্রান্ট ব্র্যাডমার্ন এবং অ্যান্ড্রু পুটিককে সরিয়ে দিয়েছিলেন পিসিবির প্রাক্তন চেয়ারম্যান জ়াকা আশরফ।

পিসিবি সূত্রের খবর, নকভির সঙ্গে রিয়াজ়ের সম্পর্ক বেশ ভাল। প্রধান নির্বাচককে ভরসা করেন চেয়ারম্যান। দায়িত্ব নেওয়ার পর মহম্মদ হাফিজ়কে টিম ডিরেক্টরের পদ থেকে সরিয়ে দিয়েছেন নকভি। শুধু কোচ হিসাবেই বিদেশি মুখ চাইছেন না তিনি। পরিবর্তন করতে পারেন নেতৃত্বেও। শাহিন আফ্রিদি এখনও পর্যন্ত টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক হিসাবে ভরসা দিতে পারেননি। পাকিস্তান সুপার লিগে তাঁর উপর নজর রাখা হচ্ছে। তেমন কিছু করতে না পারলে আগামী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে শাহিনকে নেতৃত্বের দায়িত্ব না-ও দেওয়া হতে পারে।

পিসিবির ওই কর্তা বলেছেন, ‘‘অধিনায়ক হিসাবে শাহিন দলের মধ্যে জনপ্রিয় হতে পরেনি। বিশেষ করে বাবর আজ়ম কিছুটা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। বাবর অধিনায়ক থাকার সময় মহম্মদ রিজ়ওয়ান, শাদাব খান এবং হ্যারিস রউফ ওর ঘনিষ্ঠ ছিল। শাহিন সেই বৃত্তে ছিল না। মনে হচ্ছে, মার্চের মধ্যেই দলে কিছু বড় পরিবর্তন হবে।’’ তা হলে কি আবার বাবরকেই পাকিস্তানের নেতৃত্বে দেখা যাবে? পিসিবি কর্তা এই প্রশ্নের কোনও জবাব দেননি। তবে দেশীয় কোচদের উপর যে নকভি ভরসা করছেন না, তা পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছেন।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE