Advertisement
১৩ জুন ২০২৪
Ayan Sil

ভাড়া চাইলে অয়ন বলতেন, কিনে নেব! ফ্ল্যাটমালিকের খেদ, ‘ভালবাসতাম, এখন দেখছি ছেলেটা চিটিংবাজ’

শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় হুগলির বহিষ্কৃত দুই তৃণমূল নেতা কুন্তল ঘোষ, শান্তনু বন্দ্যোপাধ্যায়ের পর ওই জেলার আরও এক বাসিন্দা অয়ন শীলকে গ্রেফতার করেছে ইডি। তাঁকে নিয়ে অভিযোগ ফ্ল্যাটমালিকের।

Recruitment Scam: as a tenant arrested Ayan Sil allegedly did not give rent to the flat owner

অয়ন শীলকে নিয়ে কথা বলতে যেতেই ফ্ল্যাটমালিক রাধিকা দত্তের গলায় ক্ষোভ ঝরে পড়ে। —নিজস্ব চিত্র।

নিজস্ব সংবাদদাতা
চুঁচুড়া শেষ আপডেট: ২০ মার্চ ২০২৩ ১৮:৪৫
Share: Save:

আখন বাজার দত্ত এলাকার সুপার মার্কেট। হুগলির চুঁচুড়ার প্রাণকেন্দ্র ওই এলাকা। এখানেই একটি ফ্ল্যাটে ভাড়া করেছিলেন নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় ধৃত অয়ন শীল। যদিও ভাড়া এক টাকাও দেননি। ফ্ল্যাটের মালিক ভাড়া চাইলেই নাকি অয়ন শোনাতেন তাড়াতাড়ি ওই ফ্ল্যাটটি কিনে নেবেন। তখন এক সঙ্গে ভাড়ার টাকাও দেবেন। অয়নের গ্রেফতারির পর বৃদ্ধ ফ্ল্যাটমালিক রাধিকা দত্তের গলায় আক্ষেপ ঝরে পড়ছে। আবার একই সঙ্গে অয়নের নাম শুনে রেগেও উঠছেন তিনি। এক বার বৃদ্ধ বলেন, ‘ওকে ভালবাসতাম।’ পর ক্ষণেই মন্তব্য, ‘চিটিংবাজ একটা’।

শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় হুগলির বহিষ্কৃত দুই তৃণমূল নেতা কুন্তল ঘোষ, শান্তনু বন্দ্যোপাধ্যায়ের পর ওই জেলার আরও এক বাসিন্দা অয়নকে গ্রেফতার করেছে ইডি। অয়ন প্রাক্তন তৃণমূল যুব নেতা শান্তনুর ঘনিষ্ঠ বলে ইডি সূত্রে খবর। পেশায় প্রোমোটার অয়নের বাড়ি থেকে উদ্ধার হয়েছে চাকরির পরীক্ষার ওএমআর শিট, উত্তরপত্র। রবিবার টানা জেরার পর তাঁকে গ্রেফতার করেছে ইডি। বেশ কিছু দিন আগে ওই অয়ন আখন বাজার এলাকায় একটি ফ্ল্যাট ভাড়া নিয়েছিলেন। ফ্ল্যাটমালিককে বলেছিলেন সেখানে কম্পিউটারের ব্যবসা করবেন। কিন্তু ব্যবসার নামগন্ধ নেই। ফ্ল্যাট ভাড়া নিলেও ভাড়ার টাকাও তিনি দিতেন না বলে অভিযোগ।

ফ্ল্যাটমালিক রাধিকা জানান, যে ফ্ল্যাটটি অয়ন ভাড়া নিয়েছিলেন সেটি প্রায় ১,৫০০ বর্গফুটের। ওই এলাকায় এমন একটি ফ্ল্যাটের মাসিক ভাড়া কমপক্ষে ১০ হাজার টাকা। কিন্তু রাধিকা বলছেন, তিনি ভাড়ার কোনও টাকাই অয়নের কাছ থেকে পাননি। বৃদ্ধের কথায়, ‘‘মার্কেটে অনেকেই দোকান নেওয়ার পর টাকা দিয়েছে। ওকে ভালোবাসতাম। তাই ফ্ল্যাটটা ভাড়ায় দিয়েছিলাম। কিন্তু পরে যখনই ভাড়া চেয়েছি, বলেছে ফ্ল্যাটটা কিনে নেবে। তখন এক সঙ্গে সব টাকা দিয়ে দেবে।’’ কিন্তু সেটা আর কখনও হয়নি। বৃদ্ধের কথায়, ‘‘অনেক লোকের কাছ থেকে টাকা তুলেছে বলে পরে শুনেছি। এখন বুঝতে পারছি ও একটা চিটিংবাজ।’’ অয়নের গ্রেফতারির পর মানুষজনের কৌতূহল তৈরি হয়েছে ওই ফ্ল্যাট নিয়ে। বাড়িমালিক বলছেন, ‘‘আজব ঝামেলায় পড়েছি।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE