Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২১ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

Joy Banerjee: পদ্মফুল ছেড়ে জোড়াফুলের পথে অভিনেতা জয়, বিকেলে বক্সী-বৈঠক

শনিবার বিকেলে বিধাননগর পুরসভায় তৃণমূলের রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সীর সঙ্গে দেখা করতে যাচ্ছেন জয়।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ২৯ জানুয়ারি ২০২২ ১৩:৩২
Save
Something isn't right! Please refresh.
তৃণমূলের যোগ দিতে পারেন জয় বন্দ্যোপাধ্যায়।

তৃণমূলের যোগ দিতে পারেন জয় বন্দ্যোপাধ্যায়।
ফাইল চিত্র।

Popup Close

বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলের পথে অভিনেতা জয় বন্দ্যোপাধ্যায়।গত বছর ৬ নভেম্বর আনুষ্ঠানিক ভাবে বিজেপি ছাড়ার কথা ঘোষণা করেছিলেন তিনি। তারপর থেকেই বাংলার শাসকদলের সঙ্গে আলোচনা শুরু হয়েছিল তাঁর। জল্পনার অবসান ঘটিয়ে শনিবার বিকেলে বিধাননগর পুরভবনে তৃণমূলের রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সীর সঙ্গে দেখা করতে যাচ্ছেন তিনি। তৃণমূলের রাজ্য সভাপতির সঙ্গে তাঁর সাক্ষাতের কথা অস্বীকার করেননি জয়ও।

শনিবার জয় বলেন, ‘‘বিজেপি-র বাঙালি-বিরোধী অবস্থান দেখেই সরে এসেছি। একের পর এক বাঙালি-বিরোধী অবস্থান নিয়েই চলেছে বিজেপি সরকার। তার প্রতিবাদ করেই দল ছেড়ে এসেছি।’’ তিনি আরও বলেন, ‘‘আমি সুব্রত বক্সীর সঙ্গে দেখা করতে যাচ্ছি। বাংলার ভাল চায়, বাংলার সঙ্গে আত্মিক যোগ রয়েছে, এমন কোনও রাজনৈতিক দল আমাকে যোগদানের প্রস্তাব দিলে আমি অবশ্যই সেখানে যোগ দেব।’’

সূত্রের খবর, আনুষ্ঠানিকভাবে তৃণমূলের পতাকা হাতে না নিলেও শনিবার সন্ধ্যায় তৃণমূলে যোগদান কার্যত হয়েই যাচ্ছে তাঁর। আনুষ্ঠানিকতা আপাতত সময়ের অপেক্ষা। যদি না শেষমুহূর্তে নাটকীয় কোনও রদবদল হয়।

Advertisement

প্রসঙ্গত, ২০০৯-’১০ সাল থেকে তৃণমূলের মঞ্চে দেখা গেলেও ২০১৪ সালের লোকসভা ভোটের আগে জয় আনুষ্ঠানিকভাবে বিজেপি-তে যোগ দেন। বীরভূমে বিজেপি-র প্রার্থী হয়ে পরাজিত হন। তারপর বিজেপি-র জাতীয়কার্যনির্বাহী সমিতির সদস্যও ছিলেন তিনি। ২০১৬ সালে জয় সিউড়ি বিধানসভায় বিজেপি-র প্রার্থী হন। কিন্তু জয় হয়নি তাঁর। ২০১৯ সালে উলুবেড়িয়া লোকসভা ভোটে দ্বিতীয় স্থানে শেষ করেন তিনি। তবে ২০২১ সালের বিধানসভা ভোটে টিকিট পাননি জয়। তারপর থেকেই দলের থেকে দূরত্ব বাড়তে শুরু করে জয়ের। গত বছর ৬ নভেম্বর বিজেপি-র সঙ্গে সম্পর্ক পুরোপুরি বিচ্ছিন্ন করার কথা ঘোষণাও করেছিলেন তিনি। তখন থেকেই তৃণমূলের সঙ্গে কথাবার্তা চলছিল তাঁর। এখন তাঁর শাসক তৃণমূলে যোগদান কেবল সময়ের অপেক্ষা বলেই মনে করা হচ্ছে।



Something isn't right! Please refresh.

আরও পড়ুন

Advertisement