×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

ভারতীর র‌্যালিতে ইটবৃষ্টি, তৃণমূল কার্যালয়ে হামলায় পাল্টা অভিযুক্ত বিজেপি 

নিজস্ব সংবাদদাতা
ভগবানপুর ২২ নভেম্বর ২০২০ ১৯:৫৬
বিজেপির মিছিল ঘিরে উত্তেজনা। —নিজস্ব চিত্র

বিজেপির মিছিল ঘিরে উত্তেজনা। —নিজস্ব চিত্র

দফায় দফায় গাছের গুঁড়ি ফেলে ভারতী ঘোষের নেতৃত্বে বিজেপির মোটর বাইক র‌্যালি আটকানোর অভিযোগ উঠল রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলের বিরুদ্ধে। সেই সঙ্গে মিছিলে ইটবৃষ্টির অভিযোগ ঘিরে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়াল পূর্ব মেদিনীপুরের ভুপতিনগর থানার এক্তারপুর এলাকায়। অভিযোগ অস্বীকার করে তৃণমূলের পাল্টা দাবি, বাইক মিছিল থেকে এক্তারপুর বাসস্ট্যন্ড লাগোয়া এলাকায় তৃণমূলের একটি দলীয় কার্যালয় ভাঙচুর করেছেন বিজেপি কর্মীরা। যদিও তৃণমূলের তরফে এ নিয়ে কেউ মুখ খুলতে চাননি।

পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠার খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে পৌঁছয় বিশাল পুলিশ বাহিনী। এর পর পুলিশের তৎপরতায় পরিস্থিতি কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আসে। শেষ পর্যন্ত ভারতী ঘোষ মিছিল শেষ করে দলীয় কর্মসূচি সেরে ফেরেন।

বিজেপির কাঁথি সাংগঠনিক জেলার সভাপতি অনুপকুমার চক্রবর্তী জানান, দিন কয়েক আগে এই ভুপতিনগর থানার গাজিপুর গ্রামের বাসিন্দা বিজেপি কর্মী গোকুল জানাকে চড় মেরে খুনের ঘটনার প্রতিবাদে আজ হেড়িয়া থেকে উদবাদল পর্যন্ত বাইক র‌্যালির ডাক দেয় বিজেপি নেতৃত্ব। সেই সঙ্গে উদবাদলে বিজেপির একটি পার্টি অফিসেরও উদ্বোধন করার কথা ছিল তাঁর। অনুপবাবু বলেন, ‘‘মিছিল এক্তারপুর বাসস্ট্যান্ড থেকে কিছুটা দূরে এগোতেই রাস্তায় বার বার রাস্তায় গাছের গুঁড়ি ফেলে মিছিল আটকানোর চেষ্টা হয়। পাশাপাশি বাইক র‌্যালির উপর আচমকাই শুরু হয় ইটবৃষ্টি।’’

Advertisement

আরও পড়ুন: মঙ্গলবার বাঁকুড়া থেকে মোদীর সঙ্গে ভার্চুয়াল বৈঠকে যোগ দেবেন মমতা

তৃণমূলের পাল্টা দাবি, বিজেপি কর্মীরাই তাঁদের সমর্থকদের দিকে বাঁশ-লাঠি উঁচিয়ে তাড়া করেন। মিছিলে যোগ দেওয়া বিজেপি কর্মীরা ভাঙচুর চালান স্থানীয় একটি দলীয় কার্যালয়ে।

পুলিশের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন প্রাক্তন আইপিএস ভারতী ঘোষ। তিনি বলেন, ‘‘আজকের মোটর বাইক র‌্যালির বিষয়ে আগে থেকেই পুলিশকে জানানো হয়েছে। তারপরেও বার বার তাঁর পথ আটকানোর চেষ্টা হয়েছে। মিছিলের উপর হামলাও হয়েছে।’’

আরও পড়ুন: হিম্মত থাকলে ‘ভাইপো’র নাম বলুন, তৃণমূলের নিশানায় বিজেপি

যদিও পুলিশ অফিসারদের দাবি, তাঁদের হস্তক্ষেপেই এলাকার উত্তেজনা নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়েছে। শেষ পর্যন্ত ভারতী ঘোষ উদবাদলে গিয়ে দলীয় পার্টি অফিসের উদ্বোধন করেন। তবে এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত কোনও লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়নি বলেই পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে।

Advertisement