Advertisement
১৮ জুলাই ২০২৪
Rahul Chahar

ভারতীয় ক্রিকেটারের বাবা প্রতারিত, ১২ বছর আগে টাকা দিয়েও পাননি বাড়ি! নির্মাণ সংস্থার বিরুদ্ধে অভিযোগ

২০১২ সালে নির্মাণ সংস্থাকে রাহুলের বাবা টাকা দিয়েছিলেন বাড়ি কেনার জন্য। এক দশকের বেশি সময় পরেও সেই বাড়ির নির্মাণকাজ শেষ করেনি সংশ্লিষ্ট সংস্থাটি।

Picture of Rahul Chahar

রাহুল চাহার। ছবি: এক্স (টুইটার)।

আনন্দবাজার অনলাইন ডেস্ক
কলকাতা শেষ আপডেট: ১৪ মে ২০২৪ ১৬:০১
Share: Save:

প্রোমোটাররাজের শিকার রাহুল চাহারের বাবা। ভারতের হয়ে খেলা পঞ্জাব কিংসের স্পিনারের বাবা দেশরাজ চাহার প্রতারণার অভিযোগ তুলেছেন গ্যালাক্সি নির্মাণ প্রাইভেট লিমিটেড নামে একটি সংস্থার বিরুদ্ধে। আগ্রা পুলিশ অভিযোগের তদন্ত শুরু করেছে।

আগ্রার আবাসন কেলেঙ্কারিতে নাম জড়িয়েছিল গ্যালাক্সি নির্মাণ প্রাইভেট লিমিটেড। সেই সংস্থার বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগদ তুলে সরব হয়েছেন দেশরাজ। রাহুলের বাবার অভিযোগ, মাঘতাই গ্রামে নারসি ভিলেজ কলোনিতে একটি বাড়ি কেনার জন্য বেশ কিছু টাকা দিয়েছিলেন অভিযুক্ত সংস্থাকে। কিন্তু তিনি বাড়ি পাননি। টাকাও ফেরত পাননি। উল্টে দেওয়া টাকা ফেরত চাইলে সংস্থার পক্ষ থেকে হুমকি দেওয়া হয়েছে তাঁকে। তিনি জানিয়েছেন, ২০১২ সালে কলোনির ১৮২ নম্বর বাড়িটি কেনার জন্য সংশ্লিষ্ট সংস্থাকে টাকা দিয়েছিলেন। বাড়িটি গীতম সিংহ নামে এক ব্যক্তির মালিকানায় ছিল। ছেলে রাহুলকে উপহার দেওয়ার জন্য নতুন বাড়ি কেনার পরিকল্পনা করেছিলেন। কেনার সময় বাড়িটির নির্মাণ অসম্পূর্ণ ছিল। সেই কাজ সম্পূর্ণ করতে এক দশকের বেশি সময় লাগিয়ে দিয়েছে গ্যালাক্সি নির্মাণ প্রাইভেট লিমিটেড। এত দিন ধৈর্য ধরে অপেক্ষা করেছিলেন। কাজ শেষ না হওয়ায় একটা সময় উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন এবং দ্রুত বাড়িটি তাঁর নামে রেজিস্ট্রি করার জন্য ওই সংস্থাকে বলেন। তার পরেই শুরু হয় সমস্যা।

দেশরাজ বলেছেন, ‘‘রেজিস্ট্রির কথা বলতেই নানা রকম আমলাতান্ত্রিক সমস্যার কথা বলা হয় সংস্থার পক্ষ থেকে। সংস্থার কর্মীরা অনুরোধ তো শোনেনইনি, উল্টে নানা হুমকি দিতে শুরু করেন। সংস্থার সেলস বিভাগের প্রধান পীযূষ গোয়েলের নেতৃত্বেই ভীতিপ্রদর্শন, হুমকি দেওয়ার মতো ঘটনাগুলো ঘটেছে। ভীষণ হতাশ লাগছে এই পরিস্থিতিতে।’’ তিনি জানিয়েছেন, দিল্লির লাজপত নগর সংস্থার সদর দফতরে গিয়েও কোনও সুরাহা হয়নি। কোনও পদস্থ কর্তা তাঁর সঙ্গে কথা বলতে রাজি হননি। সংস্থার কর্ণধার বাসুদেব গর্গ এবং ফিন্যান্স বিভাগের প্রধান অরুণ গুপ্তার দেখা করার চেষ্টা করেও সফল হননি।

উপায় না দেখে শেষ পর্যন্ত রাহুলের বাবা সংস্থার বিরুদ্ধে আগ্রা পুলিশের ডেপুটি কমিশনার সুরজ রাইয়ের দফতরে প্রতারণার অভিযোগ দায়ের করেছেন। তিনি দেশরাজকে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন। দেশরাজের অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু করেছে জয়দীশপুরা থানার পুলিশ।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE