Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২০ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

জিতে আত্মবিশ্বাস বাড়াতে চান সঞ্জয়

দেবাঞ্জন বন্দ্যোপাধ্যায়
১৯ এপ্রিল ২০১৭ ০৪:১২
তিনমূর্তি: মোহনবাগান মাঠে দেবজিৎ, কেন লুইস ও সনি। নিজস্ব চিত্র

তিনমূর্তি: মোহনবাগান মাঠে দেবজিৎ, কেন লুইস ও সনি। নিজস্ব চিত্র

গত বছরের ফর্মুলাতেই ফিরছে মোহনবাগান। যেখানে আই লিগই পাখির চোখ। এএফসি কাপ ব্রাত্য।

সবুজ-মেরুন শিবির প্রকাশ্যে এ কথা না বললেও মঙ্গলবার সকালে সনি নর্দে-দের অনুশীলনে ফুটবলার থেকে কর্তা — সকলের মনের ভাব এটাই। ফলে বুধবার রবীন্দ্র সরোবরে মলদ্বীপের মেজিয়া স্পোর্টস অ্যান্ড রিক্রিয়েশন ক্লাবের বিরুদ্ধে এএফসি কাপের ম্যাচ মোহনবাগানে স্রেফ নিয়মরক্ষার ম্যাচ। সকালের অনুশীলনের পর ক্লাব ছাড়ার সময় ক্লাবের এক শীর্ষকর্তা বলেই গেলেন, ‘‘আমাদের পাখির চোখ আপাতত আই লিগ। পরে অনেক ম্যাচ পাওয়া যাবে।’’ কোচ সঞ্জয় সেন সাংবাদিক বৈঠকে এসে প্রথমে যদিও বললেন, ‘‘মেজিয়ার বিরুদ্ধে গত বছরও এএফসি কাপে খেলেছি। তবে দলটা এখন অনেক বদলেছে শুনলাম। এর আগে খেলা আবাহনী ম্যাচের মতোই প্রথম পনেরো মিনিট বিপক্ষকে দেখে নিয়ে আমরাও আক্রমণে যাব।’’

সবুজ-মেরুন শিবিরের কোচ মুখে এ কথা বললেও তাঁর মনে যদিও অন্য অঙ্ক। শনিবারই মিজোরামে আইজল এফসি-র বিরুদ্ধে আই লিগ-এর ম্যাচ রয়েছে কাতসুমিদের। যে ম্যাচ জিতলেই আই লিগ ঢুকবে মোহনবাগানে। সঞ্জয় তাই বলছেন, ‘‘প্রথম দলের বেশ কয়েক জনকে বুধবার বিশ্রাম দেব। মেজিয়ার বিরুদ্ধে জিতলে আগামী ম্যাচের আগে ফুটবলারদের আত্মবিশ্বাস বাড়বে।’’

Advertisement

সেই সূত্র মেনেই মেজিয়ার বিরুদ্ধে দলে রাখা হচ্ছে না প্রীতম, আনাস, দেবজিৎ, শেহনাজ-দের। বিদেশিদের মধ্যে বিশ্রাম দেওয়া হচ্ছে সনি, ডাফি, এদুয়ার্দোকে। ১৮ জনের দলে রাখা হচ্ছে মাত্র একমাত্র কাতসুমিকে। প্রথম দলে আসতে পারেন গোলরক্ষক শিবিন রাজ, কেন লুইস-রা।

লিগ টেবলে মোহনবাগান এবং মেজিয়া দু’দলই দুই ম্যাচের পর তিন পয়েন্টে দাঁড়িয়ে। গোল পার্থক্যে মোহনবাগান দ্বিতীয় এবং মলদ্বীপের দলটি তৃতীয়। বুধবার যে জিতবে সে দল কিছুটা এগিয়ে যাবে ‘ই’ গ্রুপে। কিন্তু মোহনবাগান শিবিরে হচ্ছে তার উল্টোটাই। বুধবার ম্যাচের সকালে বরং সনি, আনাস-দের আইজলের বিরুদ্ধে তরতাজা রাখতে ক্লাব তাঁবুতে ডাকা হয়েছে জিম করার জন্য।

যা শুনেই মুখে হাসি খেলে যাচ্ছে মেজিয়ার ম্যাসিডোনিয়ান কোচ মারিয়ান সেকুলভস্কি-র। মাদার টেরিজার শহরে এসে যিনি বেজায় খুশি। মোহনবাগানের সাত ফুটবলার নেই শুনে বলছেন, ‘‘ওটা আমাদের চিন্তার বিষয় নয়। কলকাতায় জিততেই এসেছি আমরা।’’ গত বছর এএফসি কাপে মোহনবাগানের কাছে গুয়াহাটিতে ৫-২ হেরেছিল মেজিয়া। মলদ্বীপে সঞ্জয় সেনের দলের সঙ্গে ম্যাচ হয়েছিল ১-১। সে কথা মাথায় রেখে মেজিয়া অধিনায়ক আবদুল্লা আসাদুল্লা বলছেন, ‘‘গত বছর আমাদের দল শক্তিশালী ছিল না। এ বার কিন্তু ওদের চেয়ে আমরাই শক্তিশালী। কলকাতা থেকে তিন পয়েন্ট নিয়ে যাওয়াই লক্ষ্য।’’

বুধবার এএফসি কাপ: মোহনবাগান বনাম মেজিয়া স্পোর্টস অ্যান্ড রিক্রিয়েশন, রবীন্দ্র সরোবর, সন্ধে ৭-০০ টা থেকে।

আরও পড়ুন

Advertisement