Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০১ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

Adhir Ranjan Chowdhury: কাকমারিতে স্থলবন্দরের প্রস্তাব অধীরের, বিবেচনা করা হবে জানাল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ০৩ অগস্ট ২০২১ ১৯:১৪
অধীর রঞ্জন চৌধুরী।

অধীর রঞ্জন চৌধুরী।

বাংলার দরিদ্র এবং বেকার যুবকদের নিয়ে অধীর চৌধুরীর ভাবনার প্রশংসা করল কেন্দ্র। সেই সঙ্গে এ-কথাও জানাল যে, তাঁর মুর্শিদাবাদে স্থলবন্দর তৈরির প্রস্তাব বিবেচনা করে দেখা হবে।

মুর্শিদাবাদের জলঙ্গি ব্লকের কাকমারিতে একটি স্থলবন্দর চেয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে চিঠি লিখেছিলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর। শুক্রবার লেখা সেই চিঠির জবাব এল চার দিনের মাথায়। মঙ্গলবার জবাবি চিঠিতে কেন্দ্র জানিয়েছে, বাংলার বেকার এবং দরিদ্র যুবকদের নিয়ে অধীরের উদ্বেগ প্রশংসনীয়। মুর্শিদাবাদে বেআইনি কার্যকলাপ ঠেকাতে অধীর যে পরামর্শ দিয়েছেন তা নিয়ে বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে আলোচনাও করেছে কেন্দ্র। গোটা বিষয়টি বিবেচনা করে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছে তারা।

অধীর চিঠিতে জানিয়েছিলেন, সীমান্ত পারাপারের সরকারি ব্যবস্থা নেই বলেই মুর্শিদাবাদে অবৈধ কার্যকলাপ বাড়ছে। তিনি লিখেছিলেন, ‘জলঙ্গিতে অধিকাংশই দরিদ্র শ্রেণির মানুষের বাস। তাদের টাকার লোভ দেখিয়ে অনেক সময়েই সীমান্ত সংক্রান্ত বেআইনি কার্যকলাপ করিয়ে নেওয়া হয়। সীমান্ত পারাপারের সরকারি ব্যবস্থা থাকলে বেআইনি ভাবে সীমান্ত পারাপারের সমস্যা যেমন মিটবে। তেমনই তা থেকে রাজস্ব আদায়ও করতে পারবে সরকার।

Advertisement

প্রধানমন্ত্রীকে লেখা সেই চিঠির জবাব অবশ্য দিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। স্বরাষ্ট্র দফতরের প্রতিমন্ত্রী নিত্যানন্দ রাই জবাবি চিঠিতে লিখেছেন, ‘আপনার অভিযোগ আমি সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞদের দিয়ে যাচাই করিয়েছি। আপনার পরামর্শ অনুযায়ী দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য, যাত্রী পারাপারের জন্য মুর্শিদাবাদের জলঙ্গিতে স্থলবন্দর বানানোর প্রস্তাব বিবেচনা করে দেখা হচ্ছে।’

অধীর মুর্শিদাবাদের সীমান্ত সংলগ্ন অবস্থানের বিশদ জানিয়ে বলেছিলেন, সরকার যদি এখানে একটি যথাযথ বর্ডার পোস্ট তৈরি করে তবে স্থানীয় গ্রামবাসীরাই বৈধ পথে ব্যবসা করবে। বেআইনি কার্যকলাপ এবং চোরাচালানও কমবে।

আরও পড়ুন

Advertisement