Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

৩০ নভেম্বর ২০২১ ই-পেপার

ভোটারের নাম ভুল ভাবে ছাঁটাই হলে দায়ী হবেন জেলাশাসক

জগন্নাথ চট্টোপাধ্যায়
কলকাতা ১২ অক্টোবর ২০২০ ০৪:৪৩
প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

নতুন তালিকাই চাই। কিন্তু ভোটারের নাম বাদ দিতে হবে অতি সাবধানে! বিভিন্ন রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনের মুখে চূড়ান্ত ভোটার তালিকার সংশোধনীতে নেমে এই বার্তা দিয়েছে নির্বাচন সদন। নির্বাচন কমিশনের নির্দেশ, তালিকা থেকে যে-সব নাম বাদ যাবে, সংশ্লিষ্ট জেলাশাসক তথা জেলা নির্বাচনী অফিসারকে সেগুলি খুঁটিয়ে দেখতে হবে। বাদ যাওয়া কোনও নাম নিয়ে বিতর্ক হলে দায় চাপবে জেলাশাসকদের উপরেই।

আগামী বছর যে-সব রাজ্যে ভোট, সেখানে তালিকা সংশোধন চলছে। নভেম্বরের মাঝামাঝি খসড়া ভোটার তালিকা প্রকাশ করে অভিযোগের নিষ্পত্তি পর্ব শুরু হবে। জানুয়ারির শেষে প্রকাশিত হতে পারে চূড়ান্ত ভোটার তালিকা। কারও কারসাজিতে কোনও বৈধ ভোটারের নাম যাতে বাদ না-পড়ে, নতুন তালিকা তৈরিতে এই বিষয়টিকেই সর্বাধিক গুরুত্ব দিচ্ছে কমিশন। তাই নাম ছাঁটাইয়ের ক্ষেত্রে এক গুচ্ছ নির্দেশিকা দেওয়া হয়েছে। কমিশনের বক্তব্য, মৃত ক্ষেত্রে ডেথ সার্টিফিকেট জমা পড়লে তবেই নাম বাদ দেওয়া যাবে। মৃতের নিকটাত্মীয় বা প্রতিবেশী সেই শংসাপত্র জমা দিলে কমিশন তা বিচার করতে পারে।

ঠিকানা বদলানোর জেরে নাম বাদ পড়ার অভিযোগ ওঠে বিস্তর। অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায়, বিরুদ্ধ দলের কর্মীরা নালিশ করায় অনেকের নাম বাদ পড়েছে। কমিশনের হুঁশিয়ারি, আর যেন এমন অভিযোগ না-ওঠে। নাম বাদ দেওয়ার সাত নম্বর আবেদনপত্র ভোটার নিজে জমা না-দিলে বিষয়টি বিবেচনা করা হবে না। ভোটার আবেদন করলেও ইআরও বা এইআরও-দের তা যাচাই করতে হবে। বাড়ি বাড়ি গিয়ে তা যাচাই করতে হবে বুথ লেভেল অফিসারদের (বিএলও)। ঠিকানা বদলের জন্য বা অন্যত্র চলে যাওয়ায় কারও নাম বাদের আবেদন এলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে শুনানিতে না-ডেকে সিদ্ধান্ত নেওয়া যাবে না। যদি শুনানির নোটিস সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে কোনও মতেই ধরানো না-যায়, তা হলে দু’জন সাক্ষীর উপস্থিতিতে তাঁর বাড়িতে সেটি ঝুলিয়ে দিতে হবে।

Advertisement

আরও পড়ুন: ভাঙছে কিছু বুথ, সময় বেঁধে কাজ খসড়া তালিকার

কমিশন জানিয়েছে, কোনও বুথে ২% নাম বাদ পড়লে স্থানীয় এসডিও বা তাঁর প্রতিনিধিকে বাড়ি বাড়ি গিয়ে তা যাচাই করতে হবে। যদি দেখা যায় একই ব্যক্তি পাঁচ জনের নাম বাদ দেওয়ার আবেদন জানিয়েছেন, তৎক্ষণাৎ তার তদন্ত করতে হবে। কোনও এলাকায় মোট যত নাম বাদ দেওয়া হচ্ছে, তার অন্তত ১০% যাচাই করে দেখতে হবে মহকুমাশাসককে।

আরও পড়ুন

Advertisement