Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২১ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

শাপেকোয়েন্স নিয়ে বিতর্ক

নিজস্ব প্রতিবেদন
০১ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ০৩:৫২
আশীর্বাদ: শাপেকোয়েন্সের ফুটবলারদের সঙ্গে পোপ ফ্রান্সিস।ছবি: এএফপি

আশীর্বাদ: শাপেকোয়েন্সের ফুটবলারদের সঙ্গে পোপ ফ্রান্সিস।ছবি: এএফপি

তাঁরা কেউ ছিলেন শাপেকোয়েন্সের ফুটবলার। কেউ আবার ফিজিওথেরাপিস্ট। গত ২৮ নভেম্বর দক্ষিণ আমেরিকা কাপের ফাইনাল খেলতে যাওয়ার সময় কলম্বিয়ার পাহাড়ে ভয়াবহ বিমান দুর্ঘটনায় তাঁদের মর্মান্তিক মৃত্যুর খবর স্তম্ভিত করে দিয়েছিল গোটা বিশ্বকে।

দশ মাস পরে আরও একবার শিরোনামে শাপেকোয়েন্স। এ বার শাপেকোয়েন্স কর্তা ও বিমা সংস্থার বিরুদ্ধে বঞ্চনার অভিযোগ তুললেন দুর্ঘটনায় প্রয়াতদের পরিবারের সদস্যরা। ভয়াবহ বিমান দুর্ঘটনায় তাঁদের কেউ হারিয়েছেন স্বামী। কেউ সন্তান বা ভাইকে হারিয়েছেন। এই পরিস্থিতিতে শাপেকোয়েন্সর সাহায্যে এগিয়ে এসেছে গোটা বিশ্ব। সপ্তাহ তিনেক আগেই ক্যাম্প ন্যু-তে শাপেকোয়েন্সের বিরুদ্ধে প্রদর্শনী ম্যাচ খেলেছে বার্সেলোনা। লিওনেল মেসি, লুইস সুয়ারেজ-সহ বার্সার সমস্ত তারকাই খেলেছিলেন ৫-০ গোলে জেতা সেই ম্যাচে।

নতুন মরসুমে ঘুরে দাঁড়ানোর লক্ষ্য চব্বিশ ঘণ্টা আগেই রোমে পোপ ফ্রান্সিসের আশীর্বাদ নিতে গিয়েছিলেন দুর্ঘটনায় রক্ষা পাওয়া দুই ফুটবলার। তার পরেই ক্লাবের বিরুদ্ধে উপেক্ষার বিস্ফোরক অভিযোগ করলেন শাপেকোয়েন্সের প্রয়াত মনোবিদ সিজার মার্টিনের স্ত্রী ফাবিয়েনা বেল্লে। তিনি বলেছেন, ‘‘এত মানুষের প্রাণ কেড়ে নেওয়ার দায় শাপেকোয়েন্স ও বিমা সংস্থাকেই নিতে হবে। দূরদর্শিতার অভাবেই এই দুর্ঘটনা ঘটেছে।’’

Advertisement

আরও পড়ুন: ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপের যোগ্যতা অর্জন করল জাপান

বিমান দুর্ঘটনায় প্রয়াতদের পরিবারের সকলে ক্ষতিপূরণ পানননি বলেও অভিযাগ করেছেন তাঁরা। ফাবিয়ানো বলেছেন, ‘‘কিছু পরিবার জীবন বিমার অর্থ পেয়েছে। কিন্তু অধিকাংশ পরিবারকেই দুর্ঘটনার বিমা হিসেবে মাত্র ২ লক্ষ মার্কিন ডলার দেওয়া হয়েছে। এর চেয়ে অমানবিক কিছু হতে পারে না। আমি মনে করি, এটা সান্ত্বনা পুরস্কার ছাড়া আর কিছু নয়।’’ এখানেই না থেমে তিনি যোগ করেছেন, ‘‘অনেকেই এই অর্থ নিতে বাধ্য হয়েছে। কারণ, গত দশ মাস ধরে তাদের কোনও উপার্জন নেই। ক্লাব কর্তাদের উচিত ছিল স্বচ্ছতা বজায় রাখা।’’ ক্লাবের প্রধান জনসংযোগ আধিকারিক ফের্নান্দো মাতোস স্পষ্ট বলে দিয়েছেন, ‘‘ক্লাব এ ব্যাপারে সংবাদ মাধ্যমকে কিছু জানাবে না।’’

শাপেকোয়েন্স ফুটবলারদের সঙ্গে দুর্ঘটনায় নিহত হন একাধিক সংবাদ মাধ্যমের প্রতিনিধি। তাঁদের পরিবারের সদস্যরাও ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন। ধারাভাষ্যকার মারিও সের্জিও-র স্ত্রী মারা পাইভার অভিযোগ, ‘‘সবচেয়ে বিস্ময়কর ব্যাপার হচ্ছে, সকলেই দায়িত্ব এড়িয়ে যেতে চাইছেন।’’



Tags:
Chapecoense Club Plane Crash Football Controversy Pope Francisপোপ ফ্রান্সিসশাপেকোয়েন্স

আরও পড়ুন

Advertisement