Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ ই-পেপার

নাথুরামদের ক্ষমা নেই ক্ষুদিরামের বাংলায়, ডাক জোটের মিছিলে

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ৩১ জানুয়ারি ২০২১ ০৪:০৪
গাঁধীজির মৃত্যুদিনে আরএসএস-বিজেপির বিরুদ্ধে প্রতিবাদে বাম ও কংগ্রেস।

গাঁধীজির মৃত্যুদিনে আরএসএস-বিজেপির বিরুদ্ধে প্রতিবাদে বাম ও কংগ্রেস।
নিজস্ব চিত্র।

মোহনদাস কর্মচন্দ গাঁধীর মৃত্যুদিনকে উপলক্ষ করে কড়া বিজেপি বিরোধিতার পাশাপাশি জোটের বার্তাই জোরালো করার চেষ্টা করল বাম ও কংগ্রেস। একসঙ্গে পথে নেমে সাম্প্রদায়িকতাকে পরাস্ত এবং সংবিধানের ধর্মনিরপেক্ষতার আদর্শকে রক্ষার ডাক দিলেন দু’পক্ষের রাজ্য নেতৃত্ব।

কেন্দ্রে নরেন্দ্র মোদী সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকেই গাঁধীজির মৃত্যুদিনে আরএসএস-বিজেপির বিরুদ্ধে প্রতিবাদে নামছে বামেরা। সাম্প্রতিক কালে যৌথ কর্মসূচিতে সঙ্গী হচ্ছে কংগ্রেসও। বিধান ভবনের অদূরে রামলীলা ময়দান থেকে শনিবার কংগ্রেসের আব্দুল মান্নান, প্রদীপ ভট্টাচার্য, অমিতাভ চক্রবর্তীদের সঙ্গেই মিছিল করে বেলেঘাটায় গাঁধী ভবনে যান বাম ও সহযোগী মিলে ১৫ দলের নেতারা। মিছিলে ছিলেন বিমান বসু, সূর্যকান্ত মিশ্র, মহম্মদ সেলিম, সুজন চক্রবর্তী, মনোজ ভট্টাচার্য, নরেন চট্টোপাধ্যায়, প্রবীর দেবেরা। বেলেঘাটায় গাঁধী ভবনের সামনে সমাবেশ করেন তাঁরা।

মিছিল শুরুর আগে এ দিন জোটের জটিলতা নিয়ে প্রশ্নের জবাবে কংগ্রেস সাংসদ প্রদীপবাবু বলেন, ‘‘বামেদের সঙ্গে জোট করার নির্দেশ আমাদের দিয়েছেন স্বয়ং সনিয়া গাঁধী। সুতরাং, জোট নিয়ে কোনও সংশয় নেই। আসন-ভাগের ক্ষেত্রে যে সমঝোতা বাকি আছে, আলোচনা করে তারও নিষ্পত্তি হবে।’’ তবে বামেদের সঙ্গে যৌথ কর্মসূচিতে মান্নান, প্রদীপবাবুরা নিয়মিত থাকলেও কংগ্রেসের অন্য নেতা ও কর্মী-সমর্থকদের সে ভাবে কেন দেখা যাচ্ছে না, তা নিয়ে জোট-শিবিরে প্রশ্ন উঠছেই। কংগ্রেস সূত্রের খবর, গাঁধীর মৃত্যুদিন পালনের জন্য প্রদেশ কংগ্রেসে যে বিজ্ঞপ্তি জারি হয়েছিল, তাতে শুধুই বিধান ভবনের অনুষ্ঠানের কথা বলা ছিল। যৌথ মিছিলের উল্লেখ ছিল না। প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী দিল্লিতে থাকায় এ বারও বামেদের সঙ্গে মিছিলে ছিলেন না।

Advertisement

বিধান ভবনে এ দিন প্রথা মেনে গাঁধী-স্মরণ অনুষ্ঠান হয়েছে। সেখানে ছিলেন দেবব্রত বসু, কৃষ্ণা দেবনাথ, আব্দুস সাত্তার প্রমুখ। আর যৌথ মিছিল শেষে সমাবেশে বিরোধী দলনেতা মান্নান বলেন, ‘‘বামেরা গাঁধীবাদী নন। কিন্তু গাঁধীজির ধর্মনিরপেক্ষতার আদর্শকে তাঁরা যে ভাবে সম্মান জানিয়েছেন, তাতে আমরা কৃতজ্ঞ।’’ দলের অনলাইন কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠকের ফাঁকেই সমাবেশে এসে সিপিএমের পলিটব্যুরো সদস্য মহম্মদ সেলিমের মন্তব্য, ‘‘গাঁধীজির হত্যাকারী নাথুরামেরা এখন নানা চেহারায় ঘুরে বেড়াচ্ছে। কিন্তু ক্ষুদিরামের বাংলা তাদের চিনে নিতে কখনও ভুল করবে না!’’

আরও পড়ুন

More from My Kolkata
Advertisement