×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৪ জানুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

জয়ের ম্যাচে চিন্তায় রাখছে ভারতের ফিল্ডিং

সংবাদ সংস্থা
ক্যানবেরা০৫ ডিসেম্বর ২০২০ ০৯:৩৪
প্রথম টি২০-তে জয় ভারতের। ছবি: সোশ্যাল মিডিয়া

প্রথম টি২০-তে জয় ভারতের। ছবি: সোশ্যাল মিডিয়া

ক্যানবেরার মাঠে বলা হয় টস যাঁর, ম্যাচ তাঁর। শুক্রবার যদিও উলটপুরাণ। টস জিতলেন অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ। তবে ভারতকেই প্রথমে ব্যাট করতে পাঠালেন তিনি। বিপদও হল। প্রথমে ব্যাট করে ১৬১ রান তোলে ভারত। তাড়া করতে নেমে ১৫০ রানে থেমে যায় অস্ট্রেলিয়ার ইনিংস। প্রথম টি২০-তে ১১ রানে জয় ভারতের।

ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই শিখর ধওয়ানকে (৬ বলে ১ রান) হারায় ভারত। অন্য ওপেনার লোকেশ রাহুল (৪০ বলে ৫১ রান) এবং অধিনায়ক বিরাট কোহালি (৯ বলে ৯ রান) মিলে দ্রুত রান তোলার চেষ্টা করলেও, অধিনায়ক খুব বেশিক্ষণ ক্রিজে থাকতে পারেননি। জীবনের দ্বিতীয় ম্যাচ খেলতে নামা মিচেল সোয়েপসনের বলে তাঁর হাতেই ক্যাচ দিয়ে ফিরলেন তিনি। ৪ নম্বরে নামা সঞ্জু স্যামসন (১৫ বলে ২৩ রান) ভাল শুরু করলেও উইকেট ছুঁড়ে দিয়ে এলেন তিনি। ব্যর্থ মনীশ পান্ডেও (৮ বলে ২ রান)। চেষ্টা করেছিলেন হার্দিক পাণ্ড্য (১৫ বলে ১৬ রান), তবে খুব বেশিক্ষণ স্থায়ী হতে পারেননি। 

যখন মনে হচ্ছিল ভারতের রান ১৫০ পেরোবে না, তখনই ঝড় তোলেন রবীন্দ্র জাডেজা। কেন তিনি ভারতীয় দলের সেরা অলরাউন্ডার, বুঝিয়ে দিলেন শুক্রবার। পঞ্চম বোলার হিসেবে দলে নিলেও ২৩ বলে ৪৪ রান করে বুঝিয়ে দিলেন তিনি ব্যাট হাতেও প্রতিপক্ষের চিন্তার কারণ। তবে তাঁর চোট চিন্তায় রাখবে ভারতকে। মাথায় বল লাগায় তাঁর বদলে বল করতে নামেন যুজবেন্দ্র চহাল। উষ্মা প্রকাশ করতে দেখা যায় অস্ট্রেলিয়ার কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গারকে।

Advertisement

বল হাতে প্রথম উইকেট নেন চহালই। তাঁর বলেই ফেরেন ফিঞ্চ (২৬ বলে ৩৫ রান)। এরপর স্টিভ স্মিথের (৯ বলে ১২ রান) উইকেটও নেন চহাল। ৪ ওভারে ২৫ রান দিয়ে ৩ উইকেট নিলেন তিনি। অস্ট্রেলিয়াকে ভাঙতে চহালের সঙ্গী হন টি২০-তে অভিষেক হওয়া টি নটরাজন। তিনি নিলেন ৪ ওভারে ৩০ রান দিয়ে ৩ উইকেট। তাঁদের হাতেই শেষ অজিরা।

আরও পড়ুন: ‘কনকাশন সাব’ হিসেবে নেমে ম্যাচের হিরো চহাল

জয়ের ম্যাচে ভারতকে চিন্তায় রাখবে ফিল্ডিং। ক্যাচ ফেললেন স্বয়ং বিরাট। মনীশ পান্ডেও ফেললেন একটি। ওভার থ্রোতে পায়ের ফাঁক দিয়ে বল গলালেন সঞ্জু। করোনা অতিমারির পর ক্রিকেট ফিরলেও ভারতের ফিল্ডিং কিন্তু এখনও বেশ চিন্তার কারণ। দ্রুত উন্নতি না করলে ভুগতে হতে পারে লম্বা দৌড়ে।
Advertisement