Advertisement
০৭ ডিসেম্বর ২০২২

প্রথম টেস্টে সুবিধা পাবে ভারত: স্মিথ

৫ জানুয়ারি থেকে প্রথম টেস্ট কেপটাউনে। সে দেশের প্রাক্তন অধিনায়ক গ্রেম স্মিথ কিন্তু বলছেন, টেস্টের যা সূচি, তাতে ভারতই সুবিধা পেতে পারে। কেপটাউনে প্রথম টেস্ট বিরাটদের কাছে শাপে বর হয়ে উঠতে পারে বলে ধারণা স্মিথের।

চ্যালেঞ্জ: টেস্ট সিরিজের প্রস্তুতি শুরু ডেল স্টেনের। ফাইল চিত্র

চ্যালেঞ্জ: টেস্ট সিরিজের প্রস্তুতি শুরু ডেল স্টেনের। ফাইল চিত্র

নিজস্ব প্রতিবেদন
শেষ আপডেট: ২২ ডিসেম্বর ২০১৭ ০৪:৫২
Share: Save:

দেশের ক্রিকেটপ্রেমীদের দুশ্চিন্তা, কোনও প্রস্তুতি ম্যাচ ছাড়াই দক্ষিণ আফ্রিকায় টেস্ট সিরিজে নামতে হবে ভারতকে। ৫ জানুয়ারি থেকে প্রথম টেস্ট কেপটাউনে। সে দেশের প্রাক্তন অধিনায়ক গ্রেম স্মিথ কিন্তু বলছেন, টেস্টের যা সূচি, তাতে ভারতই সুবিধা পেতে পারে। কেপটাউনে প্রথম টেস্ট বিরাটদের কাছে শাপে বর হয়ে উঠতে পারে বলে ধারণা স্মিথের।

Advertisement

তবে প্রাক্তন অধিনায়কের ধারণা, প্রথম টেস্টে ভারত সুবিধা পেলেও পরেরগুলোতে দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারানো ভারতের পক্ষে বেশ কঠিনই হবে। দক্ষিণ আফ্রিকার শক্তিশালী বোলিং বিভাগ ঝামেলায় ফেলতে পারে ভারতকে। এ ছাড়া এবি ডিভিলিয়ার্স দলে ফিরে আসায় তাদের ব্যাটিংও যথেষ্ট শক্তিশালী হয়ে উঠবে বলে মনে করেন তিনি।

বিশ্বের এক নম্বর ও দু’নম্বর টেস্ট খেলিয়ে দলের যুদ্ধ শুরু হবে ৫ জানুয়ারি থেকে, কেপটাউনে। তার আগে জিম্বাবোয়ের বিরুদ্ধে টেস্টে নিজেকে তৈরি করে তুলছেন এবিডি-দের আগ্রাসী পেসার ডেল স্টেন। মঙ্গলবার থেকে পোর্ট এলিজাবেথে সেই দিন-রাতের টেস্ট। এই ম্যাচেই প্রায় এক বছর পরে চোট সারিয়ে ফিরছেন তিনি। এখানেই আন্দাজ পাওয়া যাবে টেস্ট ক্রিকেটের জন্য ঠিক কতটা তৈরি তিনি।

যে ফর্মে রয়েছে ভারতীয় দল, তাতে তাদের হারানো মোটেই সোজা হবে না বলে মনে করছেন ভারতীয় ক্রিকেট বিশেষজ্ঞরা। গ্রেম স্মিথের মত অবশ্য অন্য। সংবাদসংস্থাকে বৃহস্পতিবার তিনি বলেন, ‘‘দক্ষিণ আফ্রিকা যথেষ্ট শক্তিশালী দল। এবি ডিভিলিয়ার্স দলে ফেরায় ওদের ব্যাটিংয়ের ধার বাড়বে। বোলিং তো এমনিতেই শক্তিশালী। অভিজ্ঞ, তারুণ্য দুইই এই দলের বোলিং বিভাগে রয়েছে।’’

Advertisement

কেপটাউনে প্রথম টেস্টের কম্বিনেশনও মোটামুটি বলে দিচ্ছেন স্মিথ। তিনি বলেন, ‘‘আমার মনে হয় ওরা তিন স্পিনারে নামবে। একজন স্পিনার থাকবে (কেশব মহারাজ) ও ছ’জন ব্যাটসম্যান। কুইন্টন ডি’কক সাত নম্বরে নামবে।’’ কিন্তু নিউল্যান্ডস স্টেডিয়ামের উইকেট থেকে সুবিধা আদায় করে নিতে পারে বলে মনে করেন ২৭টি টেস্ট সেঞ্চুরির মালিক। তাঁর যুক্তি, ‘‘কেপটাউনে সম্প্রতি খরা পরিস্থিতি ছিল। তাই ওখানকার উইকেটে তেমন গতি ও বাউন্স থাকবে না হয়তো। আর খেলা গড়ালে বল ঘোরারও সম্ভাবনা থাকবে। এ রকম উইকেটে তো ভারত সুবিধা পাবে। কেপটাউনেই ভারতের জেতার সুযোগ বেশি।’’

তবে পরের দুই টেস্টে বিরাটদের কড়া চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হবে বলে মনে করেন ৩৬ বছর বয়সি স্মিথ। বলেন, ‘‘প্রিটোরিয়া ও জোহানেসবার্গে কিন্তু ভারতকে কড়া চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হবে।’’ চার বছর আগে ঘরের মাঠে ভারতকে চার টেস্টের সিরিজে ১-০-য় হারানো দলের অধিনায়ক স্মিথ বলছেন, ‘‘ভারতের সবচেয়ে বড় সমস্যা হবে বড় রান তোলা। ওরা যদি বড় রান তুলতে পারে, তা হলেই দক্ষিণ আফ্রিকাকে চাপে ফেলতে পারবে।’’

আসন্ন এই সিরিজ যে উত্তেজনার বারুদে ঠাসা হতে চলেছে, তেমনই মনে করেন ১১ বছর ধরে দক্ষিণ আফ্রিকাকে টেস্টে নেতৃত্ব দেওয়া এই অধিনায়ক। বলেন, ‘‘ক্রিকেটবিশ্বের এখন একটা উত্তেজনাপূর্ণ টেস্ট সিরিজ দরকার। আমার মনে হয়, এটাই সেই সিরিজ হতে চলেছে।’’

বিরাট কোহালি ও চেতেশ্বর পূজারাকে ভারতের সেরা দুই ব্যাটসম্যান বলছেন স্মিথ। ভারতীয় পেস বিভাগ নিয়ে তাঁর বক্তব্য, ‘‘এই সিরিজে সফল হতে গেলে ভারতের তিন পেসারকেই ভাল বোলিং করতে হবে। ভারতে ওরা ছোট স্পেলে বল করে। দক্ষিণ আফ্রিকায় কিন্তু ওদের লম্বা স্পেলে বল করতে হবে, যথেষ্ট দায়িত্ব নিয়ে। ওদের ম্যাচ জেতানোর দায়িত্ব নিতে হবে।’’ এত কিছু বললেও সিরিজের ফল কী হবে, তা কিন্তু আগাম বলতে চাননি স্মিথ। শেষে বলেন, ‘‘বিরাটরা উপমহাদেশে পরপর সিরিজ জিতেছে ঠিকই। যদি ২০১৮-য় দক্ষিণ আফ্রিকা, ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়ায় সিরিজ জেতে, তা হলে ওরা সেরার সিংহাসনে বসবে।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.