×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৭ মে ২০২১ ই-পেপার

সহায়ক মূল্যে ধান কিনতে অস্বীকার, রাইস মিলের রাস্তা কাটলেন চাষিরা

নিজস্ব সংবাদদাতা
বর্ধমান ২০ নভেম্বর ২০২০ ১৭:৪৮
জেসিবি মেশিন দিয়ে রাস্তা কাটছেন চাষিরা। —নিজস্ব চিত্র

জেসিবি মেশিন দিয়ে রাস্তা কাটছেন চাষিরা। —নিজস্ব চিত্র

সরকার নির্ধারিত সহায়ক মূল্যে ধান কিনতে অস্বীকার করায় রাইসমিলের রাস্তা কেটে প্রতিবাদ জানালের কৃষকরা। শুক্রবার এই ঘটনা ঘিরে উত্তেজনা ছড়ায় বর্ধমানের গলসিতে। রাইস মিলের গেটের সামনে দীর্ঘক্ষণ অবস্থান-বিক্ষোভও দেখান এলাকার চাষীরা। বিষয়টি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন পূর্ব বর্ধমান জেলা পরিষদ কর্তৃপক্ষ।

গলসি ১ ব্লকের গলিগ্রাম, মথুরাপুর, অনুরাগপুরের মতো গ্রামে বেশ কয়েকটি রাইস মিল রয়েছে। এর মধ্যে আর এস অ্যাগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ ও বাবা মল্লেশ্বর রাইস মিল কর্তৃপক্ষ চাষিদের কাছ থেকে ধান কেনার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। কিন্তু দক্ষিণেশ্বর রাইস মিলের মালিক পক্ষ ধান কিনতে অস্বীকার করে। তার প্রতিবাদেই সকাল থেকে দক্ষিণেশ্বর রাইস মিলের সামনে জমায়েত হয়ে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন এলাকার কৃষকরা।

দীর্ঘক্ষণ এই অবস্থা চলার পরেও মিল কর্তৃপক্ষ কোনও সদর্থক ভূমিকা নেয়নি বলে অভিযোগ চাষিদের। এর পরেই তাঁরা ক্ষিপ্ত হয়ে চাষিরা জেসিবি মেশিন নিয়ে এসে রাইস মিলে ঢোকার রাস্তা কেটে দেন। স্থানীয় কৃষক সুভাষ চট্টোপাধ্যায়, হারাধন ঘোষ, উত্তম ঘোষরা বলেন, ‘‘এই রাইসমিলগুলির বর্জ্য ও ছাইয় আমাদের জমিতে পড়ায় দূষণে চাষে ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে। অথচ ধান কিনতে চাইছে না। এটা মেনে নেওয়া যায় না।’’

Advertisement

আরও পড়ুন: শীতের আমেজ আগামী সপ্তাহে, সোমবার থেকে নামবে তাপমাত্রা, জানাল হাওয়া অফিস

আরও পড়ুন: নিউটাউনে সেন্ট জেভিয়ার্সের অধ্যাপককে সপরিবার বেধড়ক মার, অভিযুক্ত প্রতিবেশী

বিষয়টি খতিয়ে দেখে জেলা পরিষদের সহ সভাপধিপতি দেবু টুডু বলেন, ‘‘ধান কেনার বিষয়ে সরকারি নির্দেশিকা আছে। সরকারি সহায়ক মূল্যে ধান বিক্রিতে কোনও সমস্যা বা জটিলতা থাকার কথা নয়। বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখব।’’

Advertisement