Advertisement
০৩ অক্টোবর ২০২৩
Hardik Pandya

Hardik-Rahul Controversy: হার্দিক-রাহুলের সেই অশালীন মন্তব্যের জেরে তৈরি বিতর্ক কী ভাবে সামলায় বোর্ড!

শাস্ত্রীর সঙ্গে আলোচনার পরে হার্দিক ও রাহুলের বিরুদ্ধে কড়া শাস্তির প্রস্তাব বোর্ড কর্তাদের কাছে পাঠান বিনোদ। সেই প্রস্তাব মেনে নেন বোর্ড কর্তারা। তার পরেই দুই ক্রিকেটারকে নির্বাসনে পাঠানো হয়। অস্ট্রেলিয়া থেকে দেশে ফেরত পাঠিয়ে দেওয়া হয় তাঁদের। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়।

টেলিভিশনের এক অনুষ্ঠানে গিয়ে অশালীন মন্তব্য করে বিতর্কে জড়ান ভারতের দুই ক্রিকেটার হার্দিক পাণ্ড্য ও লোকেশ রাহুল।

টেলিভিশনের এক অনুষ্ঠানে গিয়ে অশালীন মন্তব্য করে বিতর্কে জড়ান ভারতের দুই ক্রিকেটার হার্দিক পাণ্ড্য ও লোকেশ রাহুল। ফাইল চিত্র

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা শেষ আপডেট: ০৫ এপ্রিল ২০২২ ১৯:২৯
Share: Save:

টেলিভিশনের এক অনুষ্ঠানে গিয়ে অশালীন মন্তব্য করে বিতর্কে জড়ান ভারতের দুই ক্রিকেটার হার্দিক পাণ্ড্য ও লোকেশ রাহুল। শুরু হয় সমালোচনা। তার জেরে দুই ক্রিকেটারকে শাস্তি দেয় বিসিসিআই। দু’জনকে নির্বাসিত করা হয়। প্রকাশ্যে ক্ষমা চান তাঁরা। সেই ঘটনা বিসিসিআই কী ভাবে সামলেছিল তা জানা গিয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের কমিটি অব অ্যাডমিনিস্ট্রেটর্সের প্রধান বিনোদ রাইয়ের এক বই থেকে।

বইয়ে বিনোদ জানিয়েছেন, এই ঘটনার পরে কমিটির অন্যতম সদস্য তথা ভারতের মহিলা ক্রিকেট দলের প্রাক্তন অধিনায়ক ডায়না এডুলজি এক বা দু’ম্যাচের জন্য হার্দিক ও রাহুলকে নির্বাসিত করতে চান। তাঁদের শো-কজ নোটিস পাঠানো হয়। সেই সময় ভারতীয় দল অস্ট্রেলিয়া সফরে ছিল। দলের কোচ রবি শাস্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেন বিনোদ। তাঁরা আলোচনা করে এক মত হন যে দুই ক্রিকেটারকে কয়েকটি ম্যাচ নির্বাসিত করা উচিত ও তাঁদের জরিমানা করা উচিত।

শাস্ত্রীর সঙ্গে আলোচনার পরে হার্দিক ও রাহুলের বিরুদ্ধে কড়া শাস্তির প্রস্তাব বোর্ড কর্তাদের কাছে পাঠান বিনোদ। সেই প্রস্তাব মেনে নেন বোর্ড কর্তারা। তার পরেই দুই ক্রিকেটারকে নির্বাসনে পাঠানো হয়। অস্ট্রেলিয়া থেকে দেশে ফেরত পাঠিয়ে দেওয়া হয় তাঁদের। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়। যত দিন না সেই তদন্তের রিপোর্ট নিয়ে পরবর্তী পদক্ষেপ করা হচ্ছে তত দিন দুই ক্রিকেটারের শাস্তি বহাল রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়।

তবে এত কিছুর পরেও বিনোদের মনে হয়েছিল, ইচ্ছাকৃত ভাবে অশালীন মন্তব্য করেননি হার্দিক ও রাহুল। সংবাদমাধ্যম বা টেলিভিশনের সামনে খুব বেশি সাবলীল না হওয়ায় তাঁরা বিষয়টি বুঝতে পারেননি। ছেলেদের সাজঘরে যে রকম কথা হয় সে রকম কথা বলেছিলেন তাঁরা। কিন্তু সেটা টেলিভিশনে দেশের মানুষ দেখলে তার প্রতিক্রিয়া কী হতে পারে সেই বিষয়ে কোনও ধারণা তাঁদের ছিল না। এই ঘটনার পরে নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করেছিলেন দুই ক্রিকেটার।

বিনোদের মনে হয়েছিল খুব বেশি দিন দুই ক্রিকেটারের শাস্তি বহাল থাকলে তাতে তাঁদের কেরিয়ারের ক্ষতি হতে পারে। সে ক্ষেত্রে ক্ষতি হবে দেশের ক্রিকেটারের। তাই একটা নির্দিষ্ট শাস্তির পরে নির্বাসন তুলে নেওয়া হয় হার্দিক ও রাহুলের উপর থেকে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE