Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৮ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

রায়না

যুবকের মৃত্যু, অভিযোগ প্রেমিকার বাড়ির বিরুদ্ধে

নিজস্ব সংবাদদাতা
বর্ধমান ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ ০০:১৫

প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন যুবক। রাতে সেখানেই থাকার কথা ছিল। কিন্তু কয়েক ঘণ্টার মধ্যে বাসস্ট্যান্ডে অসুস্থ অবস্থায় পাওয়া যায় তাঁকে। শনিবার রাতে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকেরা জানান, কীটনাশক পান করে মৃত্যু হয়েছে অমিত রায় নামে ওই যুবকের। পরে অমিতের বাবা ওই প্রেমিকা ও তার বাবা-মায়ের নামে ছেলেকে খুনের অভিযোগ করেন রায়না থানায়।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বাঁকুড়ার সোনামুখী থানার মেথড়া গ্রামের অমিত বিষ্ণুপুরে একটি বেসরকারি সংস্থায় কাজ করতেন। বর্ধমানের রায়নার নাড়ুগ্রামের এক তরুণীর সঙ্গে তাঁর দীর্ঘ দিনের পরিচয় ও ঘনিষ্ঠতা ছিল। আগামী বৈশাখে দু’বাড়ির সম্মতিতে বিয়েও ঠিক হয়েছিল দু’জনের। জানা গিয়েছে, ঘনিষ্ঠতা সুবাদে প্রতি শনিবারই রায়নায় যেতেন অমিত। রবিবার প্রেমিকার বাড়িতে থেকে সোমবার বিষ্ণুপুরে ফিরতেন। অমিতের বাবা বংশীধর রায়ের দাবি, এই শনিবারও নারুগ্রামে গিয়েছিল ছেলে। সন্ধ্যা সাতটা নাগাদ ফোন করে বাড়ি ফিরবে না বলেও জানিয়েছিল। কিন্তু কিছুক্ষণ পরে হবু বৌমার ফোন পান তাঁরা। বংশীবাবুর দাবি, ‘‘ও ফোন করে বলে অমিত কীটনাশক পান করেছে। তাঁকে বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। সেখানে যোগাযোগ করুন।’’ কিন্তু ব্যাপারটি ভাল করে জানতে, ছেলের খবর নিতে বারবার হবু বৌমাকে ফোন করা হলেও সে আর ফোন ধরেনি বলে বংশীবাবুর দাবি। রাতে বর্ধমান মেডিক্যালে পৌঁছে ওদের পরিবারের কাউকে দেখতে পাননি তাঁরা। তাঁর অভিযোগ, ‘‘আমার ছেলেকে বিষ খাইয়ে খুন করেছে ওরা।’’

যদিও নাড়ুগ্রামের ওই তরুণীর দাদুর দাবি, ‘‘বিয়ে ঠিক হওয়ার পরে অমিত প্রতি সপ্তাহেই আসা-যাওয়া করত। কিন্তু এ দিন এসে তখনই নাতনিতে বিয়ে করতে চায়।’’ তাঁরা রাজি না হয়ে অমিতকে নিজের বাড়িতে বিষয়টি আলোচনার কথা বলেন। রাতে বাড়ি ফিরে যেতেও বলেন। সেই মতো ওই তরুণীর বাবা অমিতকে সাইকেলে করে বাসস্ট্যান্ডে পৌঁছেও দিয়ে আসেন বলে তাঁদের দাবি। কিছুক্ষণ পরে এলাকার লোকজন মারফত তাঁরা খবর পান, অমিত অসুস্থ হয়ে পড়েছে, ছটফট করছে। এরপরে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় তাঁকে। ওই তরুণীর পরিবারের দাবি, হাসপাতালে অমিতের পরিবারের লোকজন তাঁদের নামে মিথ্যা অভিযোগ করে মারধর করেছে। তাই ভয়ে বাড়ি যান তাঁরা।

Advertisement

রায়না থানার পুলিশ জানিয়েছে, দেহ ময়না-তদন্তে পাঠানো হয়েছে। অভিযোগের বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। ওই তরুণীর বাড়ির লোকজন এলাকাছাড়া বলেও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন

Advertisement