Advertisement
০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
Sports News

তিন ম্যাচের টুর্নামেন্ট খেলছি ভেবে নামব

নিকোলাস আনেলকা পারেননি। কিন্তু মুম্বই সিটি-তে তাঁর পা পড়তেই প্রথম বার আইএসএলের নকআউটে সনি-সুনীলরা। কে তিনি? দিয়েগো ফোরলান। শনিবার রবীন্দ্র সরোবরের সেমিফাইনালের ইউএসপি।

দিয়েগো ফোরলান ১১ ম্যাচে ৫ গোল।

দিয়েগো ফোরলান ১১ ম্যাচে ৫ গোল।

দেবাঞ্জন বন্দ্যোপাধ্যায়
শেষ আপডেট: ১০ ডিসেম্বর ২০১৬ ০৪:১৯
Share: Save:

নিকোলাস আনেলকা পারেননি। কিন্তু মুম্বই সিটি-তে তাঁর পা পড়তেই প্রথম বার আইএসএলের নকআউটে সনি-সুনীলরা।

Advertisement

কে তিনি?

দিয়েগো ফোরলান। শনিবার রবীন্দ্র সরোবরের সেমিফাইনালের ইউএসপি।

কিন্তু উরুগুয়ের সোনার বল জয়ী বিশ্বকাপার ইউরোপিয়ান ফুটবলে যে ক্লাবের জার্সি গায়ে চার মরসুমে ৯৬ গোল করেছিলেন, সেই আটলেটিকো মাদ্রিদের ভারতীয় দোসরের বিরুদ্ধেই যে সম্মুখ সমর! আটলেটিকো দে কলকাতার বিরুদ্ধে নামার আগে ফোরলান কি তাই একটু হলেও নস্টালজিক?

Advertisement

সোনালি চুলের ফরোয়ার্ডের উত্তর শুনে অবশ্য তা মনে হওয়ার জো নেই।

ওয়াটারলু স্ট্রিটের অভিজাত হোটেলের কনফারেন্স রুমে শুক্রবার দুপুরে ফ্রাঞ্চিকোলি-সুয়ারেজের দেশের তারকা বলে দেন, ‘‘কীসের নস্টালজিয়া? স্পেনে খেলার সুবাদে এটিকের অনেক ফুটবলারকে ভাল করে জানি। তার বেশি কিছু নয়।’’

লিগের ম্যাচে কলকাতায় এসে মুম্বইকে গোল করে জিতিয়েছিলেন। এখনও পর্যন্ত হ্যাটট্রিক-সহ পাঁচ গোল করে ফেলেছেন সাঁইত্রিশ বছরের ফোরলান। মুম্বইয়ের অ্যাটাকিং থার্ডের ‘পাওয়ার হাউজ’ আবেগহীন গলায় যোগ করলেন, ‘‘আমরা লিগের ফার্স্ট বয় মানেই যে শনিবার সেমিফাইনালে হাসতে হাসতে জিতে যাব সেটা কিন্তু ভাববেন না।। এই ম্যাচটা সত্যিই টাফ। তবে আমরা তৈরি।’’ সঙ্গে এটাও বলতে ভুলছেন না, ‘‘প্রথম বার সেমিফাইনালে ওঠার ব্যাপারটাই আমাদের এই ম্যাচে মোটিভেশন। আমরা ধরে নিয়েছি, তিন ম্যাচের একটা নতুন টুর্নামেন্ট শুরু হচ্ছে শনিবার। যার সব ক’টা জিততে হবে আমাদের।’’

এক সাংবাদিক যুবভারতী আর রবীন্দ্র সরোবরের আয়তনের প্রসঙ্গ তুলে তফাত জানতে চেয়েছিলেন ২০১০ বিশ্বকাপের সেরা ফুটবলারের কাছে। ছয় বছর আগে যুবভারতীতে এক টুর্নামেন্টের শুধু কিক অফ করে দিয়ে গিয়েছিলেন ফোরলান। আর রবীন্দ্র সরোবরে তাঁর গোল আছে এ বারের আইএসএলে। কিন্তু উরুগুয়ের তারকা ফুটবলার অবিচল। সটান বলে দিলেন, ‘‘মুম্বইতে আমাদের স্টেডিয়ামও তো ছোট। ও সব কোনও ফ্যাক্টর নয়। দেখতে হবে মাঠের অবস্থাটা ভাল কি না, আর দর্শক স্টেডিয়াম ভরাচ্ছেন তো!’’

সেমিফাইনালে বিপক্ষ কোচ মলিনা যে তাঁকে বাড়তি গুরুত্ব দিচ্ছেন না সেই চিমটিতেও তাপ-উত্তাপ নেই চার-চারটে কোপা আমেরিকা ট্রফি থাকা বাড়ির তারকা ফুটবলারের (একটা ফোরলানের নিজের আর বাকি তিনটে বাবা পাবলো আর দাদু জুয়ান কার্লোস কোরাজ্জোর জেতা)। বরং স্তুতি গাইতে শুরু করে দেন নিজের টিমের শেহনাজ, সনি, সুনীলদের।

এই অবধি তারকা বিশ্বকাপারের টিপিক্যাল মস্তানি ফুটে উঠছিল ফোরালানের কথাবার্তায়। কিন্তু চাপেকোয়েনসে নিয়ে প্রশ্ন উঠতেই তীব্র আবেগী দেখাল অস্কার তাবারেজের ছাত্রকে। দিনকয়েক আগে মর্মান্তিক বিমান দুর্ঘটনায় ব্রাজিলিয়ান ক্লাবের প্রয়াত গোলকিপার ক্লেবের সান্তানা আটলেটিকো মাদ্রিদে খেলার সময় ছিলেন ফোরলানের পর্তুগিজ শিক্ষক। আর ফোরলান তাঁকে শেখাতেন স্প্যানিশ ভাষাটা। যিনি এ দিন কাতর ভাবে বলছিলেন, ‘‘প্লিজ, ওই স্মৃতি আর মনে করাবেন না।’’

তিন মাস এ দেশে থেকে বরং ভারতীয় ফুটবল সম্পর্কে বলতে গিয়ে ঈষৎ উত্তেজিত ফোরলান। ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে ১৩৭ নম্বরে থাকা দেশের ফুটবল ভবিষ্যৎ সম্পর্কে অকপট বলে দেন, ‘‘আপনাদের ফুটবল টিমের দরকার মানসিক ভাবে শক্তিশালী হওয়া। উরুগুয়ে কিন্তু ইউরোপিয়ান দেশগুলোর মতো সুযোগসুবিধে পায় না। তাও আমরা বলে-বলে ইউরোপিয়ান টিমকে হারাই। আমি পারবই— এই বিশ্বাসটা ভারতীয়দের মধ্যে এক বার ঢুকে গেলে আমি নিশ্চিত ভবিষ্যতে ইউরোপের নামী ক্লাবগুলোতে ভারতীয়দেরও দেখব।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.