Advertisement
২১ জুলাই ২০২৪
IPL 2024

আইপিএল জেতা যোগ্য জবাব বললেন শ্রেয়স আয়ার

শুক্রবার নিজের ইউটিউব চ্যানেলে সে বিষয়ে আবারও মুখ খোলেন ভারতীয় তারকা। জানিয়ে দেন, তাঁর সমালোচকদের যোগ্য জবাব দিয়েছেন এ বারের আইপিএল ট্রফি জিতে।

শ্রেয়স আয়ার।

শ্রেয়স আয়ার। ছবি: আইপিএল।

নিজস্ব প্রতিবেদন
শেষ আপডেট: ০৮ জুন ২০২৪ ০৬:৩০
Share: Save:

কলকাতা নাইট রাইডার্সের অধিনায়ক হিসেবে আইপিএল জিতেছেন শ্রেয়স আয়ার। কিন্তু টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দলে সুযোগ পাননি। এমনকি ভারতীয় বোর্ডের চুক্তি থেকেও বাদ পড়েছেন তিনি।

আইপিএল ফাইনালের আগের দিনই সাংবাদিক বৈঠকে এ বিষয়ে সামান্য ইঙ্গিত দিয়েছিলেন শ্রেয়স। জানিয়েছিলেন, কোমরে চোটের কথা তিনি বোর্ডের কর্তাদের বলেছিলেন। কিন্তু তখন তাঁর কথার কোনও গুরুত্ব দেওয়া হয়নি। পরিবর্তে তাঁকে রঞ্জি ট্রফি খেলতে বাধ্য করা হয়।

শুক্রবার নিজের ইউটিউব চ্যানেলে সে বিষয়ে আবারও মুখ খোলেন ভারতীয় তারকা। জানিয়ে দেন, তাঁর সমালোচকদের যোগ্য জবাব দিয়েছেন এ বারের আইপিএল ট্রফি জিতে।

শ্রেয়স বলেছেন, ‘‘বিশ্বকাপ অসাধারণ গিয়েছিল আমার। তার পরে আমি কয়েক দিন বিশ্রাম চেয়েছিলাম। শরীরের বিশেষ কিছু জায়গায় মারাত্মক যন্ত্রণা হত। সেখান থেকে ফিরে আসার চেষ্টা করছিলাম। ব্যথা যাতে আর না হয়, তাই বিশ্রাম চেয়েছিলাম। কিন্তু বোঝাপড়ার অভাবে এমন কয়েকটি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, যা আমার পক্ষে কখনওই যায়নি।’’

কেকেআর অধিনায়ক মনে করেন, কলকাতার হয়ে আইপিএল জিতে তিনি যোগ্য জবাব দিয়েছেন তাঁর নিন্দুকদের। বলেছেন, ‘‘দিনের শেষে আমার হাতে ব্যাট আছে। সেই ব্যাট দিয়েই আমাকে রান করতে হবে, ট্রফি জিততে হবে।’’ যোগ করেন, ‘‘জানতাম, এক বার যদি আমি রঞ্জি ট্রফি ও আইপিএল জিতি, তা হলে সকলকে যোগ্য জবাব দিতে পারব। সেটাই হয়েছে। ভবিষ্যতে এ ভাবেই আরও অনেক ট্রফি জিততে চাই।’’

ভারতীয় বোর্ডের সিদ্ধান্তই কি বাড়তি জেদ তৈরি করেছিল শ্রেয়সের মনে? কেকেআর অধিনায়ক অবশ্য জানিয়েছেন, ২০২৩ সালের এপ্রিল মাসে কোমরে অস্ত্রোপচার হওয়ার পর থেকে তিনি উন্নতি করার অনেক চেষ্টা করেছেন। শ্রেয়স সেই প্রসঙ্গে বলেছেন, ‘‘কোমরের চোট থেকে সেরে ওঠার পরে জাতীয় ক্রিকেট অ্যাকাডেমির নেটে প্রচুর ব্যাট করেছি। আগে সেটা করতাম না। আমার মনে হত পিচ ভাল নয়। কিন্তু সেই সব চিন্তা মাথা থেকে দূর করে দিয়েছিলাম। নিজেকে বলতাম, কঠিন সময়ের জন্য তৈরি হতে হবে। কারণ, লড়াইটা মাঠের বাইরে। মাঠের
মধ্যে নয়।’’

শ্রেয়স জানিয়েছেন, তিনি যদি মনে করেন পারবেন, তা হলে কেউ তাঁকে আটকাতে পারবে না। তাঁর কথায়, ‘‘লড়াকু মানসিকতা তৈরি করার বিভিন্ন পদ্ধতি আছে। আমি যেমন নিজের মনকে বোঝাই, আমাকে এটা যে কোনও মূল্যে করতেই হবে। যাই হয়ে যাক, আমি সেই কাজটা করেই ছাড়ি। মূল স্রোতের ক্রিকেটে ফিরে আসার সেই অদম্য ইচ্ছেই আমার হাতে হয়তো আইপিএল ট্রফি তুলে দিয়েছে।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE