Advertisement
০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

রুনিকে বে়ঞ্চে বসাতে তৈরি ইংল্যান্ড ম্যানেজার

ইংল্যান্ড জার্সিতে ওয়েন রুনির জীবন কি শেষের দিকে? সোমবারের পর জল্পনাটা তীব্র হলে অবাক হওয়ার কিছু নেই। নাটকীয় কিছু না ঘটলে, স্লোভানিয়ার বিরুদ্ধে প্রাক্-বিশ্বকাপ ম্যাচে ইংল্যান্ড নামছে তার অধিনায়ককে বাদ দিয়ে।

নিজস্ব প্রতিবেদন
শেষ আপডেট: ১১ অক্টোবর ২০১৬ ০২:২৭
Share: Save:

ইংল্যান্ড জার্সিতে ওয়েন রুনির জীবন কি শেষের দিকে?

Advertisement

সোমবারের পর জল্পনাটা তীব্র হলে অবাক হওয়ার কিছু নেই। নাটকীয় কিছু না ঘটলে, স্লোভানিয়ার বিরুদ্ধে প্রাক্-বিশ্বকাপ ম্যাচে ইংল্যান্ড নামছে তার অধিনায়ককে বাদ দিয়ে।

ওয়েন রুনিকে বাদ দিয়ে। প্রথম এগারোর বাইরে রেখে।

গ্যারেথ সাউথগেট খুব বেশি দিন ইংল্যান্ড ম্যানেজারের দায়িত্ব থাকছেন, এমন কোনও খবর নেই। কিন্তু যতই তা সংক্ষিপ্ত হোক, এমন এক সিদ্ধান্ত তিনি নিতে যাচ্ছেন যা প্রভাবে মারাত্মক হবে। মাল্টার বিরুদ্ধে গত শনিবার ইংল্যান্ড ২-০ জিতেছিল ঠিকই, কিন্তু ক্যাপ্টেন রুনিকে দর্শকদের প্রবল বিদ্রূপ সহ্য করতে হয়েছিল।

Advertisement

ও দিকে জোসে মোরিনহোর ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড— তারাও যে রুনিকে যে আর অপরিহার্য মনে করে না, ইউনাইটেডের শেষ তিন ম্যাচ থেকেই পরিষ্কার। যেখানে মোরিনহো প্রথম একাদশে রাখেননি রুনিকে। ক্লাব ফুটবলে রুনির ভবিষ্যৎ কী, তা নিয়ে একটা প্রশ্ন ভাল রকম উঠতে শুরু করেছিল। কে জানত, কয়েক দিনের মধ্যে তাঁর আন্তর্জাতিক কেরিয়ারও এত বড় প্রশ্নচিহ্নর মুখে পড়ে যাবে? কে জানত, ইংল্যান্ড ম্যানেজার অনমনীয় হয়ে পড়বেন তাঁকে নিয়ে, কোনও ভাবে আপস করতে চাইবেন না?

সাউথগেট এমন কঠোর সিদ্ধান্তের নেপথ্য কারণ স্পষ্ট করে দিয়েছেন। তাঁর বক্তব্য, টিমের স্বার্থের সঙ্গে আপস করে কাউকে নেওয়া যাবে না। সে যত বড় ফুটবলারই হোক। অতীতে সে যত বলশালী পারফরম্যান্সই ইংল্যান্ডকে দিয়ে থাক। ইংল্যান্ড ম্যানেজারকে জিজ্ঞেসও করা হয় যে, এটা তাঁর কোচিং জীবনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত কী না? ‘‘আমার জীবনের সবচেয়ে বড় সিদ্ধান্ত বলছেন? শুনে রাখুন, টিমের যাতে ভাল হয় সেটা আমাকে দেখতে হবে।’’

মঙ্গলবার খেলার সম্ভাবনা না থাকলেও টিমের সঙ্গে এ দিন প্র্যাকটিস করেছেন রুনি। যেখানে তাঁকে কিছুটা হলেও ছাড়া-ছাড়া দেখিয়েছে। ইংল্যান্ড ম্যানেজার আসলে রুনি নিয়ে কড়া অবস্থান নিয়ে ফেলেছেন। তাঁর সোজা কথা, প্রয়োজন পড়লে রুনিকে বেঞ্চে বসানো হবে। অধিনায়ক কখনও টিমের স্বার্থের উর্ধ্বে নয়।

‘‘আমি যখন ইংল্যান্ড টিম বাছব, দেখব যে কারা কারা রোজ প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচে খেলে। আমাকে সেটা করতে হবে। কারণ আমার সেটাই কাজ,’’ বলে দিচ্ছেন সাউথগেট। ঘটনা হল, প্রতিপক্ষ বিচারে স্লোভেনিয়া বেশ কঠিন। গত দু’টো সাক্ষাৎকারে ইংল্যান্ড এক বার পিছিয়ে পড়ে যাদের বিরুদ্ধে ৩-১ জেতে, আর এক বার জেতে ৩-২। ইংল্যান্ড গোলকিপার জো হার্টও বলে দিচ্ছেন, ‘‘স্লোভেনিয়া ম্যাচ বরাবরই কঠিন হয়।’’ এবং রুনিকে নিয়ে যতই উত্তেজিত হয়ে পড়ুক ব্রিটিশ মিডিয়া, তাঁদের মঙ্গলবারের প্রতিপক্ষের কিন্তু ব্যাপারটা মোটেও আশ্চর্য লাগছে না। স্লোভেনিয়া ম্যানেজার স্রেকো কাতানেক বলেছেন, ‘‘রুনি টিমটার নেতা। ওর অভিজ্ঞতাও বিশাল। কিন্তু একই সঙ্গে এটাও বুঝতে হবে যে, রুনি কোনও তরুণ প্লেয়ারের নাম নয়। তা ছাড়া ওর ফর্মও এখন কিছুটা পড়েছে।’’

ইংল্যান্ডের সর্বকালের অন্যতম সেরা স্ট্রাইকারের সময়টা সত্যি এখন খুব খারাপ যাচ্ছে। টিম তাঁকে আর নেয় না। প্রতিপক্ষও আর তাঁকে ভয় পায় না!

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.