Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৩ অগস্ট ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

উত্তেজিত বাংলাদেশ আইসিসির কাছে এখনই তীব্র অভিযোগ জানাতে চায়

আর কোনও ভারত-বাংলাদেশ ম্যাচ ঘিরে এত তিক্ততা তৈরি হয়নি যা ঘটল বৃহস্পতিবারের বিশ্বকাপ কোয়ার্টার ফাইনাল ঘিরে। আট বছর আগে বাংলাদেশের কাছে হেরেই

গৌতম ভট্টাচার্য
মেলবোর্ন ২০ মার্চ ২০১৫ ০৪:৫৮
Save
Something isn't right! Please refresh.
তপ্ত এমসিজি। বাংলাদেশ সমর্থকদের প্ল্যাকার্ড বলছে, ইন্ডিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল।

তপ্ত এমসিজি। বাংলাদেশ সমর্থকদের প্ল্যাকার্ড বলছে, ইন্ডিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল।

Popup Close

আর কোনও ভারত-বাংলাদেশ ম্যাচ ঘিরে এত তিক্ততা তৈরি হয়নি যা ঘটল বৃহস্পতিবারের বিশ্বকাপ কোয়ার্টার ফাইনাল ঘিরে। আট বছর আগে বাংলাদেশের কাছে হেরেই ভারত কার্যত বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নেয়। তখন কোনও সমস্যা হয়নি। এর পরেও যখন বিশ্বকাপে মীরপুর স্টেডিয়ামে ভারত হারিয়ে দিয়ে গিয়েছে বাংলাদেশকে, ম্যাচ ঘিরে কোনও রেশ তৈরি হয়নি। এ বার কিন্তু হল।

বাংলাদেশ টিম ম্যাচ পরিচালনা নিয়ে ফেটে পড়েছে। সাংবাদিক সম্মেলনে মাশরফি মর্তুজা মাথা ঝাঁকিয়ে বলে গেলেন, “ওই রোহিতের আউটের ব্যাপারটা কী হয়েছে সবাই দেখেছেন। আমি এখানে বসে বলতে পারব না, বলা সম্ভব নয় বলে। তবে ৪০ ওভারের আগে একটা উইকেট পেলে খেলাটা অনেক সুবিধেজনক দিকে যেতে পারত।”

বাংলাদেশের ক্ষোভ আম্পায়ার আলিম দার এবং তৃতীয় আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত নিয়েও। তারা এমনও মনে করে যে, হোস্ট ব্রডকাস্টার ইচ্ছাকৃত ভাবে মাহমুদউল্লাহর আউটের আসল রিপ্লেটা দেখায়নি। এমনকী বাংলাদেশ টিম ম্যানেজমেন্ট নাকি এমনও বলেছে যে রায়নার এলবিডব্লিউটাও আউট ছিল। বলের যে সামান্য আধ মিলিমিটার অংশ লেগ স্টাম্পের বাইরে পড়েছিল তাকে গ্রাহ্য করতে গেলেন কেন থার্ড আম্পায়ার?

Advertisement

মোটামুটি ভাবে তিনটে আউটের সিদ্ধান্ত নিয়ে অসন্তোষ। বাংলাদেশ টিমের মিডিয়া ম্যানেজার রাবিদ ইমাম রাতে এবিপিকে জানালেন, হ্যাঁ তাঁরা অভিযোগ করছেন আইসিসির কাছে। খুব দ্রুত বাংলাদেশের আনুষ্ঠানিক প্রতিবাদ পাঠিয়ে দেওয়া হবে। তবে বয়ানটা রাবিদ বলতে পারেননি।



শোনা গেল আইসিসি প্রেসিডেন্ট বাংলাদেশের মুস্তাফা কামাল এ দিন মাঠে থাকার সময় তাঁর কাছেও ক্ষোভ প্রকাশ করেন কর্তারা। কামালও নাকি তখন বলেন, “আমার তো সব কিছু দেখে অবাক লাগছে।” প্রশ্ন হল, বিশ্বকাপের ফর্ম্যাট অনুযায়ী অভিযোগ বৈধ হলেও আবার রিপ্লের কোনও ব্যাপার নেই। কিন্তু সেটা যদি না-ই যায়, তা হলে আর অভিযোগ করবে কেন?

বাংলাদেশ কর্তারা চান তারা যে পক্ষপাতিত্বের নোংরা শিকার হয়েছেন এটা জনমানসে যথাসম্ভব প্রচার করতে। ভারতীয় ক্রিকেটারদের সঙ্গেও অন্য বারের মতো মাঠে সখ্যত্ব দেখাতে দেখা যায়নি বাংলাদেশিদের। বরং কোহলিকে আউট করার পর যে ভাবে রুবেল হোসেন দাঁতমুখ খিঁচিয়ে তাঁকে প্যাভিলিয়নের রাস্তা দেখালেন, সেটা ভারত-বাংলাদেশ ম্যাচে কখনও হয়নি!

আইসিসির কাছে বাংলাদেশ প্রতিবাদ জানানো মানে ভারতীয় ক্রিকেটাররা এ বার পাল্টা চটবেন। ভবিষ্যতে ভারত-বাংলাদেশ দেখা হলে উত্তেজনা বেড়ে থাকবে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement