×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৫ জুন ২০২১ ই-পেপার

কলকাতায় র‌্যাপিড টেস্টে ২ জনের রিপোর্ট পজিটিভ

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ২১ এপ্রিল ২০২০ ১৫:৪৬
উপসর্গ শুরুর সাত দিন পরে এই পরীক্ষা সম্ভব। ছবি:পিটিআই

উপসর্গ শুরুর সাত দিন পরে এই পরীক্ষা সম্ভব। ছবি:পিটিআই

কলকাতা ও হাওড়ায় মোট ৭৮ জনের র‌্যাপিড অ্যান্টিবডি টেস্টের পর, ২ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এল। স্বাস্থ্য ভবন সূত্রে জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার ওই দু’জনের রিপোর্ট পজিটিভ আসে। তাঁরা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত কি না, সে জন্য কোভিড-১৯ টেস্ট করে আরও নিশ্চিত হতে চাইছেন স্বাস্থ্যকর্তারা।

স্পর্শকাতর এলাকায় যাঁদের ইনফ্লুয়েঞ্জার মতো উপসর্গ আছে, এই পরীক্ষা শুধু তাঁদের জন্যই করা হয়। উপসর্গ শুরুর সাত দিন পরে এই পরীক্ষা সম্ভব। এই পরীক্ষায় আইজিএম অথবা আইজিজি আছে কি না দেখা যায়‌। আইজিএম পজিটিভ মানে, ওই ব্যক্তির শরীরে অতি সম্প্রতি ভাইরাস বাসা বেঁধেছে। অন্য দিকে আইজিজি পজিটিভ মানে, ওই ব্যক্তির শরীরে ভাইরাসের উপস্থিতি ছিল ৩-৪ সপ্তাহ আগে। কিন্তু সেই ভাইরাসই যে কোভিড-১৯, তা স্পষ্ট করে না এই পরীক্ষা।

দু’জনের র‌্যাপিড অ্যান্টিবডি টেস্টের রিপোর্ট পজিটিভ আসার পর বেলগাছিয়ার ওই এলাকায় আরও টেস্ট করাতে উদ্যোগী হয়েছে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রক। এলাকায় বেশ কিছু সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে প্রশাসনের তরফেও। যাঁদের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে, তাঁদের বাড়িকে কেন্দ্র করে চারপাশের এলাকায় প্রত্যেকের জরুরি ভিত্তিতে টেস্ট করানো হবে বলে স্বাস্থ ভবন সূত্রে জানা গিয়েছে।

Advertisement

আরও পড়ুন: রাজ্যে এক দিনে করোনা-আক্রান্তের সংখ্যা ৫০ ছাড়া

ওই এলাকার নির্দিষ্ট কিছু জায়গা ইতিমধ্যেই সিল করে দেওয়া হয়েছে। খুব প্রয়োজন না পড়লে, কাউকে সেখান থেকে বেরতে দেওয়া হচ্ছে না। এ ছাড়াও ওই এলাকায় ড্রোনের মাধ্যমে চলছে নজরদারি। লকডাউন অমান্য করলে, আইন অনুযায়ী পদক্ষেপ করা হচ্ছে বলে পুলিশ সূত্রে খবর। কারও কোনও কিছু প্রয়োজন পড়লে, পুরসভা এবং পুলিশ সাহায্য করছে। আইএমএ-র সদ্য প্রাক্তন সর্বভারতীয় সভাপতি তথা তৃণমূল সাংসদ শান্তনু সেন বলেন, “দু’জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। এক জন পুরুষ এবং অন্য জন মহিলা। ওই এলাকায় সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।”

আরও পড়ুন: রাজ্যে এল কেন্দ্রীয় দল, মোদীকে চিঠি ক্ষুব্ধ মমতার

গত সোমবার হাওড়ায় ৬৪ জন এবং কলকাতায় ১৪ জনের র‌্যাপিড অ্যান্টিবডি টেস্ট করা হয়েছে। মঙ্গলবার টেস্টের সংখ্যা আরও বাড়ানো হবে বলে স্বাস্থ্য ভবন সূত্রে খবর। কলকাতার যে এলাকায় অ্যান্টিবডি টেস্ট পজিটিভ মিলেছে, সেই বেলগাছিয়া এলাকায় মাইক প্রচার চালিয়ে বলা হচ্ছে, যাঁদের সর্দি, কাশি, শ্বাসকষ্টের মতো উপসর্গ দেখা দিয়েছে, তাঁরা যেন দ্রুত র‌্যাপিড অ্যান্টিবডি পরীক্ষা করান। স্বাস্থ্য ভভন সূত্রে খবর, এ বিষয়ে এলাকাবাসীর সাড়াও মিলছে। ওই এলাকার একটি স্কুলে র‌্যাপিড অ্যান্টিবডি টেস্ট করা হচ্ছে। মঙ্গলবার সকাল থেকে এলাকায় চলছে মাইক প্রচার।

স্থানীয় সূত্রে খবর, এলাকায় আগে এক জনের শরীরে কোভিড-১৯-এর উপস্থিতির প্রমাণ মিলেছিল। পরে তার বাড়ির অনেককেই গৃহ-পর্যবেক্ষণে পাঠানো হয়। গতকাল, সোমবার ওই এলাকার আরও দু’জনের র‌্যাপিড অ্যান্টিবডি টেস্টের রিপোর্ট পজিটিভ আসার পর, তাঁদের পরিবারের সদস্যদেরও ওই টেস্ট করানো হবে। ওই ব্যক্তিরা এ ক’দিন কাদের সংস্পর্শে এসেছিলেন, তা-ও দেখা হচ্ছে। ইতিমধ্যেই ওই দু’জনকে হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে পাঠানো হয়েছে।

(অভূতপূর্ব পরিস্থিতি। স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিয়ো আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, feedback@abpdigital.in ঠিকানায়। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।)

Advertisement