Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ ই-পেপার

Team India : ২০১১ বিশ্বকাপের আগে সচিন, ধোনিদের যৌন মিলনের পরামর্শ দিয়েছিলেন দলের মনোবিদ!

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা ০২ জুলাই ২০২১ ২১:৫৫
 ২০১১ বিশ্বকাপের আগে সচিন, ধোনিদের শারীরিক মিলনের পরামর্শ দিয়েছিলেন টিম ইন্ডিয়ার মনোবিদ!

২০১১ বিশ্বকাপের আগে সচিন, ধোনিদের শারীরিক মিলনের পরামর্শ দিয়েছিলেন টিম ইন্ডিয়ার মনোবিদ!
ফাইল চিত্র

২০১১ বিশ্বকাপ জয়ী দলের প্রাক্তন মনোবিদ প্যাডি আপটনের একটি বক্তব্য ক্রিকেট বিশ্বে চাঞ্চল্য ফেলে দিয়েছে। তাঁর মতে ২০১১ বিশ্বকাপ শুরু হওয়ার আগে তিনি সচিন তেন্ডুলকর, মহেন্দ্র সিংহ ধোনি এবং দলের অন্যান্য ক্রিকেটারদের যৌন কর্মের পরামর্শ দিয়েছিলেন! সেই বিষয় নিয়ে অবশ্য তৎকালীন মুখ্য প্রশিক্ষক গ্যারি কার্স্টেন তাঁর উপর চটেও গিয়েছিলেন। আপটন তাঁর ‘দ্য বেয়ারফুট কোচ’ বইতে পুরো বিষয়টা তুলে ধরেছেন।

সেই বইয়ের একটি অংশে আপটন লিখেছেন, ‘ভারতে সে বার বিশ্বকাপ আয়োজিত হওয়ার জন্য দলের সবার উপর প্রচন্ড মানসিক চাপ ছিল। বিশেষ করে ক্রিকেটারদের মানসিক ও শারীরিক অবস্থা বেশ খারাপ হয়ে যায়। তখন আমি ক্রিকেটারদের শুধু ম্যাচের আগে যৌন সংসর্গের পরামর্শ দিয়েছিলাম। তবে একাধিক ক্রিকেটার আমার পরামর্শ ভাল ভাবে নেয়নি। এমনকি গ্যারি পর্যন্ত বিষয়টা শোনার পর আমার উপর খুব রেগে যায়। পরে অবশ্য নিজের ভুল বুঝতে পারি। ভারতীয় ক্রিকেটারদের যৌন সম্পর্কে যুক্ত হওয়ার পরামর্শ দেওয়া আমার বড় ভুল ছিল। আসলে বুঝতে পারি এ গুলো ভারতীয় সংস্কৃতির পরিপন্থী।’

তবে এই ব্যাপারটা ২০১১ বিশ্বকাপের সময় সচিন, ধোনিদের কাছে সামনে এলেও ২০০৯ সালের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির প্রস্তুতির সময় থেকেই তিনি টিম ইন্ডিয়ার ক্রিকেটারদের যৌনতার উপকারিতা সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য দেওয়ার চেষ্টা করছিলেন। তবে সিনিয়রদের কানে সেই বার্তা না যাওয়ায় বিতর্ক বড় আকার ধারণ করেনি। তবে ২০১১ সালের বিশ্বকাপ ও পরে তাঁর বইতে এই ব্যাপারটা সামনে আসতেই এই ঘটনা নিয়ে শোরগোল পড়ে যায়।

Advertisement

‘দ্য বেয়ারফুট কোচ’ বইতে ভারতীয় ক্রিকেটের অনেক দিক তুলে ধরেছেন প্যাডি আপটন। ফাইল চিত্র।

‘দ্য বেয়ারফুট কোচ’ বইতে ভারতীয় ক্রিকেটের অনেক দিক তুলে ধরেছেন প্যাডি আপটন। ফাইল চিত্র।


শুধু মাত্র ভারতীয় দলের ক্রিকেটারদের সঙ্গে বিতর্কে জড়াননি। আইপিএল-এ রাজস্থান রয়্যালসের মনোবিদ থাকাকালীনও বিতর্কে জড়িয়েছিলেন তিনি। ২০১৩ সালের আইপিএল-এ স্পট ফিক্সিং কান্ডে নির্বাসিত হওয়া জোরে বোলার শ্রীসন্থের সঙ্গে সেই দলের তৎকালীন মুখ্য প্রশিক্ষক রাহুল দ্রাবিড়ের ঝামেলার কথাও এই বইতে লিখেছেন। আপটনের দাবি সে বার আইপিএল চলার সময় দলে সুযোগ না পেয়ে শ্রীসন্থ নাকি দ্রাবিড়কে অশালীন মন্তব্য করেছিলেন।

২০১১ সালের বিশ্বকাপ ফাইনালে গৌতম গম্ভীরের লড়াকু ৯৭ রানের কথা সবাই জানে। তবে দক্ষিণ আফ্রিকার এই মানুষটি কিন্তু তাঁর বইতে গম্ভীরের নিন্দা করেছেন। গম্ভীর সম্পর্কে তিনি লিখেছেন, ‘গৌতম গম্ভীর মানসিক ভাবে নেতিবাচক, নিরাশাবাদী একজন মানুষ। সব সময় নিরাপত্তাহীনতায় ভোগে।’

যদিও ধোনি সম্পর্কে তিনি বেশ শ্রদ্ধাশীল। বিশ্বকাপ জয়ী প্রাক্তন অধিনায়কের প্রশংসা করে লিখেছেন, ‘ধোনির আসল দক্ষতা ওর ঠাণ্ডা মাথা। ম্যাচের পরিস্থিতি যাই হোক না কেন ও শান্ত থাকে।’

আরও পড়ুন

More from My Kolkata
Advertisement