Advertisement
২৩ জুলাই ২০২৪
IPL 2024

পন্থকে বাঁচাতে সঞ্জুর বিরুদ্ধে অভিযোগ সৌরভের, তবু শাস্তি এড়াতে পারেননি দিল্লি অধিনায়ক

আইপিএলের প্লে-অফে যাওয়ার আশা বাঁচিয়ে রাখতে বেঙ্গালুরু ম্যাচ দিল্লির কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। শাস্তির হাত থেকে পন্থকে বাঁচাতে সঞ্জুকে দোষী প্রমাণ করতে চেয়েছিলেন সৌরভ।

Picture of Rishabh Pant and Sourav Ganguly

(বাঁদিকে) ঋষভ পন্থ এবং সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। — ফাইল চিত্র।

আনন্দবাজার অনলাইন ডেস্ক
কলকাতা শেষ আপডেট: ১২ মে ২০২৪ ১৪:৩৩
Share: Save:

রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর বিরুদ্ধে খেলতে পারবেন না দিল্লি ক্যাপিটালসের অধিনায়ক ঋষভ পন্থ। আইপিএলের প্লে-অফে যাওয়ার আশা বাঁচিয়ে রাখতে এই ম্যাচ দিল্লির কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তাই পন্থকে খেলাতে রাজস্থান রয়্যালস অধিনায়ক সঞ্জু স্যামসনের উপর দিল্লির মন্থর বোলিংয়ের দায় চাপানোর চেষ্টা করেছিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। কিন্তু সফল হয়নি দিল্লির ডিরেক্টর অফ ক্রিকেটের সেই চেষ্টা।

তিনটি ম্যাচে মন্থর বোলিংয়ের জন্য পন্থকে এক ম্যাচ নির্বাসিত করেছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। ৩০ লাখ টাকা জরিমানাও করা হয়েছে তাঁকে। গুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচে দিল্লিকে নেতৃত্ব দেবেন অক্ষর পটেল। তবে পন্থকে খেলানোর মরিয়া চেষ্টা করেছিলেন সৌরভ। চেষ্টা করেছিলেন পন্থকে শাস্তি থেকে বাঁচাতে। রাজস্থান ম্যাচে মন্থর বোলিংয়ের পর শাস্তি হয়েছে পন্থের। সেই ম্যাচে সঞ্জুর বিতর্কিত আউটের জন্য কিছুটা সময় নষ্ট হয়েছিল। বাউন্ডারি লাইনের কাছে সঞ্জুর ক্যাচ ধরেছিলেন সাই হোপ। ক্যাচটি পরিচ্ছন্ন ভাবে ধরা নিয়ে সংশয় ছিল। আউট হয়ে অসন্তুষ্ট রাজস্থান অধিনায়ক আম্পায়ারদের সঙ্গে বেশ কিছু ক্ষণ কথা বলেন। বাইরে চলে আসার পরেও মাঠে ঢোকেন কথা বলার জন্য। সময় নষ্ট হওয়ার জন্য দিল্লি কর্তৃপক্ষ তাই সঞ্জুকেই দায়ী করার চেষ্টা করেছেন।

ম্যাচ রেফারির শুনানিতে পন্থের সঙ্গে গিয়েছিলেন সৌরভ এবং দিল্লির কোচ রিকি পন্টিং। গিয়েছিলেন দিল্লির সিইও সুনীল গুপ্তাও। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষে ছিলেন ম্যাচ রেফারি ড্যানিয়েল মনোহর এবং বোর্ডের সিইও হেমাঙ্গ আমিন।

শুনানিতে দিল্লির পক্ষে সওয়াল করেছিলেন সৌরভ। তিনি বলেছিলেন, ‘‘রাজস্থানের ব্যাটারেরা ১৩টি ছয় মেরেছে। ছয় হওয়ার পর বল ফেরত আসার জন্য ০.৩০ সেকেন্ড করে তিন বার মঞ্জুর করা হয়। তাই ছয়ের পর বল ফেরত আসতে অনেক বেশি সময় লেগেছে। এর জন্য দিল্লির ক্রিকেটারদের দোষ নেই। এ ছাড়াও সঞ্জু আউট হওয়ার পর ৩ মিনিটের বেশি সময় নষ্ট করেছে। দেখে মনে হয়েছে, পরিকল্পিত ভাবে সময় নষ্ট করা হয়েছে। যার দায় কোনও ভাবেই দিল্লির উপর বর্তাতে পারে না।’’ পন্টিংও একাধিক যুক্তি দিয়ে দেখান পন্থ সময় নষ্ট করেননি। দিল্লিও বল করার সময় অকারণে সময় নষ্ট করেনি।

সৌরভ এবং পন্টিংয়ের বক্তব্য খারিজ করে দেন ম্যাচ রেফারি। তিনি জানিয়ে দেন, নিয়ম সকলের জন্য এক। সব সম্ভাবনা ধরেই সময় নির্দিষ্ট করা আছে। প্রশ্ন তোলেন, বাকি ম্যাচেও প্রচুর চার-ছয় হচ্ছে। অন্য দলগুলি পারলে দিল্লি কেন বার বার ব্যর্থ হচ্ছে। তাই পন্থকে শাস্তি পেতেই হবে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE