Advertisement
০৪ অক্টোবর ২০২২
Sundarban

Royal Bengal Tiger: কাঁকড়া ধরতে গিয়ে বিপদ, সুন্দরবনে মৎস্যজীবীকে তুলে নিয়ে গেল বাঘে

বুধবার ভোরে প্রতিবেশী দু’জনের সঙ্গে ডিঙি নৌকা নিয়ে জঙ্গলে মাছ এবং কাঁকড়া ধরতে গিয়েছিলেন মালতী।

ডিঙি নৌকা করে মাছ ধরতে গিয়ে বাঘের কোপে পড়েন মহিলা।

ডিঙি নৌকা করে মাছ ধরতে গিয়ে বাঘের কোপে পড়েন মহিলা। প্রতীকী ছবি।

নিজস্ব সংবাদদাতা
গোসাবা শেষ আপডেট: ০৬ এপ্রিল ২০২২ ২০:১৭
Share: Save:

জঙ্গলে মাছ ও কাঁকড়া ধরার সময় প্রৌঢ়া মৎস্যজীবীকে তুলে নিয়ে গেল রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার। বুধবার দুপুরে চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে সুন্দরবন ব্যাঘ্র প্রকল্পের অধীন ঝিলার-৩ জঙ্গল লাগোয়া খাঁড়িতে। তড়িঘড়ি বিষয়টি বন দফতর ও থানায় জানিয়েছে নিখোঁজ মৎস্যজীবীর পরিবার। বন দফতরের পক্ষ থেকে নিখোঁজ মৎস্যজীবীর খোঁজে জঙ্গলে তল্লাশি চালানো হচ্ছে।

জানা গিয়েছে, নিখোঁজ মৎস্যজীবীর নাম মালতী সরকার (৬৪)। তিনি গোসাবার লাহিড়ীপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের গ্লাসখালি পূর্বপাড়ার বাসিন্দা। স্থানীয় সূত্রে খবর, বুধবার ভোরে প্রতিবেশী দু’জনের সঙ্গে ডিঙি নৌকা নিয়ে জঙ্গলে মাছ এবং কাঁকড়া ধরতে গিয়েছিলেন মালতী। দুপুর এগারোটা নাগাদ সুন্দরবন ব্যাঘ্র প্রকল্পের অধীন ঝিলার-৩ জঙ্গল লাগোয়া খাঁড়িতে কাঁকড়া ধরছিলেন তাঁরা। সে সময় আচমকা জঙ্গল থেকে বাঘ বেরিয়ে এসে ঝাঁপিয়ে পড়ে মালতীর উপর। সঙ্গীরা কিছু বুঝে ওঠার আগেই ঘাড়ে কামড় বসিয়ে জঙ্গলে চলে যায় বাঘ। সঙ্গীরা বাঘের পিছু ধাওয়া করেও খোঁজ মেলেনি তাঁর। এর পর গ্রামে এসে অন্য মৎস্যজীবীরা প্রৌঢ়ার নিখোঁজ হওয়ার খবর জানান। খবর দেওয়া হয় বন দফতরে।

এর পর বনকর্মীরা জঙ্গলে গিয়ে তল্লাশি শুরু করেন। তবে সুন্দরবন ব্যাঘ্র প্রকল্প দফতর জানিয়েছে, জঙ্গলে মাছ কাঁকড়া ধরার জন্য কোন বৈধ অনুমতি ছিল না ওই মৎস্যজীবীদের। এ বিষয়ে সুন্দরবন ব্যাঘ্র প্রকল্প দফতরের সহ ক্ষেত্র অধিকর্তা জোনস জাস্টিন জানিয়েছেন, ‘‘গত অক্টোবর থেকেই জঙ্গলে ঢোকার উপর কড়া নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। নজরদারিও চলছে জোর কদমে। অথচ, অবৈধভাবে এদিন মৎস্যজীবীরা জঙ্গলে গিয়েছিল। ঘটনাস্থলে বনকর্মীরা আছে, নিখোঁজ মৎস্যজীবীর খোঁজে তল্লাশি চলছে।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.