Advertisement
১৪ জুলাই ২০২৪
Yuzvendra Chahal

Yuzvendra Chahal: চহাল-কাণ্ডে নতুন মোড়, ঘটনায় উপস্থিত ক্রিকেটারকে জেরা করতে চায় ইংল্যান্ডের ক্লাব

চহাল জানিয়েছিলেন, ২০১১ চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ফাইনালের রাতে তাঁকে মুখে সেলোটেপ লাগিয়ে একটি ঘরে বেঁধে রেখে গিয়েছিলেন সাইমন্ডস এবং ফ্র্যাঙ্কলিন।

চহাল-কাণ্ডে নড়েচড়ে বসল কাউন্টি ক্লাব

চহাল-কাণ্ডে নড়েচড়ে বসল কাউন্টি ক্লাব ছবি আইপিএল

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা শেষ আপডেট: ১২ এপ্রিল ২০২২ ১৪:০২
Share: Save:

সম্প্রতি আরসিবি-র একটি পডকাস্টে বিস্ফোরক মন্তব্য করেছিলেন যুজবেন্দ্র চহাল। জানিয়েছিলেন, ২০১১ টি-টোয়েন্টি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ফাইনালের রাতে তাঁকে মুখে সেলোটেপ লাগিয়ে একটি ঘরে বেঁধে রেখে গিয়েছিলেন অ্যান্ড্রু সাইমন্ডস এবং জেমস ফ্র্যাঙ্কলিন। এ বার সেই ঘটনা নিয়ে ফ্র্যাঙ্কলিনকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চলেছে ডারহাম কাউন্টি। ফ্র্যাঙ্কলিন এই মুহূর্তে ডারহামের কোচ।

দলের তরফে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘২০১১-র একটি ঘটনায় আমাদের দলের এক কোচিং স্টাফের নাম যে ভাবে জড়িয়ে গিয়েছে সে ব্যাপারে আমরা জানি। কর্মীদের নিয়ে যে কোনও বিষয়ের ক্ষেত্রেই যেটা করা হয়, সে ভাবেই ক্লাবের তরফে ব্যক্তিগত ভাবে সংশ্লিষ্ট কর্মীর সঙ্গে কথা বলা হবে এবং জানার চেষ্টা করা হবে আদৌ ওই ঘটনায় তাঁর কোনও ভূমিকা ছিল কিনা।”

চহাল সে দিনের ঘটনা সম্পর্কে বলেছিলেন, “মুম্বই চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জেতার পরে ওই ঘটনা ঘটেছিল। আমরা চেন্নাইয়ে ছিলাম। ও (সাইমন্ডস) অনেকটা ‘ফলের রস’ খেয়ে ফেলেছিল। ও আর ফ্র্যাঙ্কলিন আমার হাত-পা বেঁধে বলেছিল সেটা আমাকেই খুলে বেরোতে। হবে। এতটাই মত্ত ছিল যে আমার মুখও আটকে রেখেছিল। পুরোপুরি ভুলে গিয়েছিল যে আমি একটা ঘরে ও ভাবে বন্দি। পর দিন ঘর পরিষ্কার করতে আসা এক হোটেলকর্মী আমাকে ওই অবস্থায় দেখতে পায়।” চহালের মতে, সাইমন্ডস বা ফ্র্যাঙ্কলিন কেউই সেই ঘটনার জন্য এখনও ক্ষমা চাননি।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE