×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১১ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

ঘোর শ্রাবণে মহিষাসুরমর্দিনীর আরাধনা অম্বিকা কালনায়

২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ১৮:৩১
অপরূপ: অম্বিকা কালনার ১০৮ শিবমন্দির।

অপরূপ: অম্বিকা কালনার ১০৮ শিবমন্দির।



মহিষাসুরমর্দিনী: শ্রাবণের দুর্গা

আরও পড়ুন: বেতলার অরণ্যপথ বেয়ে ক্ষীণকটি কোয়েলের কাছে
কালনার সঙ্গে অম্বিকা জুড়ে গেল কেন? উত্তর পাওয়া গেল সিদ্ধেশ্বরী মন্দিরে গিয়ে। পূজারি জানালেন, এখানে মা কালী ওরফে মা অম্বিকা। এক কালে অম্বিকা ও কালনা দু’টি আলাদা জনপদ ছিল। ভক্তি আন্দোলনের স্রোতে এক হয়ে যায় দু’টি জায়গা। সিদ্ধেশ্বরী মন্দিরের কাছেই ছিল অনন্তবাসুদেব মন্দির এবং কালনার তিন নম্বর পঁচিশ রত্ন মন্দির গোপাল জিউমন্দির। মন্দিরপর্ব শেষ করে চলে গেলাম ভবাপাগলার আশ্রমে। আর তার ফাঁকে ভূরিভোজ সেরে নিয়েছিলাম। কালনায় এসে বিভিন্ন ধরনের ছানার মিষ্টি না চেখে দেখা বোকামি।
কালনায় একটা জায়গা থেকে অন্য জায়গায় টোটো করে যেতে সময় লাগে ৫-১০ মিনিট। সন্ধের সময়ে মায়াবী মৃদু আলোয় সেজে ওঠে রাজবাড়ির মন্দির প্রাঙ্গণ ও ১০৮ শিবমন্দির। আট থেকে আশি... স্থানীয় সব ধর্মের মানুষ বিকেল হতেই এখানে চলে আসেন। মন্দির রক্ষণাবেক্ষণের পাশাপাশি নিজের প্রাচীন সংস্কৃতি ধরে রাখতে সচেতন এখানকার প্রত্যেকে।
Advertisement