Advertisement
০৫ ডিসেম্বর ২০২২
Partha Chatterjee

জেলে থেকেও বিধানসভার বৈঠকে ডাক পেলেন পার্থ, আমন্ত্রণ পাঠাল বিজনেস অ্যাডভাইসরি কমিটি

অধিবেশনের বিজনেস অ্যাডভাইসরি কমিটির বৈঠকে ডাক পেলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। বুধবার বিধানসভার স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘‘পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে বৈঠকে আমন্ত্রণ জানিয়ে চিঠি পাঠানো হয়েছে।’’

জেলবন্দী বিধায়ক পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে আমন্ত্রণ বিধানসভার বিজনেস অ্যাডভাইসারি কমিটির বৈঠকে।

জেলবন্দী বিধায়ক পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে আমন্ত্রণ বিধানসভার বিজনেস অ্যাডভাইসারি কমিটির বৈঠকে। ফাইল চিত্র

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ০৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১৯:০৩
Share: Save:

আগামী ১৪ তারিখে শুরু হবে রাজ্য বিধানসভার স্বল্পকালীন অধিবেশন। সেই অধিবেশনের বিজনেস অ্যাডভাইসরি (বিএ) কমিটির বৈঠকে ডাক পেলেন জেলবন্দি পার্থ চট্টোপাধ্যায়। বুধবার বিধানসভার স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘‘পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে বৈঠকে আমন্ত্রণ জানিয়ে চিঠি পাঠানো হয়েছে।’’ তবে জেলবন্দি বেহালা পশ্চিমের বিধায়ক যে সেই বৈঠকে যোগ দিতে পারবেন না, তা বিলক্ষণ জানেন স্পিকার বা বিধানসভার সচিবালয়। কিন্তু যেহেতু এখনও তিনি এই কমিটির সদস্য রয়েছেন, তাই তাঁকে ঔপচারিকতার কারণেই এই আমন্ত্রণ পাঠানো হয়েছে।১২ সেপ্টেম্বরের ওই বৈঠকের আমন্ত্রণপত্রটি পাঠানো হয়েছে তাঁর নাকতলার বাসভবন বিজয়কেতনের ঠিকানায়।

Advertisement

২০১১ সালে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ক্ষমতায় আসার পর থেকেই পরিষদীয়মন্ত্রীর দায়িত্বে ছিলেন পার্থ। সেই সুবাদে তিনি ছিলেন এই বিজনেস অ্যাডভাইসরি কমিটির গুরুত্বপূর্ণ সদস্য। গত ২৩ জুলাই এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি) পার্থকে গ্রেফতার করার পর থেকে একের পর এক পদ থেকে সরানো হয়েছে তাঁকে। প্রথমে মন্ত্রী, পরে দলের মহাসচিব-সহ সমস্ত পদ থেকে সরিয়ে সাসপেন্ড করা হয় পার্থকে। বিধানসভার কোনও স্ট্যান্ডিং বা অ্যাসেম্বলি কমিটিতেও তাঁকে রাখা হয়নি। বিধানসভায় সচিবালয় সূত্রে দাবি, অধিবেশনের সময়ই কেবলমাত্র বিএ কমিটির বৈঠক বসে। এর মধ্যে ওই সভার কোনও বৈঠক না হওয়ায় সেখানে তাঁর নাম রয়ে গিয়েছে।

তাই সেই পার্থকেবিএ কমিটির বৈঠকে ডাকা নিয়ে নতুন করে বির্তক তৈরি হয়েছে। বিধানসভার সচিবালয় সূত্রে খবর, বিএ কমিটির বৈঠকেই পার্থর সদস্যপদ খারিজ হয়ে যাবে সর্বসম্মতিক্রমে। কারণ পার্থকে আর কোনও কমিটিতে রাখার পক্ষপাতী নয় শাসকদল। তাই বিধানসভায় তাঁর ঘরটি পুরোপুরি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর পাশ থেকে তাঁর আসন সরিয়ে সাধারণ বিধায়কদের মধ্যে বসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। তাই বিএ কমিটির বৈঠক থেকে তাঁর বাদ যাওয়া এখন কেবলমাত্র সময়ের অপেক্ষা বলেই মনে করা হচ্ছে।

গত ১১ বছরে বিধানসভার সব বিএ কমিটির বৈঠকেই উপস্থিত থাকতেন পার্থ। কিন্তু এই প্রথমবার আমন্ত্রণ পেলেও, বৈঠকে তাঁর যোগদান সম্ভব হচ্ছে না।

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.