Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৩ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

জফ্রার চোট নিয়ে উদ্বেগ, ময়নাতদন্ত চলছে ইংল্যান্ডের

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা ০৯ মার্চ ২০২১ ০৫:৪৪
প্রস্তুতি: লাল বলের পরে এ বার সাদা বলের লড়াই। আমদাবাদে অনুশীলনে জফ্রা আর্চার । গেটি ইমেজেস

প্রস্তুতি: লাল বলের পরে এ বার সাদা বলের লড়াই। আমদাবাদে অনুশীলনে জফ্রা আর্চার । গেটি ইমেজেস

মাইকেল ভন আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন, এই মুহূর্তে টেস্টের থেকে সীমিত ওভারের ক্রিকেটকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে ইংল্যান্ড। তিনি মনে করেন, বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক অইন মর্গ্যান এখন ইংল্যান্ড ক্রিকেটের সব চেয়ে ক্ষমতাশালী ব্যক্তিত্ব। যাঁর ফলে মর্গ্যানের হাতে সব সময় সেরা দলটা তুলে দেওয়া হচ্ছে। জো রুটের হাতে নয়।


ইংল্যান্ড যে এখন সাদা বলের ক্রিকেটকে বাড়তি গুরুত্ব দেওয়া শুরু করেছে, তা প্রমাণিত হচ্ছে কোচ ক্রিস সিলভারউডের কথায়। সিলভারউড জানিয়েছেন, ইংল্যান্ডের ক্রিকেটারেরা পুরো আইপিএল খেলেই দেশে ফিরবেন। যে কারণে বেন স্টোকস, জফ্রা আর্চার, জস বাটলার, জনি বেয়ারস্টোর মতো প্রধান কয়েক জন ক্রিকেটার নিউজ়িল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম টেস্টে নাও খেলতে পারেন।


কয়েক বছর আগেও ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড এই পরিস্থিতিতে ক্রিকেটারদের টেস্ট খেলারই নির্দেশ দিত, আইপিএলে নয়। প্রসঙ্গত, এর আগে মর্গ্যান জানিয়েছিলেন, বিশ্বকাপ জয়ের নেপথ্যে আইপিএল খেলার অভিজ্ঞতা অনেক কাজে দিয়েছে। সেটা ছিল ৫০ ওভারের বিশ্বকাপ। এ বছরের শেষে ভারতের মাটিতেই রয়েছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। কেউ, কেউ মনে করছেন, এই সিদ্ধান্তের পিছনে মর্গ্যানের প্রভাব থাকতেও পারে। আইপিএলে কলকাতা নাইট রাইডার্সের অধিনায়ক মর্গ্যান নিশ্চয়ই চাইবেন, যত বেশি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলা সম্ভব বিশ্বকাপের আগে খেলে নিতে। ভন তো তাঁর কলামে লিখেইছেন, ‘‘আমি নিশ্চিত, মর্গ্যান গিয়ে ইসিবি এবং নির্বাচকদের পরিষ্কার বলে দিয়েছে, সারা বছর টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে সেরা দলটাই চাই। বিশ্বকাপের প্রস্তুতির কথা
মাথায় রেখে।’’

Advertisement


আইপিএল শুরু হচ্ছে ৯ এপ্রিল, ফাইনাল ৩০ মে। নিউজ়িল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম টেস্ট শুরু ২ জুন। সিলভারউড বলেছেন, ‘‘এই মুহূর্তে পরিস্থিতি যা, তাতে পুরো আইপিএল খেলেই দেশে ফিরবে ইংল্যান্ডের ক্রিকেটাররা।’’ তবে তিনি এও বলেছেন, ‘‘টেস্ট দল নির্বাচন নিয়ে আমরা এখনও কিছু ভাবিনি। আমার কাছে দেশের হয়ে খেলাটা বিশাল সম্মানের।’’


তবে পুরো দল পেলেও ভারতের বিরুদ্ধে টি-টোয়েন্টি সিরিজের আগে চিন্তায় থাকবেন মর্গ্যান। কারণ জফ্রা আর্চারের চোট। দ্বিতীয় টেস্ট থেকেই কনুইয়ের এই চোট ভুগিয়ে আসছে আর্চারকে। শেষ টেস্টেও খেলতে পারেননি এই ফাস্ট বোলার। ভারত-ইংল্যান্ড প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচ ১২ মার্চ, আমদাবাদে। সেই ম্যাচের আগে আর্চারের চোট নিয়ে উদ্বেগে আছে ইংল্যান্ড। যদিও দলের সঙ্গে অনুশীলন করছেন তিনি। এ দিনও ব্যাট করতে দেখা গিয়েছে নেটে। সিলভারউড বলেছেন, ‘‘জফ্রার কনুয়েই চোট আছে। মেডিক্যাল টিম ব্যাপারটার উপরে নজর রাখছে। যদিও আমাদের সাদা বলের দলের সঙ্গে ও অনুশীলন করছে।’’ আর্চারের ‘ওয়ার্কলোড ম্যানেজমেন্ট’-এর (কতটা ধকল তিনি সম্প্রতি নিয়েছেন) উপরে কি নজর রাখা হবে? ইংল্যান্ড কোচের মন্তব্য, ‘‘মেডিক্যাল টিমের সঙ্গে এ নিয়ে কথা হবে। আমি চাই, সব ধরনের ক্রিকেটের জন্যই যেন আর্চারকে দলে পাওয়া যায়।’’


টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরুর আগে ইংল্যান্ড কোচের মুখে শোনা যাচ্ছে টেস্ট সিরিজের হারের বিশ্লেষণও। যেখানে ভারতের দুই স্পিনার— আর অশ্বিন এবং অক্ষর পটেলের ঘূর্ণির সামনে সিরিজ ৩-১ হারে ইংল্যান্ড। অশ্বিন পান ৩২ উইকেট, অক্ষর ২৭। যা নিয়ে সিলভারউড বলেছেন, ‘‘চার টেস্টে ওরা দুই স্পিনার মিলে ৫৯ উইকেট পেয়েছে। তাতেই বোঝা যাচ্ছে, সিরিজটা কোন পথে গিয়েছে। আমাদের জীবন ওরা কঠিন করে দিয়েছিল। এমনকি প্রথম ইনিংসেও ওদের খেলা যাচ্ছিল না।’’

আরও পড়ুন

Advertisement