• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

কর্মীদের আয়ুর্বেদিক টোটকা দিল রেল

coronavirus pandemic
ছবি: পিটিআই।

চিকিৎসক, নার্স, অন্যান্য স্বাস্থ্যকর্মী, পুলিশ-সহ জরুরি পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত সব কর্মীই ঝুঁকি নিয়ে ভয়ঙ্কর ভাইরাসের দাপট ঠেকাতে দিনরাত কাজ করে চলেছেন। একই ভাবে পণ্য পরিবহণ ও রক্ষণাবেক্ষণের সঙ্গে যুক্ত রেলকর্মীদেরও করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি নিয়েই নিয়মিত কাজে যোগ দিতে হচ্ছে। প্রতিকূল পরিস্থিতিতে ওই ভাইরাস সংক্রমণের আশঙ্কা ঠেকিয়ে সুস্থ থাকার জন্য কর্মীদের একাধিক টোটকা বাতলে দিয়েছে রেল। তাতে প্রাধান্য পেয়েছে আয়ুর্বেদিক পরামর্শ।

করোনা-তথ্য পেতে এবং সংক্রমণ ঠেকাতে কেন্দ্রের তরফে ‘আরোগ্য সেতু’ নামে একটি অ্যাপ তৈরি করা হয়েছে। সেখানে সাধারণ স্বাস্থ্যবিধির পাশাপাশি রোগ ঠেকানোর জন্য শরীরের প্রতিরোধক্ষমতা বাড়াতে রেলকর্মীদের আয়ুর্বেদ ও ভেষজের উপরে নির্ভর করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। বলা হয়েছে: দিনভর দফায় দফায় গরম জল খেতে হবে। রান্নায় ব্যবহার করতে হবে হলুদ, জিরে ও রসুন। গরম দুধের সঙ্গে গুঁড়োহলুদ মিশিয়ে খেতে হবে। যোগাসন করতে হবে রোজ আধ ঘণ্টা। চ্যবনপ্রাশ ও ভেষজ চা, শুকনো আদা, গুড় খেতে হবে নিয়মিত। নাকে তিলের তেল বা ঘি টানতে বলা হয়েছে। জোয়ান বা পুদিনা সহযোগে শ্বাসের সঙ্গে গরম জলের বাষ্প টানার পরামর্শও আছে।

তবে করোনা সংক্রমণ রুখতে এই সব আয়ুর্বেদিক টোটকা কতটা কার্যকর, তা প্রমাণিত হয়নি। রেলকর্মী সংগঠনের অনেক নেতার বক্তব্য, এগুলি নিতান্তই টোটকা। এর বিজ্ঞানসম্মত ভিত্তি কতটা, তা নিয়ে প্রশ্ন আছে। অনেক রেলকর্মী বলছেন, দূরদূরান্তের স্টেশন বা কেবিনে অনেক সময় পানীয় জলটুকুও মেলে না। সেখানে এত কিছু মেনে চলা সম্ভব নয়। এক রেলকর্মী বলেন, ‘‘বাড়িতে থাকলে এই টোটকা প্রয়োগ সম্ভব। কিন্তু জরুরি পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত হয়ে এগুলো করা মোটেই সম্ভব নয়।’’

আরও পড়ুনখাবার প্যাক করার সময় মুখ দিয়ে কী করছেন? ভাইরাল এই ভিডিয়ো কোথাকার, কবেকার

রবিবার প্রধানমন্ত্রীর আহ্বানে রাত ৯টার আলো নিভিয়ে প্রদীপ জ্বালানোর আহ্বানের পাশাপাশি এই টোটকাও পাঠানো হয়। রেল মন্ত্রকের এই পদক্ষেপের মধ্যে সরকারি নীতির প্রতিফলনই চোখে পড়ছে বলে রেল শ্রমিক সংগঠনগুলির অভিমত।

 

(অভূতপূর্ব পরিস্থিতি। স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিয়ো আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, feedback@abpdigital.in ঠিকানায়। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।)

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন