বেড়াতে গিয়ে বন্ধু থাক বা না থাক, সবচেয়ে বেশি সাহায্য করতে পারে অ্যাপ। স্মার্টফোনে কয়েকটি অ্যাপ থাকা মানেই কিন্তু বেড়ানো সহজ।

দেশের ভিতরে কোথাও বেড়াতে গেলে কারেন্সি এক্সচেঞ্জের প্রয়োজন আপনার হবে না। তবে দেশের বাইরে পা রাখার পরিকল্পনা থাকলে, এই ধরনের একটি অ্যাপ ফোনে ইনস্টল করে নিন। সবচেয়ে কার্যকরী হল এক্সই কারেন্সি অ্যাপটি। প্রথমে অ্যাপে দুটো কারেন্সি সিলেক্ট করে দিতে হবে। এর পরে প্রতি মুহূর্তে অ্যাপই কারেন্সির আপডেট নিতে থাকবে। ফলে আপনি এক্সচেঞ্জ রেট দেখে নিতে পারবেন। অফলাইনেও কাজ করবে এটি। এ ছাড়া ক্যাল-কনভার্ট, কারেন্সি কনভার্ট, মাই কারেন্সি কনভার্টও আছে।

ভাষার সমস্যা থেকে রেহাই পেতে ট্রান্সলেটর অ্যাপ ডাউনলোড করুন। আই-ট্রান্সলেট, গুগল ট্রান্সলেট, ট্রিপ লিঙ্গো, পাপাগো— সংখ্যা অনেক। প্রতি অ্যাপের বিশেষত্ব আলাদা। আই-ট্রান্সলেটে ১০০টিরও বেশি ভাষা রয়েছে। গুগল ট্রান্সলেটে আছে ১০৩টি ভাষার ব্যাকআপ। ৫৯টি আপনি অফলাইনে ব্যবহার করতে পারবেন। ক্যামেরা-ট্রান্সলেশন ব্যবহার করতে পারবেন ৩৭টি ভাষার ক্ষেত্রে। পাপাগো এশিয়ার ভাষা ট্রান্সলেট করতে কার্যকরী।

যাত্রা শুরুর আগে ই-ওয়ালেট অ্যাপ ডাউনলোড করে নিন। দেশের মধ্যে হলে পেটিএম কিংবা ফোনপে ব্যবহার করতে পারেন। বিদেশে পে প্যাল বা গুগল পে কাজে দেয়। টাকা ট্রান্সফার কিংবা জিনিসপত্র কেনার ক্ষেত্রে এই অ্যাপগুলি নির্দিষ্ট কমিশন দাবি করে। এ ক্ষেত্রে প্রয়োজন বুঝে অ্যাপ নির্বাচন করুন। বিনামূল্যে টাকা ট্রান্সফারের ক্ষেত্রে জেলে অ্যাপটির যেমন নাম রয়েছে। আবার বিশ্বের যে কোনও প্রান্তে গেলে সহজে টাকা ট্রান্সফারের ক্ষেত্রে পে প্যাল এক নম্বরে।

আরও পড়ুন: ভাবা’র বুকে এক টুকরো কাশ্মীর

উবার, লিফট বা গেট— বিদেশে বেড়াতে গেলে এর মধ্যে একটি ফোনে রাখতেই হবে। আপনি কোন দেশে বেড়াতে যাচ্ছেন, সেই হিসেবে অ্যাপ নির্বাচন করুন। আমেরিকায় গেলে উবার বা লিফট ডাউনলোড করলে আপনি নিশ্চিন্ত। ব্রিটেন বা ইউরোপে গেলে গেট ডাউনলোড করাই ভাল। উত্তর-পূর্ব এশিয়ায় কাজে আসে গ্র্যাব। অস্ট্রেলিয়ায় গেলে গো ক্যাচ অ্যাপে আস্থা রাখুন।

বেড়াতে গিয়ে স্থানীয় রেস্তরাঁর খোঁজ পেতে কিংবা খাবার আনিয়ে নিতে ফুড ডেলিভারি অ্যাপের বিকল্প নেই। এ ক্ষেত্রে জ়োম্যাটোর কথা ভাবতে পারেন। কোন দেশে বেড়াতে যাচ্ছেন, সেটা মাথায় রেখে অ্যাপ নির্বাচন করুন। আমেরিকা কিংবা কানাডায় গেলে জ়োম্যাটো বা উবার ইটস-এ কাজ চলে যাবে। ইউরোপে গেলে ফুডপ্যান্ডা বা জাস্ট ইট জরুরি।

পকেট আর্থ অ্যাপটি ইনস্টল করা জরুরি। প্রতি মুহূর্তে অবস্থান স্মার্টফোনেই দেখে নিতে পারবেন। এই অ্যাপের সবচেয়ে বড় সুবিধে, অফলাইনেও কাজ করে পকেট আর্থ। পকেট আর্থে ট্রাভেল গাইড রয়েছে। অ্যাপই বলে দেবে আপনার গন্তব্যপথ।

বিদেশে বেড়াতে গেলে ফ্রি ওয়াইফাই ফাইন্ডার অ্যাপটি অবশ্যই ইনস্টল করে নিন। অজানা-অচেনা জায়গায় পৌঁছে গিয়েছেন, অথচ নেটওয়ার্ক নেই। নেট কানেকশনও কাজ করছে না। ফ্রি ওয়াইফাই ফাইন্ডার অ্যাপটি আপনার আশপাশে ফ্রি ওয়াইফাই জ়োন রয়েছে কি না, জানিয়ে দেবে সহজে।

প্রয়োজন পড়লে এম ট্রিপ-ও ডাউনলোড করে নিতে পারেন। কোনও অচেনা জায়গায় বেড়াতে গিয়েছেন, এলাকায় কী দেখবেন বুঝতে পারছেন না? এম ট্রিপই বলে দেবে দর্শনীয় স্থান কী কী।

আরও পড়ুন: জলে কুমির ডাঙায় জাগুয়ার