Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৮ অগস্ট ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

Asansol By Election: বাবুলের ছেড়ে যাওয়া আসানসোলে বিহারি বাবু, নাম ঘোষণা হতেই মাঠে কর্মীরা, খোঁচা বিজেপি-র

আগামী ১২ এপ্রিল আসানসোল লোকসভা কেন্দ্র এবং বালিগঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রে উপনির্বাচন। ১৬ এপ্রিল ভোটগণনা। তাই প্রার্থী ঘোষণা হতেই প্রচারে নেমে পড়েছে তৃণমূল। রবিবার থেকেই কুলটি, রানিগঞ্জ, জামুড়িয়া, বারাবনি-সহ অনেক জায়গাতেই দেওয়াল লিখনের কাজ শুরু করে দিয়েছেন তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা।

নিজস্ব সংবাদদাতা
আসানসোল ১৩ মার্চ ২০২২ ১৭:০৬
Save
Something isn't right! Please refresh.
শত্রুঘ্ন সিনহার সমর্থনে দেওয়াল লিখন তৃণমূল কর্মীদের।

শত্রুঘ্ন সিনহার সমর্থনে দেওয়াল লিখন তৃণমূল কর্মীদের।
—নিজস্ব চিত্র।

Popup Close

আসানসোলে লোকসভা উপনির্বাচনে শত্রুঘ্ন সিন্‌হাকে প্রার্থী ঘোষণা করেছে তৃণমূল। সেই ঘোষণার কিছু ক্ষণের মধ্যেই এলাকায় প্রচারে নেমে পড়লেন জোড়াফুল শিবিরের নেতা-কর্মীরা। আয়োজন করা হয়েছে কর্মিসভারও। তবে আসানসোলে তৃণমূলের প্রার্থী নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে বিজেপি। শত্রুঘ্নকে ‘বহিরাগত’ বলে কটাক্ষ করেছেন সেখানকার গেরুয়া শিবিরের নেতারা। যদিও বিজেপি-র এই খোঁচা গায়ে মাখছে না তৃণমূল। সদ্য আসানসোল পুরনিগমের ভোটে জিতে বোর্ড গঠন করেছে জোড়াফুল শিবির। সেই ভিতের উপরে দাঁড়িয়ে জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী রাজ্যের শাসকদল।
বালিগঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনে তৃণমূল প্রার্থী করেছে বাবুল সুপ্রিয়কে। আর বাবুলের ছেড়ে আসা লোকসভা আসন আসানসোলের উপনির্বাচনে জোড়াফুল শিবিরের প্রার্থী শত্রুঘ্ন। রবিবার টুইট করে এ কথা জানিয়েছেন দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বিজেপি-র প্রার্থী হয়ে আসানসোল লোকসভা থেকে পর পর দু’বার (২০১৪ এবং ২০১৯-এর লোকসভা নির্বাচন) সাংসদ হয়েছিলেন বলিউডের সঙ্গীতশিল্পী বাবুল। যদিও পরে বাবুল বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন। ছেড়েছেন সাংসদ পদও। সে কারণেই আসানসোল লোকসভায় উপনির্বাচন। বাবুলের ছেড়ে আসা সেই আসানসোলে রবিবার শত্রুঘ্নকে প্রার্থী হিসাবে ঘোষণা করেছে তৃণমূল। ঘটনাচক্রে বাবুলের মতো শত্রুঘ্নের গায়েও তারকার তকমা। আবার তিনিও বাবুলের মতো বিজেপি ছেড়েছিলেন।

আগামী ১২ এপ্রিল আসানসোল লোকসভা কেন্দ্র এবং বালিগঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রে উপনির্বাচন। ১৬ এপ্রিল ভোটগণনা। তাই প্রার্থী ঘোষণা হতেই প্রচারে নেমে পড়েছে তৃণমূল। রবিবার থেকেই কুলটি, রানিগঞ্জ, জামুড়িয়া, বারাবনি-সহ অনেক জায়গাতেই দেওয়াল লিখনের কাজ শুরু করে দিয়েছেন তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা। আসানসোলের বিধায়ক তথা রাজ্যের মন্ত্রী মলয় ঘটকের কথায়, ‘‘শত্রুঘ্ন সিনহা সাংসদের দায়িত্ব সামলেছেন। উনি হিন্দি চলচ্চিত্র জগতের নামজাদা নায়কও ছিলেন। সব সময়েই লোকসভায় তাঁর ভাল পারফরম্যান্স দেখা গিয়েছে।’’

Advertisement

আসানসোলে প্রার্থী কে তা এখনও ঘোষণা করেনি বিজেপি। দিন কয়েকের মধ্যে সেই নাম জানা যাবে বলে বিজেপি সূত্রে খবর। তবে তৃণমূল প্রার্থী শত্রুঘ্নের বিরুদ্ধে কোন অস্ত্রে বিজেপি শান দেবে তার আঁচ পাওয়া গিয়েছে স্থানীয় নেতাদের কথায়। আসানসোলের বিজেপি নেতা দিলীপ দে-র খোঁচা, ‘‘তৃণমূলে তেমন কেউ নেই বলে বহিরাগত চলচ্চিত্র জগতের এক নায়ককে প্রার্থী করেছে।’’ আবার আসানসোলের প্রাক্তন মেয়র তথা বিজেপি নেতা জিতেন্দ্র তিওয়ারির কটাক্ষ, ‘‘এখানে তৃণমূল শত্রুঘ্ন সিন্‌হাকে প্রার্থী করেছে। ওঁর প্রায় ৮০ বছর বয়স হল। ওঁকে আমার প্রণাম।’’ যদিও বিজেপি-র এই বক্তব্যকে আমল দিচ্ছে না তৃণমূল।

রবিবার শত্রুঘ্নের হয়ে প্রচারে নামা তৃণমূল নেতা-কর্মীদের মধ্যে ছিলেন তৃণমূলের পশ্চিম বর্ধমান জেলার সভাপতি তথা আসানসোল পুরসভার মেয়র বিধান উপাধ্যায়ও। তাঁর বক্তব্য, ‘‘সকলেই শত্রুঘ্ন সিন্‌হাকে চেনেন। মানুষের কাছে আলাদা করে তাঁর পরিচয় তুলে ধরতে হবে না। তার উপর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় রয়েছেন।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement