Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৮ জুন ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

Dilip Kumar Death: রোভার্সে গৌতমের কর্নার মুগ্ধ করেছিল মহানায়ককে

মুম্বইয়ের কুপারেজ স্টেডিয়ামে রোভার্স কাপের ম্যাচ দেখতে নিয়মিত আসতেন ফুটবলপ্রেমী দিলীপ কুমার। সেই স্মৃতি এখনও উজ্জ্বল হয়ে রয়েছে গৌতমের স্মৃতি

শুভজিৎ মজুমদার
০৮ জুলাই ২০২১ ০৭:০৩
Save
Something isn't right! Please refresh.
স্মৃতি: রোভার্স কাপ ফাইনালের আগে সুধীর কর্মকারকে সঙ্গে নিয়ে গৌতম সরকারকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন দিলীপ কুমার। পাশে সমরেশ চৌধুরী।

স্মৃতি: রোভার্স কাপ ফাইনালের আগে সুধীর কর্মকারকে সঙ্গে নিয়ে গৌতম সরকারকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন দিলীপ কুমার। পাশে সমরেশ চৌধুরী।
নিজস্ব চিত্র

Popup Close

ভারতীয় চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি অভিনেতা তিনি। কিন্তু ফুটবলের সঙ্গে যেন তাঁর ছিল আত্মিক যোগ। বুধবার সকাল সাড়ে সাতটায় মুম্বইয়ে ৯৮ বছর বয়সি দিলীপ কুমারের প্রয়াণের খবর শুনে শোকস্তব্ধ ভারতীয় ফুটবলের দুই তারকা গৌতম সরকার ও সমরেশ চৌধুরী।

মুম্বইয়ের কুপারেজ স্টেডিয়ামে রোভার্স কাপের ম্যাচ দেখতে নিয়মিত আসতেন ফুটবলপ্রেমী দিলীপ কুমার। সেই স্মৃতি এখনও উজ্জ্বল হয়ে রয়েছে গৌতমের স্মৃতিতে। ভারতীয় ফুটবলের সর্বকালের অন্যতম সেরা মিডফিল্ডার বলছিলেন, “আমি তখন মোহনবাগানে খেলি। রোভার্স কাপে ইস্টবেঙ্গলের বিরুদ্ধে ম্যাচটা ছিল। স্ত্রী সায়রা বানুকে নিয়ে খেলা দেখতে এসেছিলেন দিলীপ কুমার। আমার কর্নার কিক দেখে আনন্দে চেয়ার ছেড়ে লাফিয়ে উঠেছিলেন।” যোগ করলেন, “আমি গোল করতে পারিনি ঠিকই। কিন্তু বাঁক খাওয়ানো কর্নার কিক দেখেই আপ্লুত হয়ে জড়িয়ে ধরেছিলেন আমাকে। আমার জীবনের সেরা প্রাপ্তি। ফুটবলের প্রতি ওঁর ভালাবাসা ছিল খাঁটি। শত ব্যস্ততার মধ্যেও রোভার্স কাপের ম্যাচ দেখতে ঠিক হাজির হয়ে যেতেন কুপারেজ স্টেডিয়ামে। দিলীপ কুমারের শূন্যস্থান কখনও পূরণ হবে না।”

দিলীপ কুমারের অভিনয় দেখেই যে তিনি অনুপ্রাণিত হতেন, খোলাখুলি জানালেন গৌতম। বলছিলেন, “সিনেমায় কখনও মনে হত না যে, অভিনয় করছেন। এটাই আমাকে প্রেরণা জোগাত।”

Advertisement

ভারতীয় ফুটবলের আর এক তারকা সমরেশও ছিলেন দিলীপ কুমারের অভিনয়ের ভক্ত। তিনি বলছিলেন, “ওঁর অভিনীত প্রায় সব ছবিই আমি দেখেছি। ম্যাচের আগে নুন শো-তেই আমি বেশির ভাগ সিনেমা দেখতাম। এবং সেটা দিলীপ কুমারেরই।” আরও বললেন, “১৯৭২ সালে আমি ইস্টবেঙ্গলে ছিলাম। রোভার্স কাপ ফাইনালে আমাদের প্রতিপক্ষ ছিল মোহনবাগান। ম্যাচ শুরু হওয়ার আগে দিলীপ কুমার যখন মাঠে ফুটবলারদের সঙ্গে পরিচয় করতে এসেছিলেন, বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েছিলাম।” সমরেশ শোনালেন আরও একটি চমকপ্রদ কাহিনি, “দিলীপ কুমারকে ঈশ্বর মনে করত মহম্মদ হাবিব। ওর জন্যই আমি এই কিংবদন্তি অভিনেতার ছবির ভক্ত হয়েছিলাম। কুপারেজে এক বার দিলীপ কুমারকে আবেগে জড়িয়ে ধরেছিল বড়ে মিয়াঁ। আমি প্রণাম করেছিলাম। চমকে উঠেছিলেন দিলীপ কুমার।”

কিংবদন্তি অভিনেতার প্রয়াণে শোকাহত সচিন তেন্ডুলকর, ইমরান খান, বিরাট কোহালি, বীরেন্দ্র সহবাগ, শাহিদ আফ্রিদি থেকে সাইনা নেহওয়াল, বিজেন্দ্র সিংহও। গণমাধ্যমে সচিন লিখেছেন, “শান্তিতে ঘুমোন দিলীপ কুমারজি। আপনার মতো আর কেউ হবে না। ভারতীয় চলচ্চিত্রে আপনার অবদানের কোনও তুলনা নেই। আপনার অভাব অনুভব করব। সায়রা বানু ও পরিবারকে আমার গভীর সমবেদনা।” ১৯৯২ বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক ও এই মুহূর্তে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান লিখেছেন, “দিলীপ কুমারের চলে যাওয়ার খবর শুনে খুবই মর্মামত। এসকেএমটিএইচ প্রকল্পের অর্থ সংগ্রহের জন্য উনি যে ভাবে সময় বের করে উদারতার পরিচয় দিয়েছিলেন, তা কখনও ভুলব না।” শোকজ্ঞাপন করে বিরাট লিখেছেন, “সব প্রজন্মের প্রিয় কিংবদন্তি প্রয়াত হয়েছেন। শান্তিতে ঘুমোন দিলীপজি।” দিলীপ কুমারের একটি উদ্ধৃতি পোস্ট করে সহবাগ লিখেছেন, “দিলীপ কুমারের পরিবারের প্রতি হৃদয় থেকে আমার সমবেদনা জানাচ্ছি।” ব্যাডমিন্টন তারকা সাইনার কথায়, “হিন্দি চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি। আপনার আত্মার শান্তি কামনা করি দিলীপ কুমার।”

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement