Advertisement
২২ মে ২০২৪
Sandeshkhali Incident

‘যা অভিযোগ রয়েছে, থানা বা প্রশাসনের ক্যাম্পে এসে জানান’, সন্দেশখালিকে বার্তা দিলেন পুলিশ সুপার

পুলিশ সুপার জানিয়েছেন, স্থানীয়দের অভিযোগ শোনার জন্য বসিরহাট এবং ন্যাজাট থানার অন্তর্গত এলাকায় শিবির খোলা হয়েছে পুলিশের তরফে। বেশ কিছু অভিযোগও সেখানে জমা পড়েছে।

image of sp

বসিরহাট পুলিশ জেলার সুপার হোসেন মেহেদি রহমান। — নিজস্ব চিত্র।

সারমিন বেগম
সন্দেশখালি শেষ আপডেট: ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ২১:৩৯
Share: Save:

কোনও সমস্যা থাকলে থানায় বা পুলিশ এবং প্রশাসনের খোলা ক্যাম্পে এসে লিখিত ভাবে জানান। আইনি পথে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। শনিবার সন্দেশখালিতে দাঁড়িয়ে সাংবাদিকদের মাধ্যমে বাসিন্দাদের সেই বার্তাই দিলেন বসিরহাট পুলিশ জেলার সুপার হোসেন মেহেদি রহমান। তিনি এ-ও জানালেন, শুক্রবারের পর শনিবারও সন্দেশখালিতে নতুন কোনও ঘটনা হয়নি।

ফেব্রুয়ারির শুরু থেকেই উতপ্ত সন্দেশখালি। নিয়ন্ত্রণে রাখতে ১৪৪ ধারা জারি করা হয় প্রশাসনের তরফে। তার পরেও বার বার অশান্ত হয়েছে সন্দেশখালি। বিক্ষোভ দেখিয়েছেন স্থানীয়েরা। তাঁদের ক্ষোভ, অভিযোগ শোনার জন্য শিবির খুলেছে প্রশাসন। পুলিশ সুপার জানিয়েছেন, স্থানীয়দের অভিযোগ শোনার জন্য বসিরহাট এবং ন্যাজাট থানার অন্তর্গত এলাকায় শিবির খোলা হয়েছে পুলিশের তরফে। বেশ কিছু অভিযোগও সেখানে জমা পড়েছে। সেগুলি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এর পরেই তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘‘সন্দেশখালিবাসীকে বলতে চাই আপনাদের মাধ্যমে, যাঁর যা অভিযোগ রয়েছে, আপনারা আমাদের ক্যাম্প বা জেলা প্রশাসনের ক্যাম্প বা খানায় এসে লিখিত ভাবে জানান। আমরা আইনি প্রক্রিয়া চালাব।’’ এসপি আরও বলেন, ‘‘মানুষের সাড়া ভাল পেয়েছি ক্যাম্পে। তবে মোট কত অভিযোগ জমা পড়েছে, তা একসঙ্গে যোগ করে বলা যাবে।’’

পুলিশ সুপার দাবি করেছেন, শুক্রবারের পর শনিবার সন্দেশখালিতে নতুন করে কোনও ঘটনা ঘটেনি। নতুন করে কেউ গ্রেফতারও হয়নি। এসপি এ-ও জানিয়েছেন, শনিবার পর্যন্ত ন’জনকে জমি ফেরানো হয়েছে। জেলা প্রশাসন খতিয়ে দেখছে। জমি মাপা চলছে। শুক্রবার তৃণমূল নেতা অজিত মাইতির বাড়িতে ভাঙচুরের অভিযোগ উঠেছে। এই প্রসঙ্গে এসপি জানিয়েছেন, অজিতের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হয়নি। তিনি একটা দায়ের করেছেন, তার ভিত্তিতে মামলা হয়েছে। তবে রহমানের হুঁশিয়ারি, যিনি আইন ভাঙবেন, তাঁর বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ করা হবে।

শুক্রবার উত্তপ্ত হয়েছে সন্দেশখালির বেড়মজুর গ্রাম। শনিবার সকাল থেকে সেখানেই অস্থায়ী ক্যাম্প বসিয়েছে পুলিশ। ওই ক্যাম্পে অভিযোগ জমা দিয়েছেন গ্রামবাসীরা। বারাসতের ডিআইজি ভাস্কর মুখোপাধ্যায় বেড়মজুরে ছিলেন। স্থানীয়দের অভিযোগ শোনার জন্য এই ধরনের ক্যাম্প আগামী দিনে সন্দেশখালির অন্যান্য এলাকাতেও বসানো হবে বলে জানা গিয়েছে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)

অন্য বিষয়গুলি:

Sandeshkhali Incident police
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE