×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

০৯ মে ২০২১ ই-পেপার

বন্ধুকে গুলি করে খুন, ধৃত যুবক

নিজস্ব সংবাদদাতা
২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ০১:৩৫

বচসার জেরে বন্ধুকে গুলি করে খুনের অভিযোগ উঠল এক তরুণের বিরুদ্ধে।

শুক্রবার রাতে হালিশহরের উত্তর বালিভারা এলাকার ঘটনা। নিহতের নাম রাহুল ঠাকুর (২২)। এই ঘটনায় বীজপুর থানার পুলিশ রাতেই অভিযুক্ত শুভদীপ দাসকে গ্রেফতার করেছে। রাহুলের পরিবারের অভিযোগ, শুভদীপ এলাকায় মদের ঠেক চালাত। রাহুল অনেক বার তাকে বারণ করেছেন। তা নিয়ে এর আগেও তাঁদের মধ্যে গোলমাল হয়েছিল। মদের ঠেকের প্রতিবাদ করাতেই তাঁকে গুলি করা হয় বলে অভিযোগ। শনিবার দুপুরে কল্যাণীর জেএনএম হাসপাতালে গুলিবিদ্ধ রাহুলের মৃত্যু হয়।

রাহুলের স্ত্রী প্রিয়াঙ্কা শুভদীপের বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ দায়ের করেন। মোবাইল টাওয়ার লোকেশন দেখে কাছাকাছি এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয় শুভদীপকে। পুলিশ জানিয়েছে, জেরায় সে দাবি করেছে, রাহুল তার মাকে নিয়ে কটূক্তি করেছিল রাহুল। তাই নিয়ে বচসার সময়ে রাহুল বাঁশ দিয়ে শুভদীপকে মারে। তখন নিজের সঙ্গে থাকা নাইন এমএম রিভলভার বের করে গুলি চালিয়ে দেয় সে। পুলিশ এই দাবি খতিয়ে দেখছে।

Advertisement

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, রাহুল এবং শুভদীপ একই এলাকার বাসিন্দা, বাল্যবন্ধু। রাহুল স্থানীয় একটি বেসরকারি সংস্থায় কাজ করতেন। তাঁর এক বছরের ছেলে রয়েছে। রাহুলের সমবয়সী শুভদীপ একটি ঝুপরিতে একাই থাকত। বিভিন্ন ধরনের অসামাজিক কাজের সঙ্গে যুক্ত ছিল সে। তোলাবাজিরও অভিযোগ রয়েছে। এলাকার বাসিন্দারা জানিয়েছেন, পাড়ায় একটি মদের ঠেক চালায় শুভদীপ।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, প্রায় দিনই রাতে শুভদীপ-রাহুল এক সঙ্গে আড্ডা দিত। শুক্রবারও তারা বাড়ির কাছাকাছি একটি জায়গায় বসেছিল। রাত ১০টা নাগাদ সেখান থেকে গুলির শব্দ শোনা যায়। স্থানীয় বাসিন্দারা ছুটে গিয়ে দেখেন, রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে রাহুল। প্রিয়াঙ্কাও চলে আসেন। রাহুল তখনও পড়ে যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছেন। পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। কিছুক্ষণের মধ্যে টহলদারি পুলিশ ভ্যান সেখানে হাজির হয়। তারাই রাহুলকে কল্যাণীর হাসপাতালে নিয়ে যায়। রাতে রাহুলের অস্ত্রোপচার হয়। কিন্তু শেষমেশ বাঁচানো যায়নি।

Advertisement