Advertisement
০৬ অক্টোবর ২০২২
Drowned

নৌকায় উঠে দাপাদাপি! ছাড়িগঙ্গায় নৌকাডুবির ঘটনায় আরও এক জনের দেহ উদ্ধার

শনিবার নদিয়ার কৃষ্ণনগর থেকে চুপির পাখিরালয়ে বেড়াতে যান ওই চার বন্ধু। প্রত্যেকেরই বয়স তিরিশের কোঠায়।

নিজস্ব চিত্র

নিজস্ব সংবাদদাতা
পূর্বস্থলী শেষ আপডেট: ০৭ অগস্ট ২০২২ ২২:১৭
Share: Save:

লাইফ জ্যাকেট না পরে মদ্যপ অবস্থায় নৌকা চড়াই কাল হল! পূর্ব বর্ধমানের পূর্বস্থলীর ছাড়িগঙ্গায় নৌকা উল্টে গভীর জলে তলিয়ে গিয়ে মৃত্যু হল নদিয়ার কৃষ্ণনগর থেকে পাখিরালয় ভ্রমণে যাওয়া দুই পর্যটকের। বরাত জোরে প্রাণে বেঁচে গিয়েছেন একই পর্যটক দলের বাকি দুই জন ও নৌকার মাঝি। শনিবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে। পুলিশ জানিয়েছে, মৃতদের নাম সৈকত চট্টোপাধ্যায় ও সৌরভ ভট্টাচার্য। আহত দু’জন পর্যটক তন্ময় শীল শর্মা, তনয় মাজি এবং নৌকার মাঝি মদন পারুইকে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। মদন পূর্বস্থলীর চুপি এলাকার বাসিন্দা। কী ভাবে নৌকাডুবির ঘটনা ঘটল, তার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। এই দুর্ঘটনা ঘটার জন্য পর্যটকদেরকেই দায়ী করেছেন মাঝি।

শনিবার নদিয়ার কৃষ্ণনগর থেকে চুপির পাখিরালয়ে বেড়াতে যান ওই চার বন্ধু। প্রত্যেকেরই বয়স তিরিশের কোঠায়। সন্ধ্যায় পাখিরালয় দেখে ফেরার সময় তাঁদের নৌকা উল্টে যায় ছাড়িগঙ্গায়। চার পর্যটক ও মাঝিকে হাবুডুবু খেতে দেখে জলে নেমে পড়েন কয়েক জন স্থানীয়। তাঁদের তৎপরতাতেই প্রাণ বাঁচে তন্ময়, তনয় আর মদনের। কিন্তু তলিয়ে যান সৈকত ও সৌরভ। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে পূর্বস্থলী থানার পুলিশ। উদ্ধার হওয়া তিন জনকে পূর্বস্থলীর ব্লক হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। পরে তাঁদের নদিয়ার প্রতাপনগর স্টেট জেনারেল হাসপাতালে। পরে রাতে দিকে ডুবুরি নামিয়ে উদ্ধার হয় সৌরভের দেহ। সৌকতের দেহ মেনে রবিবার দুপুরে।

পুলিশ সূত্রে খবর, সৈকত বিদ্যুৎ দফতরের কালনা ডিভিশনে সাব-অ্যাসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার পদে কর্মরত ছিলেন। সৌরভ মেডিকেল রিপ্রেজেনটেটিভের কাজ করতেন। তন্ময় হোমিওপ্যাথি চিকিৎসক। আর তনয় হাই স্কুলে শিক্ষকতা করেন। নৌকার মাঝি মদনের দাবি, “চার বন্ধুই মদ্যপ অবস্থায় ছিলেন নৌকায়। মদের বোতল হাতে নিয়ে নৌকার উপর দাপাদাপি হুল্লোড় করা শুরু করেন ওঁরা। যে কারণে নৌকাও দুলছিল। দাপাদাপি বন্ধ করতে বলেছিলাম। কিন্তু ওঁরা শোনেননি। তার আচমকায় নৌকা এক দিকে কাত হয়ে গিয়ে ছাড়িগঙ্গায় পাল্টি খায়।’’

ছাড়িগঙ্গায় নৌকাডুবির ঘটনা ঘটনায় বেশ কিছু গাফিলতির বিষয় রয়েছে বলে মনে করছেন স্থানীয়েরা। তাঁদের দাবি, পর্যটকদের কেউই লাইফ জ্যাকেট ব্যবহার করেননি । বিকাল ৪টের পর নৌকায় চড়ে পর্যটকদের ছাড়িগঙ্গায় ঘোরার ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। তার পরেও সন্ধ্যায় পর্যটকেরা ছাড়িগঙ্গা কী ভাবে থাকলেন, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন কেউ কেউ। কালনার এসডিপিও সপ্তর্ষি ভট্টাচার্য বলেন, ‘‘ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে।’’ ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গিয়েছিলেন স্থানীয় বিধায়ক তপন চট্টোপাধ্যায়। তিনি বলেন “কৃষ্ণনগরের কয়েক জন চুপির পাখিরালয়ে বেড়াতে যান। তাঁদের নৌকা উল্টে গিয়ে এই দুর্ঘটনা। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.