Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২১ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

Kolkata Derby: আগের ম্যাচে চার গোল খাওয়া এসসি ইস্টবেঙ্গলকে সমীহ করছে সবুজ-মেরুন

শনিবার কলকাতা ডার্বি। ভারতীয় ফুটবলের বহু প্রতীক্ষিত সেই ম্যাচ জিতে শেষ চারে ঢোকার লড়াইয়ে থাকতে চান সবুজ-মেরুন ফুটবলাররা।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ২৭ জানুয়ারি ২০২২ ১৬:৫৬
Save
Something isn't right! Please refresh.
অনুশীলনে তিরি, ডেভিড, লিস্টন

অনুশীলনে তিরি, ডেভিড, লিস্টন
ছবি টুইটার

Popup Close

নতুন বছরটা এখনও পর্যন্ত একেবারেই ভাল যায়নি এটিকে মোহনবাগানের কাছে। ৫ জানুয়ারি হায়দরাবাদের বিরুদ্ধে ড্র করার পর এটিকে মোহনবাগান শিবিরে হানা দেয় করোনা। পরপর তিনটি ম্যাচ বাতিল হয়ে যায়। এর পর ২৩ জানুয়ারি ওড়িশা এফসি-র বিরুদ্ধে খেলতে নেমে আটকে যায় সবুজ-মেরুন। এ বার তাদের সামনে আরও কঠিন লক্ষ্য। শনিবার কলকাতা ডার্বি। ভারতীয় ফুটবলের বহু প্রতীক্ষিত সেই ম্যাচ জিতে শেষ চারে ঢোকার লড়াইয়ে থাকতে চান সবুজ-মেরুন ফুটবলাররা।

গত বারের মতো এ বারও এসসি ইস্টবেঙ্গলের বিরুদ্ধে খাতায়-কলমে এগিয়ে সবুজ-মেরুন। তবে এসসি ইস্টবেঙ্গলের সঙ্গে লিগ তালিকায় অবস্থানের বিচারে খুব একটা ফারাক নেই। আট নম্বরে রয়েছে এটিকে মোহনবাগান। এসসি ইস্টবেঙ্গল সবার শেষে। এত নীচে থেকে কখনও মুখোমুখি হয়নি দুই দল। যদিও করোনার কারণে বাকি দলগুলির থেকে অন্তত তিনটি ম্যাচ কম খেলেছে তারা।

দলের মিডফিল্ডার হুগো বুমোস মেনে নিচ্ছেন, এ বার পরিস্থিতি অন্য রকম। বলেছেন, “অনেক দিন অনুশীলনের মধ্যে ছিলাম না আমরা। তাই প্রতি দিন কঠোর অনুশীলন করে আগের জায়গায় ফিরতে হচ্ছে। তা ছাড়া ডার্বির গুরুত্ব সব সময় আলাদা। বাড়তি উত্তেজনা নিয়ে ম্যাচটা খেলতে হবে। ম্যাচে জেতার ব্যাপারে আমরা আশাবাদী।”

Advertisement

আগের ম্যাচে হায়দরাবাদের কাছে ৪ গোল খেয়েছে এসসি ইস্টবেঙ্গল। তবে সে কারণে প্রতিপক্ষকে ছোট করে দেখতে রাজি নন বুমোস। বলেছেন, “ওরা আমাদের বিরুদ্ধে প্রতিশোধ নিতেই নামবে। আমাদের শেষ চারে যেতে হলে এই ম্যাচ জেতা গুরুত্বপূর্ণ। পাশাপাশি বাতিল হওয়া ম্যাচগুলি যখন হবে সেখানেও পুরো পয়েন্ট পেতে হবে। শেষ ম্যাচে আমরা ওড়িশার বিরুদ্ধে জিততে পারিনি। প্রচুর গোলের সুযোগ নষ্ট করেছি।”

মোহনবাগানের অধিনায়ক প্রীতম কোটাল চাইছেন কলকাতা ডার্বিতে জেতার ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে। তবে প্রতিপক্ষকে তিনিও ছোট করে দেখছেন না। এটিকে মোহনবাগানের ফুটবলারদের মধ্যে সব থেকে বেশি ডার্বি খেলা প্রীতম বলেন, “আইএসএল-এ ইস্টবেঙ্গল আমাদের হারাতে পারেনি। কিন্তু হায়দরাবাদের কাছে ওরা চার গোল খেয়েছে বলে আমরা যে এগিয়ে আছি তা কিন্তু নয়। ডার্বিতে কোনও ভবিষ্যদ্বাণী হয় না। কেউ এগিয়ে থাকে না। ওড়িশা ম্যাচে ড্র করলেও ডার্বিতে আমরা জয়ের ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী।”

ডার্বির অভিজ্ঞতা নিয়ে প্রীতম বলেছেন, “ডার্বি সব সময় স্পেশ্যাল। বিশেষ করে আমাদের মতো যারা বাংলার ছেলে তাদের কাছে। পাশাপাশি সদস্য-সমর্থকদের কাছে এই আবেগ আলাদা। লিগে জিতলেও ডার্বি না জিততে পারলে রাস্তায় গেলে কটাক্ষ শুনতে হয়। তাই এই ম্যাচটা জিততে হবে। আমাদের নতুন কোচের দর্শন আলাদা। মানিয়ে নিতে একটু সময় লাগবে। তবে নিজেদের সেরাটা দেব।”



Something isn't right! Please refresh.

আরও পড়ুন

Advertisement