Advertisement
১৯ মে ২০২৪
Ranji Trophy 2022-23

রঞ্জির কোয়ার্টারে উঠেও শেষ ম্যাচকে গুরুত্ব, একটি জায়গা নিয়ে চিন্তায় কোচ লক্ষ্মী

বাংলার শেষ ম্যাচ ওড়িশার বিরুদ্ধে। সেই ম্যাচ শুরু হবে ২৪ জানুয়ারি। ঘরের মাঠের সেই ম্যাচকেও গুরুত্ব দিচ্ছেন লক্ষ্মী। ওপেনিং সমস্যা নিয়েও চিন্তা রয়েছে তাঁর।

বাংলার কোচ লক্ষ্মীরতন শুক্ল এবং অধিনায়ক মনোজ তিওয়ারি ওড়িশা ম্যাচকেও গুরুত্ব দিচ্ছেন।

বাংলার কোচ লক্ষ্মীরতন শুক্ল এবং অধিনায়ক মনোজ তিওয়ারি ওড়িশা ম্যাচকেও গুরুত্ব দিচ্ছেন। —ফাইল চিত্র

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ২০ জানুয়ারি ২০২৩ ১৮:৫৮
Share: Save:

রঞ্জি ট্রফির কোয়ার্টার ফাইনালে জায়গা পাকা করে ফেলেছে বাংলা। এখনও বাকি একটি ম্যাচ। ঘরের মাঠে ওড়িশার বিরুদ্ধে খেলবেন মনোজ তিওয়ারিরা। সেই ম্যাচকেও গুরুত্ব দিচ্ছেন বাংলার কোচ লক্ষ্মীরতন শুক্ল। তিনি সব ম্যাচকেই একই রকম ভাবে দেখতে চান। ওপেনার নিয়ে যে সমস্যা রয়েছে তা মেনে নিচ্ছেন কোচ, কিন্তু এখনও কোনও সমাধান খুঁজে পাননি লক্ষ্মী।

এ বারের রঞ্জিতে বাংলা দল এখনও পর্যন্ত অপরাজিত। ৬টি ম্যাচের মধ্যে ৪টি ম্যাচেই জিতেছে তারা। কিন্তু ওপেনিং নিয়ে একটা সমস্যা রয়েই গিয়েছে। অভিমন্যু ঈশ্বরন নিয়মিত রান করলেও তাঁর সঙ্গী নিয়েই যত সমস্যা। এ বারের রঞ্জিতে প্রথম দু’টি ম্যাচে খেলেননি অভিমন্যু। উত্তরপ্রদেশ এবং হিমাচলপ্রদেশের বিরুদ্ধে খেলেছিলেন কৌশিক ঘোষ এবং অভিষেক দাস। সেই দুই ম্যাচ মিলিয়ে কৌশিক করেন ৯৬ রান। অভিষেক করেন ৬৩ রান।

অভিমন্যু দলে ফিরতে স্বস্তি পায় বাংলা। নাগাল্যান্ডের বিরুদ্ধে তিনি শতরান করেন। আগের দু’টি ম্যাচ মিলিয়ে মন্দের ভাল কৌশিককে সুযোগ দেওয়া হয়েছিল সেই ম্যাচে। কিন্তু তিনি সেই ম্যাচে করেন ৪ রান। বাধ্য হয়েই পরের ম্যাচে অভিমন্যুর সঙ্গী করা হয় সায়নশেখর মণ্ডলকে। নিয়মিত ওপেন করেন না তিনি। সায়নও বাংলাকে স্বস্তি দিতে পারেননি। দুই ইনিংস মিলিয়ে তিনি করেন মাত্র ১৮ রান। পরের ম্যাচে আবার সুযোগ দেওয়া হয় অভিষেককে। কিন্তু তিনি আবার ব্যর্থ হন। বরোদার বিরুদ্ধে দুই ইনিংস মিলিয়ে অভিষেক করেন মাত্র ১২ রান।

হরিয়ানার বিরুদ্ধে ওপেন করেন করণ লাল। দলের স্পিনারকে দিয়ে চেষ্টা করা হয়। কিন্তু তিনি করেন মাত্র ২০ রান। অভিমন্যু এক দিক থেকে নিয়মিত রান করলেও অন্য ওপেনার কে হবেন তা নিয়ে সমস্যা চলছেই। লক্ষ্মী বলেন, “হাতে যত ওপেনার ছিল সকলকেই সুযোগ দেওয়া হয়েছে। কেউই সফল হতে পারেনি। আমি চেষ্টা করেছি। শেষ ম্যাচে ওপেনার পরিবর্তন করব না। দেখা যাক কী হয়।”

বাংলার শেষ ম্যাচ ওড়িশার বিরুদ্ধে। সেই ম্যাচ শুরু হবে ২৪ জানুয়ারি। ঘরের মাঠের সেই ম্যাচকেও গুরুত্ব দিচ্ছেন লক্ষ্মী। তিনি বলেন, “ওড়িশা ম্যাচ আমার কাছে রঞ্জির প্রথম ম্যাচের মতোই গুরুত্বপূর্ণ। দল কোনও উৎসবে মেতে নেই। কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছেছি ঠিক আছে। এর জন্য কোনও উৎসব নয়। আমাদের লক্ষ্য রঞ্জি জেতা। সেটা না হওয়া পর্যন্ত কোনও উৎসব নয়।”

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE