×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২২ জুন ২০২১ ই-পেপার

রাসেলের অভাব সহজে মেটানো যাবে না: গম্ভীর

নিজস্ব প্রতিবেদন
০৩ এপ্রিল ২০১৭ ০৪:৩০
লক্ষ্য: রাসেলের অভাব পূরণ করাই চ্যালেঞ্জ গম্ভীরদের।

লক্ষ্য: রাসেলের অভাব পূরণ করাই চ্যালেঞ্জ গম্ভীরদের।

আন্দ্রে রাসেলের অভাব পূরণ করতে ইংরেজ অলরাউন্ডার আন্দ্রে ওকসকে নেওয়া হলেও কেকেআর অধিনায়ক গৌতম গম্ভীর চান, কোনও একজন নয়, পুরো দলই ক্যারিবিয়ান অলরাউন্ডারের অভাব পূরণ করুক।

গত মরসুমে নাইটদের অন্যতম প্রধান ভরসা হয়ে ওঠা রাসেল এ বার আইপিএল থেকে ছিটকে গিয়েছেন আইসিসি-র নির্বাসনে। ডোপিং সংক্রান্ত নিয়ম না মানায় রাসেলকে এই শাস্তি ভোগ করতে হচ্ছে। যা কেকেআরের কাছে একটা বড় ধাক্কা। কিন্তু গম্ভীর এই ঘটনাকে ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গিতেই দেখছেন। রবিবার সংবাদ সংস্থার প্রশ্নে তিনি এই ব্যাপারে বেশ দার্শনিক উত্তর দিলেন। ‘‘জীবনে এই ধরনের পরিস্থিতিকে দু’ভাবে দেখা যায়। হয় রাসেলের অনুপস্থিতিকে আমাদের একটা বড় চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিতে হবে, না হলে ভাবতে হবে, আমাদের কাছে এটা একটা বড় সুযোগ। আমার কাছে, আমাদের দলের কাছে’’, বলেন গম্ভীর।

তাঁর এই উত্তরের ব্যাখ্যা দিয়ে গম্ভীর বলেন, ‘‘মণীশ পান্ডের ব্যাটিং ও অঙ্কিত রাজপুতের বোলিং রাসেলের অভাব পূরণ করতে পারে। শুধু ওকস কেন, গোটা দল রাসেলের অভাব পূরণ করতে পারে। কোনও অলরাউন্ডারকেই যে এই দায়িত্ব নিতে হবে, তার কোনও মানে নেই। অন্য কোনও জুটিও সেটা করতে পারে।’’ ইডেন উইকেটের বদলে যাওয়া চরিত্রের কথা মেনে নিয়েই গম্ভীর বলেন, ‘‘আগে এখানকার উইকেট স্পিনারদের সাহায্য করত। এখন ইডেনের উইকেটে ভাল গতি আর বাউন্স আছে। এই অবস্থায় আমাদের ব্যাটসম্যানদের সেরা ফর্মে থাকা চাই। এখানে বিপক্ষের পেসারদের সামলানো মোটেই সোজা হবে না। আমাদের সে জন্য তৈরি থাকতে হবে।’’

Advertisement

আরও পড়ুন: দশম আইপিএলে আট দলের হয়ে কারা হতে পারেন গেমচেঞ্জার

রবিবার ইডেনে যে উইকেটে প্র্যাকটিস ম্যাচ খেলেন গম্ভীররা, সেই উইকেটেও গতি ও বাউন্স ভালই ছিল। পেস বোলারদের বিরুদ্ধে গম্ভীর শুরুর দিকে একেবারেই স্বচ্ছন্দে ছিলেন না। পরে অবশ্য উইকেটের অবস্থার সঙ্গে মানিয়ে নেন ও ৪৪ বলে ৫৫ রান করেন। শেষে স্পিন বলে কট বিহাইন্ড হয়ে যান। ড্যারেন ব্র্যাভো ৪১ বলে ৬১ করেন। রবিন উথাপ্পা যাও বা মারকুটে ছিলেন, কিন্তু আগ্রাসী ইউসুফ পাঠানকে এ দিন খুঁজে পাওয়া যায়নি। বরং শেলডন জ্যাকসন ১৩টা চার মেরে ৫২ বলে ৯৭ রান করেন।

ইডেনের পেস সহায়ক উইকেটকে কাজে লাগানোর মতো পেসার অবশ্য তাঁর হাতে আছে বলে জানান গম্ভীর। ট্রেন্ট বোল্ট, উমেশ যাদব, কুল্টার নাইল, রাজপুত, ওকসদের ভরসা করে আছেন তিনি। তবে ভরসা যে রহস্য-স্পিনার সুনীল নারিনের উপরও আছে, তাও জানিয়ে দেন তিনি।

বলেন, ‘‘আমরা বড্ড তাড়াতাড়ি সব কিছুর বিচার করে ফেলি। আমি দু’বছর আগে নিজের স্টান্স বদলানোর পর এখনও তাতে পুরোপুরি সেট হতে পারিনি। সুনীলকেও একটু সময় দিন। ও নিজেকে আবার আগের জায়গায় ফিরিয়ে আনবে ঠিক, দেখে নেবেন।’’

Advertisement