Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৬ জুলাই ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

প্রকল্প রিপোর্টেই থমকে বাস টার্মিনাসের উদ্যোগ

২০১৮ সালের ৫ মার্চ দুর্গাপুরে প্রশাসনিক সভায় মুখ্যমন্ত্রীর কাছে বণিকসভার প্রতিনিধি কবি দত্ত শহরে আধুনিক বাসস্ট্যান্ডের আর্জি জানান।

সুব্রত সীট
দুর্গাপুর ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ০১:৪৬
Save
Something isn't right! Please refresh.
দুর্গাপুরের সিটি সেন্টার বাসস্ট্যান্ড

দুর্গাপুরের সিটি সেন্টার বাসস্ট্যান্ড

Popup Close

বছর দুয়েক আগে দুর্গাপুরে প্রশাসনিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে আন্তঃরাজ্য বাস টার্মিনাস গড়ার দাবি জানিয়েছিলেন বণিকসভার প্রতিনিধিরা। বিষয়টি পরিবহণ দফতরকে দেখার নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী। কিন্তু তার পরে আসানসোল-দুর্গাপুর উন্নয়ন পর্ষদের (এডিডিএ) তরফে উপযুক্ত প্রকল্প রিপোর্ট (ডিপিআর) জমা না পড়ায় বিষয়টি এগোয়নি বলে অভিযোগ।

দুর্গাপুরের সিটি সেন্টার বাসস্ট্যান্ড, বেনাচিতির প্রান্তিকা বাসস্ট্যান্ড ও স্টেশন লাগোয়া বাসস্ট্যান্ড থেকে দূরপাল্লার বাস ছাড়ে। এ রাজ্যের নানা অঞ্চল ছাড়াও ভিন্‌ রাজ্যের রাঁচি, দেওঘর, জামশেদপুর, টাটা, ভুবনেশ্বর, পুরীর বাসও চলাচল করে। কিন্তু শহরে কোনও কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাস নেই। ২০১৩ সালে এডিডিএ বন্ধ বিওজিএল কারখানা লাগোয়া নিজস্ব জায়গায় একটি আধুনিক বাস টার্মিনাস গড়ার পরিকল্পনা নেয়। প্রাথমিক ভাবে ঠিক হয়, বাস টার্মিনাসে টিকিট কাউন্টার, প্রতীক্ষালয়, রাত্রিবাসের জায়গা, এটিএম, রেস্তোরাঁ, বেসরকারি পরিবহণ সংস্থা ও ক্যুরিয়র সংস্থার অফিস, দোকানপাট, পেট্রোল পাম্প— সব থাকবে। প্রকল্পের নকশা চেয়ে দরপত্র ডাকে এডিডিএ। কিন্তু তার পরে আর বিষয়টি এগোয়নি।

২০১৮ সালের ৫ মার্চ দুর্গাপুরে প্রশাসনিক সভায় মুখ্যমন্ত্রীর কাছে বণিকসভার প্রতিনিধি কবি দত্ত শহরে আধুনিক বাসস্ট্যান্ডের আর্জি জানান। মুখ্যমন্ত্রী বিষয়টি বৈঠকে উপস্থিত তৎকালীন পরিবহণ সচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে দেখার নির্দেশ দেন। এর পরেই দুর্গাপুরে প্রশাসনের তরফে বৈঠক হয়। এডিডিএ সূত্রে জানা গিয়েছে, প্রাথমিক ভাবে একটি ডিপিআর পাঠানো হয়। পরিবহণ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী গত বছর দুর্গাপুরে এক অনুষ্ঠানে জানান, এডিডিএ-র প্রস্তাব দেখা হচ্ছে। কিন্তু দফতর সূত্রে জানা যায়, প্রস্তাবটি পরীক্ষা করে উপযুক্ত মনে হয়নি।

Advertisement

এডিডিএ সূত্রে জানা গিয়েছে, নতুন করে ডিপিআর পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে। এ বার বেসরকারি পেশাদার সংস্থাকে দিয়ে ডিপিআর তৈরি করানো হবে। এডিডিএ কর্তাদের দাবি, জায়গা নির্দিষ্ট হয়ে গিয়েছে। তাই ডিপিআর চূড়ান্ত হয়ে গেলে পরবর্তী ধাপগুলি দ্রুত সেরে ফেলা যাবে। বিওজিএল লাগোয়া প্রায় ৪৫ একর জমি রয়েছে এডিডিএ-র। সেখানে বাস টার্মিনাস গড়তে ৮-১০ একরের বেশি লাগার কথা নয়। এডিডিএ-র চেয়ারম্যান তাপস বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘‘একটি সংস্থাকে দিয়ে ডিপিআর তৈরির জন্য অনুমতি চাওয়া হয়েছে। তা পেয়ে গেলেই পরবর্তী পদক্ষেপ করা হবে।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement