Advertisement
০৭ ডিসেম্বর ২০২২
Anubrata Mondal

মহালয়ার ভোরে জেলে বসে রেডিয়োয় ‘মহিষাসুরমর্দ্দিনী’ শুনলেন অনুব্রত মণ্ডল, খেলেন নিরামিষও

সংশোধনাগার সূত্রে জানা গিয়েছে, যে কোনও বিশেষ দিনে আবাসিকদের জন্য একটু আলাদা ব্যবস্থা রাখা হয়। মহালয়ার ভোরে প্রতি বছর আবাসিকদের রেডিয়োয় ‘মহিষাসুরমর্দ্দিনী’ শোনানো হয়।

অনুব্রত মণ্ডল।

অনুব্রত মণ্ডল। ফাইল চিত্র।

সুশান্ত বণিক
আসানসোল শেষ আপডেট: ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ ০৬:১০
Share: Save:

অন্য দিন সাধারণত সকাল ৯টা নাগাদ ঘুম থেকে ওঠেন তিনি। গরু পাচার মামলায় সিবিআইয়ের হাতে গ্রেফতার হয়ে জেল হেফাজতে থাকা বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল রবিবার অবশ্য উঠে পড়লেন দিনের আলো ফোটার আগেই। মহালয়ার ভোরে রেডিয়োয় শুনলেন ‘মহিষাসুরমর্দ্দিনী’, এমনটাই জানা গিয়েছে আসানসোলের বিশেষ সংশোধনাগার সূত্রে।

Advertisement

সংশোধনাগার সূত্রে জানা গিয়েছে, যে কোনও বিশেষ দিনে আবাসিকদের জন্য একটু আলাদা ব্যবস্থা রাখা হয়। মহালয়ার ভোরে প্রতি বছর আবাসিকদের রেডিয়োয় ‘মহিষাসুরমর্দ্দিনী’ শোনানো হয়। এ বারও তার অন্যথা হয়নি। অন্য আবাসিকদের সঙ্গে এ দিন ভোরে ঘুম থেকে উঠে অনুষ্ঠানটি শুনেছেন অনুব্রত ওরফে কেষ্ট। তবে তার পরে কিছুক্ষণ বিছানাতেই কাটিয়েছেন তিনি। সংশোধনাগারে তর্পণের কোনও ব্যবস্থা থাকে না। কল থেকে জল নিয়ে স্নান করে পিতৃপুরুষকে স্মরণ করেছেন তিনি, দাবি সংশোধনাগার সূত্রের।

রবিবার আবাসিকদের পাতে ছিল মাছ-ভাত। কিন্তু এ দিন আমিষ খাননি অনুব্রত। সংশোধনাগার সূত্রে জানা যায়, নিরামিষ খাবারের জন্য আর্জি জানানোয়, তাঁর জন্য লাউ-পটল-আলুর তরকারির ব্যবস্থা করা হয়। জেল কর্তৃপক্ষ জানান, পুজোর কয়েকটি দিনের জন্য আবাসিকদের খাবারের তালিকা বরাবরই একটু পাল্টানো হয়। এ বার পুজোয় বিভিন্ন দিনে দেশি মুরগির ঝোল, খিচুড়ি, দই-কাতলা, পায়েস— এমন নানা আয়োজন রাখা হতে পারে বলে সংশোধনাগার সূত্রে জানা গিয়েছে। ঘটনাচক্রে, সংশোধনাগারে আসার পরে অনুব্রত পুকুরের মাছ ও দেশি মুরগির ঝোলের জন্য আবদার করেছিলেন।

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.