Advertisement
২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২
Anubrata Mandal

Mamata-Anubrata: দিদি পাশে থাকবেনই, মমতার সমর্থন পেয়ে পুরনো মেজাজে কেষ্ট, ধমক সাংবাদিককে

হঠাৎই ‘আত্মবিশ্বাসী’ অনুব্রত মণ্ডল। বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্যপরীক্ষা করতে যাওয়ার পথে প্রথম সংবাদমাধ্যমে মুখ খুললেন কেষ্ট।

মমতার বার্তা পেয়েই কি আত্মবিশ্বাসী অনুব্রত?

মমতার বার্তা পেয়েই কি আত্মবিশ্বাসী অনুব্রত? ফাইল চিত্র।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ১৮ অগস্ট ২০২২ ১২:৩৮
Share: Save:

তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে তাঁর পাশে আছেন, তা তিনি জানেন। এ নিয়ে তাঁর সংক্ষিপ্ত প্রতিক্রিয়া, ‘‘দিদি তো পাশে থাকবেনই।’’ বৃহস্পতিবার আলিপুর কমান্ড হাসপাতালে যাওয়ার পথে একটি টিভি চ্যানেলকে এ কথা বলেন অনুব্রত মণ্ডল। মমতার প্রসঙ্গ তুলে তাঁকে প্রশ্ন করা হয়েছিল, দিদি তো আপনার পাশেই রয়েছেন। কী বলবেন? জবাবে কেষ্ট বলেন, ‘‘ঠিকই তো বলেছেন। উনি বলবেন না! এ নিয়ে আমি আর কী বলব।’’

বস্তুত, বৃহস্পতিবারই প্রথম সংবাদমাধ্যমের প্রশ্নের উত্তর দিলেন অনুব্রত। একই সঙ্গে তাঁকে কিছুটা পুরনো মেজাজেও দেখা গেল। মেয়েকে নিয়ে প্রশ্ন করতেই বিরক্ত অনুব্রত সংবাদমাধ্যমকে পাল্টা ধমক দেন। এক সাংবাদিককে বলতে শোনা যায়, ‘‘আপনি কোন হরিদাস পাল! আমার মেয়ের পাশ করা আছে। সার্টিফিকেট আছে।’’ তারই পর আসে মমতার প্রসঙ্গ।

প্রসঙ্গত, প্রাক্‌ স্বাধীনতা দিবস উদ্‌যাপনের অনুষ্ঠানে বেহালায় গিয়ে অনুব্রতের পাশে থাকার বার্তা দেন মমতা। অনুব্রতের আইনজীবী সূত্রে জানা গিয়েছে, তার পর থেকেই ‘আত্মবিশ্বাস’ অনেকটা বেড়ে যায় কেষ্টর। বীরভূমের ওই তৃণমূল নেতা অসুস্থ হওয়া সত্ত্বেও যে তাঁর মধ্যে সেই আত্মবিশ্বাসের ঝলক দেখা যাচ্ছে তা-ও জানান তাঁর আইনজীবী অনির্বাণ গুহঠাকুরতা। বৃহস্পতিবার নিজাম প্যালেসের সামনে সম্ভবত সেই আত্মবিশ্বাসেরই বহিঃপ্রকাশ দেখা গেল।

ঘটনাচক্রে, রবিবার যেখানে দাঁড়িয়ে অনুব্রতের পাশে থাকার বার্তা দিয়েছিলেন মমতা, সেটি ছিল গ্রেফতার হওয়া আর এক তৃণমূল নেতা পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বিধানসভা কেন্দ্র বেহালা পশ্চিম। অনুব্রতের প্রশংসা করলেও, রবিবার পার্থ সম্পর্কে প্রায় নীরব ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। তৃণমূলনেত্রী আগে বলেছিলেন, ‘আইন আইনের পথে চলবে’। এর আগে দলের তরফেও একই বার্তা দেওয়া হয়েছিল। তা ছাড়া আর একটি মন্তব্যও করেননি মুখ্যমন্ত্রী। যদিও সেখানে দাঁড়িয়েই বীরভূমের তৃণমূল সভাপতি অনুব্রতের পাশে থাকার বার্তা দেন মমতা। তিনি জানিয়েছিলেন, অনুব্রত কিছুই চান না। এমনকি, তিনি রাজ্যসভায় পাঠাতে চাইলেও ‘কেষ্ট’ রাজি হননি।

অনুব্রতের আইনজীবীও সোমবার দাবি করেন, তাঁর মক্কেল নির্দোষ। দলনেত্রীর বার্তা পেয়ে তাঁর মক্কেলের আত্মবিশ্বাস বেড়ে গিয়েছে বলেও দাবি করেন তিনি। অনির্বাণ বলেন, ‘‘উনি জেনেছেন যে, দলনেত্রী ওঁকে সমর্থন করেছেন। তাতে ওঁর আত্মবিশ্বাস বেড়েছে। উনি বলেছেন, আমি জানতাম দিদি আমার পাশে এসে দাঁড়াবেন। আমাকে অন্যায় ভাবে গ্রেফতার করা হয়েছে। আমার সঙ্গে কোনও ভাবে এই ঘটনার যোগ নেই।’’

আরও পড়ুন:
আরও পড়ুন:
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.